Posts Tagged ‘ফরয’

মুসলমানদের ঈমান রক্ষার্থে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার স্বপক্ষে শতভাগ শিক্ষা ব্যবস্থা ও সিলেবাস প্রণয়ন করা ফরয-ওয়াজিবের অন্তর্ভুক্ত।


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আপনার মহান রব তায়ালা উনার নাম মুবারক স্মরণ করে পাঠ করুন যিনি সৃষ্টি করেছেন।” সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, প্রত্যেক পুরুষ-মহিলা, জিন-ইনসান সকলের জন্য ইলম

কৃত ওলীআল্লাহ উনাদেরকে অনুসরণ করা উম্মতের জন্য ফরয। সুবহানাল্লাহ!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে অনুসরণ করো, মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে অনুসরণ করো এবং তোমাদের মধ্যে যারা উলিল আমর উনাদেরকে অনুসরণ করো।’ সুবহানাল্লাহ!

পবিত্র সুন্নত মুবারক পালন করা ফরয 


পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত আছে- “নিশ্চয়ই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মধ্যেই রয়েছে তোমাদের জন্য উত্তম আদর্শ মুবারক।” পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যেও ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “আমার সুন্নত মুবারক উনাকে যে মুহব্বত করলো,

পবিত্র সুন্নত মুবারক পালন করা ফরয


لقد كان لكم فى رسول الله اسوة حسنة অর্থ: “নিশ্চয়ই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মধ্যেই রয়েছে তোমাদের জন্য উত্তম আদর্শ মুবারক।” (পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ: পবিত্র আহযাব শরীফ- ২১) পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ

সম্মানিত শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে যাদের উপর হজ্জ ফরয অথবা যারা সম্মানিত শরীয়তসম্মতভাবে অর্থাৎ ছবি না তুলে, বেপর্দা না হয়ে পবিত্র হজ্জ করতে যাবেন তাদেরকে অবশ্যই প্রথমেই পবিত্র রওযা শরীফ যিয়ারত করতে হবে। পবিত্র রওযা শরীফ যিয়ারত করা পবিত্র ঈমান হিফাযত ও পবিত্র হজ্জ কবুল হওয়ার কারণ। সুবহানাল্লাহ!


বর্তমানে যে দলটি মুসলমানের ঈমান আমলের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করছে সে দলটি হচ্ছে- ওহাবী ফিরক্বা। এই ওহাবীরা মুসলমানদের পবিত্র হজ্জ ও পবিত্র ঈমান উনাকে নষ্ট করার লক্ষ্যে নানা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। এর মধ্যে একটি ষড়যন্ত্র হচ্ছে- তারা প্রচার করে থাকে যে,

প্রত্যেক মুসলমান পুরুষের জন্য দাড়ি রাখা ফরয


প্রথমত মহিলা ও পুরুষের মাঝে পার্থক্য হলো, মহিলাদের মুখে দাড়ি নেই আর পুরুষের মুখে দাড়ি থাকবে। আর দ্বিতীয়ত মুসলমানদের ও কাফিরদের মাঝে প্রভেদ করার মানদ-ও হলো দাড়ি। মুসলমানের মুখম-লে দাড়ি, মাথায় টুপি-পাগড়ি রুমাল পরা, নামায পরা ইত্যাদির মাধ্যমে পরিচয় লাভ করা

হারাম ছবির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো ফরয-ওয়াজিব


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “কোনো মু’মিন পুরুষ-মহিলার জন্য জায়িয হবে না- মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা যে ফায়ছালা করেছেন, সেই ফায়ছালার মধ্যে স্বীয়

প্রত্যেক মুসলমান উনার জন্য ফরয-ওয়াজিব হচ্ছে সর্বপ্রকার গান-বাজনা শোনা, গাওয়া থেকে বিরত থাকা


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “গান-বাজনা অন্তরে নিফাকী পয়দা করে”। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে একাধিক পবিত্র আয়াত শরীফ রয়েছে এবং অসংখ্য পবিত্র হাদীছ শরীফ বর্ণিত রয়েছে- যার দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, সর্বপ্রকার গান-বাজনাই হারাম। কেউ কেউ বলে

ফল-ফসলের যাকাত বা উশর আদায় করা ফরয


বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। পাশাপাশি ৯৮% মুসলিম অধ্যুষিত একটি দেশ। জীবন-জীবিকার তাগিদে কৃষক যমীনে ফসল ফলায়। অন্য দিকে ফসলের ফলন বৃদ্ধির লক্ষ্যে উদ্ভাবিত হচ্ছে নিত্য-নতুন কৃষি কৌশল ও কৃষিযন্ত্র। এর মাধ্যমে হয়তো বা ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে কিন্তু স্থায়ীত্ব লাভ করেনি

নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুন্নত মুবারক পালন করা প্রত্যেক উম্মতের জন্য ফরয।


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যা নিয়ে এসেছেন তা আঁকড়িয়ে ধরো এবং যা থেকে বিরত থাকতে বলেছেন তা থেকে বিরত থাকো।” [পবিত্র সূরা হাশর শরীফ :

মুসলমান মাত্রই প্রত্যেক মালেকে নেছাব ব্যক্তির উপর যাকাত আদায় করা ফরয


হাওয়ায়েজে আছলিয়া তথা নিত্যপ্রয়োজনীয় আসবাবপত্র, মাল-সামানা ইত্যাদি বাদ দিয়ে এবং কর্জ ব্যতীত নিজস্ব মালিকানাধীন সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ অথবা সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপা এক বছর কারো নিকট থাকলে তার উপর যাকাত ফরয। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “তোমরা

দাড়ি ও মোচের সংজ্ঞা এবং রাখার সঠিক নিয়ম


নাকের সম্মুখভাগে উপরের মাড়ি বরাবর বাইরের দিকে উঠা চুলকে মোচ বলা হয়। মোচের বাইরে দু চোয়াল বা দু’ মাড়ির বাইরের অংশে চেহারার মধ্যে যেসব চুল গজায় বা উঠে থাকে, তা সবই দাড়ির অন্তর্ভুক্ত। অনেককে দেখা যায়, দাড়ি ও মোচ কেটে ছোট