Posts Tagged ‘বাংলাদেশ’

১৯৬৫ সালের যুদ্ধ, বর্তমান দেশ এবং আত্মোপলব্ধি


১৯৬৫ সালের ২রা জানুয়ারি আইউব খান যখন ফাতেমা জিন্নাহকে পরাজিত করে নিজ অবস্থান সুদৃঢ় করে, তখন তার দক্ষিণ এশিয়ার নেতা হবার উগ্র বাসনা পেয়ে বসে। সিআইএ তকে তকে ছিল। সিআইএ একটি টোপ ফেলে এবং আইউব খান তা গিলে ফেলে। এদিকে সিআইএ

বাংলাদেশ নিয়ে আগ্রাসী শক্তিগুলোর শীতল যুদ্ধ! বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে চাপ ভারতের, চীনকে চাপ যুক্তরাষ্ট্রের। জন্ কেরির ৯ ঘণ্টার সফর একটা উদাহরণ। কৌশলে ভুল করলে বাংলাদেশ চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবে।


মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নীতি বিশ্বের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও অগ্রগতির ভরকেন্দ্রকে ঘিরে আবর্তিত হয়। একসময় বিশ্বে প্রবৃদ্ধির কেন্দ্র ছিল ইউরোপ। পরে তা যুক্তরাষ্ট্রে স্থানান্তরের পর বর্তমানে তা এশিয়ায়, বিশেষতঃ বাংলাদেশের দিকে চলে এসেছে। এশিয়া ও এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল বিশেষ করে বাংলাদেশেরও সম্পদ, জনশক্তি

পুটি মাছ যে দেশে রুই কাতলার চেয়ে বেশি দামী; সে দেশ বসবাস অযোগ্য


দেশটা কী তাহলে হীরক রাজার দেশে পরিণত হলো? পাঠক! আপনাদের নিশ্চয়ই দুই বন্ধুর হীরক রাজার দেশ ভ্রমণের সেই কাহিনী মনে আছে। ঘি আর তেলের দাম সমান দেখে এই যুক্তিহীন দেশ থেকে পালিয়ে এক বন্ধু প্রাণে রক্ষা পায়। অন্য বন্ধু সস্তা ঘি

অল্প বয়সী বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, তালাপ্রাপ্তা লাখো-কোটি মহিলা মানবেতর জীবন-যাপন করছে। দেশের অসহায় মহিলাদের প্রতি সরকারের বিশেষ হস্তক্ষেপ একান্ত জরুরী।


সমস্ত প্রশংসা মুবারক খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য; যিনি সকল সার্বভৌম ক্ষমতার মালিক। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, হযরত নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, হযরত রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম

গত কয়েকদিন আগে বাংলাদেশের বাগেরহাটে আইএস পরিচয় দিয়ে কলেজ শিক্ষক ও এনজিও কর্মকর্তাদের দেশত্যাগ ও শিরশ্ছেদের হুমকি দেওয়ায় গ্রেফতার হয়েছে অসিত বরণ দাস (৫৫) নামক এক হিন্দু ব্যক্তি।


(http://goo.gl/TY9qui) আচ্ছা, ‍মুসলিম নাম ব্যবহার করে হিন্দুরা যে জঙ্গী হামলা করার হুমকি দেয়, এটা কি নতুন কিছু ? কখনই না। আসুন ভারতে এ ধরনের কয়েকটি ঘটনা দেখি- ২০১৪ সালের নভেম্বর ও ডিসেম্বর মাসে ৪টি ঘটনা- ১) পশ্চিমবঙ্গের খাগড়াগড়কান্ড নিয়ে মিডিয়ায় মুসলিম

সিলেটের তারাপুরে ৩ হাজার পরিবারকে বাস্তুচ্যূত করা হবে কারণ তারা রাগীব আলীর থেকে জমি ক্রয় করেছিলো।


খুব ভালো কথা। কিন্তু রাগীব আলী পঙ্কজ কুমার গুপ্তের কাছ থেকে যে জমি নিয়েছিলো সেই পঙ্কজ কুমার এত বড় জমি পেলো কোথায় ??? ইতিহাস বলে- পঙ্কজ কুমারের পূর্বপুরুষ ১৮৯২ সালে এই জমি ক্রয় করেছিলো এক ব্রিটিশ ব্যবসায়ীর পুত্র’র কাছ থেকে। ঐ

রাগীব আলী দোষী, কিন্তু বৈকুণ্ঠ চন্দ্র গুপ্ত আর সি কে হাডসন কি ভালো??


