Posts Tagged ‘রাজারবাগী পীর’

রাজারবাগ শরীফের পক্ষ থেকে পেশাদার মিথ্যাবাদী এনায়েতুল্লাহ আব্বাসীর বাহাছের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ


সম্প্রতি পবিত্র রাজারবাগ দরবার শরীফ ও সম্মানিত রাজারবাগ দরবার শরীফের মহান মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার বিরুদ্ধে জৈনপুরী সিলসিলার অনুসারী দাবীদার এনায়েতুল্লাহ আব্বাসীকে বিভিন্ন অপপ্রচার ও ডাহা মিথ্যা ও মনগড়া বক্তব্য প্রদান করতে দেখা যায়, যা সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচিত হয়। এনায়েতুল্লাহ

বর্তমান জমিনে একমাত্র ব্যক্তিত্ব–


বর্তমান জমিনে একমাত্র ব্যক্তিত্ব– ১) যিনি কুরআন শরীফ হাফিজ তো অবশ্যই এর সাথে শতাধিক তাফসীর উনার ঠোটস্থ। ২) লক্ষ লক্ষ হাদীছ শরীফ উনার শানে নূযূল, সনদ, মতন , শরাহসহ হাফিজ। ৩) ইজমা শরীফ ও ক্বিয়াস শরীফ উনার শত শত গ্রন্থের যিনি

রাজারবাগ দরবার শরীফ থেকে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার স্বার্থে পরিচালিত কার্যক্রমের কিছু নমুনা


সাম্রাজ্যবাদীরা গণতন্ত্রের মত এক অর্থহীন- অচল- অকার্যকর পদ্ধতি বিশ্বে চাপিয়ে দিয়ে এবং তার মাধ্যমে নিজেদের সুবিধা আদায়ে সহায়ক শাসক শ্রেণী বসিয়ে বিশ্ব নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছে। এইসব শাসক শ্রেণী কেবল ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য সাম্রাজ্যবাদীদের সুবিধাটুকুই দেখে প্রকারান্তরে বঞ্চিত থাকে আপামর জনগোষ্ঠী।

“আস সাফফাহ” লক্বব বা উপাধী ব্যবহার করা প্রসঙ্গে মিথ্যাবাদীদের জবাব


“আস সাফফাহ” মুবারক লক্ববের প্রায় ৩০ প্রকার অর্থ বিভিন্ন অভিধানে উল্লেখ আছে। মিথ্যা প্রোপাগান্ডাকারীরা উক্ত ৩০ প্রকারের অন্য অর্থগুলো উদ্দেশ্যে প্রোনদিত ভাবে আড়াল করে গেছে। কিন্তু সে আড়াল করলে কি হবে তার মিথ্যার মুখোশ উম্মোচন করার লক্ষ্যে ইনশাআল্লাহ এই লক্বব মুবারকের

দেইল্লা রাজাকারের ফাঁসির রায়ের জন্য কী দেশবাসী দায়ী? তাহলে হরতাল দিয়ে দেশবাসীকে জিম্মি করে রাখা হচ্ছে কেন?


সাধারণ মানুষ থেকে পুলিশ কী দেইল্লা রাজাকারের ফাঁসির রায়ের জন্য দায়ী? তাহলে তাদেরকে জামাতীরা হত্যা করছে কেন? জামাতীরা কী জানে না- পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “একজনের গুনাহর জন্য অপরজনকে দায়ী করা চলবে না।” নির্বিচারে সহিংসতা চালানোর কারণে

১৯শে শাওয়াল শরীফ: একটি জান্নাতী বাগানের সূচনালগ্নের দিবস


১৯শে শাওয়াল শরীফ ১৪০৮ হিজরী। আনুষ্ঠানিকভাবে সূচনা হয়ে গেলো এক জান্নাতী বাগানের। সেই বাগান আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠা করলেন পঞ্চদশ হিজরী শতকের মহান মুজাদ্দিদ, যামানার খাছ লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, গাউছুল আ’যম, হাকিমুল হাদীছ, জাব্বারিউল আউয়াল,

