Posts Tagged ‘বাল্য বিবাহ’

সম্মানিত শরীয়ত মুতাবিক বাল্য বিবাহ খাস সুন্নত উনার অন্তর্ভুক্ত, বাল্য বিবাহের বিরোধীতা করা হারাম ও কাট্টা কুফরীর অন্তর্ভুক্ত


উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার ৬ বছর বয়স মুবারকে আক্বদ বা নিসবাতুল আযীম মুবারক হওয়ার বিষয়টি যারা অস্বীকার করে তারা অসংখ্য ছহীহ পবিত্র হাদীছ শরীফ অস্বীকার করার কারণে কাফির! উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা

বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে বলা, বাল্যবিবাহকে কটাক্ষ করা এবং বাল্যবিবাহ রোধে আইন করা কাট্টা কুফরীর অন্তর্ভুক্ত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “একমাত্র মনোনীত, পরিপূর্ণ, সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত, অপরিবর্তনীয় সম্মানিত দ্বীন হচ্ছেন পবিত্র ইসলাম।” সুবহানাল্লাহ! পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা

খাছ সুন্নত ‘বাল্যবিবাহ’কে ইহানত করার লক্ষ্যে যে সমস্ত কারণ দেখায় তা সম্পূর্ণ মিথ্যা


ব্রিটিশ ব্রিটিশ কুচক্রী উদ্দেশ্যমূলকভাবে ‘বাল্যবিবাহ’ নিরোধ আইন প্রনয়ন করেছে। খাছ সুন্নত বাল্যবিবাহকে ইহানত করার লক্ষ্যে সাধারণ মানুষকে যেসব কথা বলে মানুষের মগজকে ধোলাই করার চেষ্টা করছে দুনিয়াবী দৃষ্টিকোণ থেকেও তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, যা একটু চিন্তা করলেই বুঝা যায়। ইসলামবিদ্বেষীরা বাল্যবিবাহ না

বাল্যবিবাহ সামাজিক সমস্যা নয়, সামাজিক বিরাট সমাধান


একটি পত্রিকায় “কন্যাশিশুর বিয়ে” শীর্ষক এক প্রবন্ধে একটি নির্বোধ মহিলার হাস্যকর উদ্ধৃতি দেখলাম। তার মতে, এই বাল্যবিবাহ হলো সামাজিক একটি বিরাট সমস্যা এবং অকালে শিশুকে বিয়ে দেয়ার কারণ হলো- শিক্ষা সচেতনতার অভাব, বাবা-মায়ের অসচ্ছলতা এবং কন্যাদের প্রতি পুরুষের দৃষ্টি ভঙ্গি দায়ী।

বাল্যবিবাহ বিরোধী আইন মানা মুসলমানদের জন্য কাট্টা কুফরীর অন্তর্ভুক্ত।


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনাদের বিরোধিতা করতেই ব্রিটিশরা বাল্যবিবাহ বিরোধী আইন করে; যা মানা মুসলমানদের জন্য কাট্টা কুফরীর অন্তর্ভুক্ত। ব্রিটিশ সরকার উদ্দেশ্যমূলকভাবেই মেয়েদের বিয়ে বসা বা বিয়ে দেয়ার জন্য কমপক্ষে

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও উম্মুল মুমিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনাদের বিরোধিতা করতেই বৃটিশরা বাল্যবিবাহ বিরোধী আইন করে


ব্রিটিশ সরকার উদ্দেশ্যমূলকভাবেই মেয়েদের বিয়ে বসা বা বিয়ে দেয়ার জন্য কমপক্ষে ১৮ বছর বয়স হওয়ার আইন বা শর্ত করে দেয় এবং ১৮ বছর বয়সের নিচে কোনো মেয়েকে বিয়ে দেয়া, বিয়ে করা বা কোনো মেয়ের জন্য বিয়ে বসা দণ্ডনীয় অপরাধ বলে সাব্যস্ত

এর পরেও কি বাঙ্গালী বাল্যবিবাহের মর্ম উপলদ্ধি করবনা? পর্দা পালনের গুরুত্ব বুঝবেনা?


বিয়ের ৩ দিন আগে ১৫ বছরের কিশোরীকে সম্ভ্রমহানী: কিশোরীর আত্মহত্যা বসতঘরের পেছনে ঝুলছে কিশোরীর লাশ। দূরে বসে বিলাপ করছেন কিশোরীর মা। তার আহাজারিতে পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে। নিজের মাথায় আঘাত করে কান্নার সুরে চিৎকার করে তিনি বলছেন, ‘মোর মাইডারে ও বাঁচতে দেলো