পত্রপত্রিকাগুলো যে কত বড় দালাল তা পড়লে খুব ভালোভাবে বোঝা যায়। রাগীব আলীর ঘটনা নিয়ে পত্রিকাগুলো লিখেছে তারাপুর চা বাগানের মালিক ছিলো সি কে হাডসন নামক এক ব্রিটিশ ব্যবসায়ী। অথচ ইতিহাস ঘেটে দেখি, সি কে হাডসন ছিলো সিলেটের (তৎকালীন আসামের অন্তর্ভূক্ত)

মুসলমানরা ইংরেজি গ্রহণ করেনি বলে পিছিয়ে পড়েছিল: প্রকৃত ইতিহাস কি এতোই সোজা?


বলা বাহুল্য, বর্তমান পাঠ্যপুস্তকে এরকম ধারণাই আমাদেরকে দেয়া হয়ে থাকে। বলা হয়ে থাকে, হিন্দুরা ইংরেজি শিক্ষা গ্রহণ করেছিল বলে তারা এতোটা এগিয়ে গিয়েছিল ইত্যাদি। এর কারণ, ব্রিটিশ আমলের প্রথম ১০০ বছরের ইতিহাস আমাদের পাঠ্যপুস্তকে চেপে যাওয়া হয়। যেহেতু ঐ ইতিহাস আলোচনা

অতিসত্ত্বর দেবোত্তর সম্পতি আইন বাতিল করা হউক! দেবোত্তর সম্পত্তি ও অর্পিত সম্পত্তি আইন কি বাংলায় আরেকবার চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত ফিরিয়ে আনবে?


বর্তমানে বাংলাদেশে এক প্রকার চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত আইন পাশ হয়েছে। ‘অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যার্পন আইন’ ও ‘দেবোত্তর সম্পত্তি আইন’ হচ্ছে সেই ঐতিহাসিক চিরস্থায়ী বন্দোবস্তের বর্তমান সংষ্করণ। এই দেবোত্তর সম্পত্তি আইন কতোটা ভয়াবহ তা এদেশের মানুষ এখনো আঁচ করতে পারেনি। না পারারই কথা। কারণ

পবিত্র কুরবানীর পশুর খামার করুন; কুমির, সাপ, কচ্ছপের খামার নয়


আমাদের দেশে সবচেয়ে বেশি চাহিদা ও সবচাইতে বেশি লাভবান হলো গরু, ছাগল, মহিষ, ভেড়া ইত্যাদির লালন-পালন। যুগযুগ ধরে আমাদের দেশের মানুষও এসব প্রাণী লালন-পালনে অভ্যস্ত ও অভিজ্ঞ। আমাদের দেশের অর্থনীতিতেও এসব প্রাণী থেকে প্রাপ্ত দুধ, গোশত, চামড়া, পশম ইত্যাদির অবদান অনেক

এইবারের ঈদ নাটক- “বাংলাদেশে আইএস থাকতেই হপে”


ঈদ নাটক- “বাংলাদেশে আইএস থাকতেই হপে” প্রযোজক- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নির্দেশক- সিআইএ সহকারী নির্দেশক- র মুল অভিনেতা- অজ্ঞাত তবে মুসলমান কৌতুক অভিনেতা- কতিপয় সাংবাদিক ক্যামেরা- হলুদ মিডিয়া পরিবেশক- সকল টিভি চ্যানেল এবং নিউজ মিডিয়া বিঃদ্রঃ- প্রথম আলু যেই টুইটার অ্যাকাউন্ট এর রেফারেন্স

দেশদ্রোহী হিন্দু সমাজ


হিন্দুদের অবস্থান ক্লিয়ার । তারা চায় বাংলাদেশে আইএস আছে সেটা প্রমাণ করতে এবং তার মাধ্যমে বাংলাদেশে বিদেশী শক্তির আগমণ ঘটাতে। আমি বলবো, ৫-১০ জন মারা গেলে যদি বিদেশী শক্তির হস্তক্ষেপ লাগে, তবে মুম্বাই হামলার সময় যখন ১৭৫ জন মারা গেলো তখন