মুসলমানদের হজ্জ নষ্টকরণে নিরাপত্তার নামে সিসি ক্যামেরার ব্যবহার! ইহুদী-খ্রিস্টানদের গভীর ষড়যন্ত্র


হজ্জকে বলা হয় জামিউল ইবাদত। সামর্থ্যবানদের উপর জীবনে একবার হজ্জ করা ফরয। মুসলমানদের চিরশত্রু ইহুদী-খ্রিস্টানদের চক্রান্ত এখানেও থেমে নেই। কালামুল্লাহ শরীফ-এ খালিক্ব, মালিক, রব মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেন, “আহলে কিতাবদের (ইহুদী-খ্রিস্টানদের) অধিকাংশ চায় কি করে মুসলমানদের ঈমান আনার পর আবার

মুসলমানগণের হজ্জ বাতিল করার কি অধিকার আছে ইহুদী নির্ভর সউদী সরকারের


  যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ-এ ইরশাদ করেন, “আর আপনি তাদেরকে যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার বিশেষ দিনগুলো সম্পর্কে জানিয়ে দিন। নিশ্চয়ই এর মধ্যে প্রত্যেক শোকরগুজার ও ধের্যশীল বান্দার জন্য বিশেষ নির্দশন

খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, আওলাদুর রসূল খলীফাতুল উমাম হযরত শাহজাদা হুযুর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনি হচ্ছেন নিয়ামত লাভের বিশেষ লক্ষ্যস্থল


খাযীনাতুর রহমাহ মাখযানুল মা’রিফাহ, খলীফাতুল উমাম, আওলাদে রসূল হযরত শাহযাদা হুযূর ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার শান-মান, ফাযায়িল ফযীলত ও বুযুর্গী বিরল, বেমেছাল ও অবর্ণনীয় যা কুল-কায়িনাতের জিন ও ইনসানের পক্ষে বর্ণনা করা অভাবনীয়, অকল্পনীয় ও দুষ্কর বিষয়ের অন্তর্ভুক্ত। তবে মহান আল্লাহ

রাজারবাগ শরীফ-এর সাইয়্যিদুনা হযরত শাহযাদা ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনাকে ‘শাহযাদা ক্বিবলা’ বলার তাৎপর্য


‘শাহযাদাহ’ এটি মূল নাম হিসেবে ব্যবহৃত হয় না। বরং ছিফত বা গুণবাচক নাম বা উপাধি হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। অনেক সময় ব্যক্তির মর্যাদার কারণে উনার মূল নাম বা ডাক নাম নিয়ে সম্বোধন না করে উনার বিশেষ কোনো লক্বব বা উপাধি দ্বারা

তারাবীহ দ্রুত পড়া প্রসঙ্গে ?


অনেকে মনে করে যে, ‘তারাবীহ’ অর্থ তাড়াতাড়ি। তাই তারাবীহর নামায তাড়াতাড়ি পড়তে হয়। বাস্তবিক সমাজে এটাই পরিলক্ষিত হচ্ছে যে, সূরা তারাবীহ হোক আর খতম তারাবীহ হোক উভয় প্রকার জামায়াতে ইমাম বা হাফিয ছাহেবরা দ্রুত সূরা-ক্বিরায়াত পাঠ করে নামায শেষ করেন। বিশেষ

পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে জিন-ইনসানতো রোযা রাখেই এমনকি পশু-পাখি ও সমুদ্রের মাছও রোযা রাখে


শা’বান মাস মুসলমানগণের নিকট অত্যধিক সম্মানিত ও বরকতপূর্ণ মাস। হাদীছ শরীফ-এর কিতাবসমূহে শা’বান মাসের অনেক ফযীলত বর্ণনা করা হয়েছে। মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন, “শা’বান হলো