Posts Tagged ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম’

প্রসঙ্গ: রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম


সব প্রশংসা মুবারক খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য; যিনি সকল সার্বভৌম ক্ষমতার মালিক। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি

যারা সংবিধান থেকে ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম’ সরাতে চায়- তাদের জন্য অপেক্ষা করছে অত্যন্ত কঠিন আযাব-গযব


  সংবিধান থেকে যখন ‘বিসমিল্লাহ শরীফ ও মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস’ তুলে দেয়া হয়, মূলত তখন থেকেই ইসলামবিদ্বেষী চক্রগুলোর দুঃসাহস বেড়ে যায়। তখন থেকেই তারা মুসলমানদের বিরুদ্ধে, ইসলামের বিরুদ্ধে কোমর বেঁধে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত শুরু করে।

সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করতে বলা সুলতানা কামাল চক্রবর্তী শুধু বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের শত্রু নয় বরং বাংলাদেশের স্বাধীনতারও শত্রু


সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করতে বলেছে সুলতানা কামাল চক্রবর্তী। হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ও উপজাতিদের সাথে এক অনুষ্ঠানে সুলতানা কামাল বলে, “বাংলাদেশ যদি গণতান্ত্রিক হতে চায়, বহু ধর্মের মানুষের দেশ হতে চায়, তবে সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম থাকতে পারে না। যদি

বাংলাদেশের সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিতে আর মাত্র ২ দিন বাকি


বাংলাদেশের সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিতে আর মাত্র ২ দিন বাকি। তবে বাংলাদেশের মানুষ এখনও বিষয়টি নিয়ে কতটুকু সচেতন তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে। (http://goo.gl/fg7KdI) : অনেককে দেখলাম- তনু হত্যা ও ধর্ষণ নিয়ে স্ট্যাটাস দিচ্ছে, আশঙ্কা প্রকাশ করছে। এটাই স্বাভাবিক।

কবরে যখন জিজ্ঞেস করা হবে ” তোমার দ্বীন কি?” তখন কি জবাব দিবেন ? ” আমি জানিনা, আমি জানিনা???”


আজ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সংবিধান থেকে তুলে দেওয়া হচ্ছে — ব্যাংকের হাজার হাজার কোট টাকা লোপাট হয়ে গেছে — অপসংস্কৃতিতে সমাজ বিপর্যস্ত — কারো কোন প্রতিবাদ নাই— কিন্তু কেন ??? আপনি কি ভুলে গেছেন আপনায় মরতে হবে ? কবরে যখন জিজ্ঞেস করা

২৭ মার্চ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম তুলে আগেই যদি এই অবস্থা হয় , তুলে দিলে কি অবস্থা হবে ?


কলেজের ড্রেস কোডের নামে এবার মূসলিম মেয়েদের ফরজ হিজাব নিষিদ্ধ করার ধৃষ্টতা দেখালো খোদ ঢাকার সুপরিচিত সরকারী মহিলা কলেজ, সরকারী বদরুন্নেসা মহিলা কলেজে। কলেজের নোটিশে বলা হয়েছে, নিজ নিজ কোর্সের ড্রেস কোড মানতে হবে, কোন ধরণের হিজাব বা বোরকা পরিধান করা

আপনি কি চান ধর্মনিরপেক্ষ হয়ে তুরস্কের মত বাংলাদেশে ইসলামের নাম-নিশানা মুছে যাক।


১৯২৮ সালে তুরষ্কে এভাবেই ধর্মনিরপেক্ষতা জারি করেছিলো ইসলামবিদ্বেষী কামাল লানতুল্লাহি আলাইহি। যার ফলগুলো কেমন হয়েছিলো দেখুন- ১) শিশুদের ইসলামী শিক্ষা নিষিদ্ধ করা হয়। ২) ধর্ম মন্ত্রণালয়, মাদরাসা-মসজিদ বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং হজ্জ-ওমরা যাত্রা নিষিদ্ধ করা হয়। ৩) বড় বড় মসজিদগুলোতে

আপনি কি চান ধর্মনিরপেক্ষ হয়ে তুরস্কের মত বাংলাদেশে ইসলামের নাম-নিশানা মুছে যাক।


১৯২৮ সালে তুরষ্কে এভাবেই ধর্মনিরপেক্ষতা জারি করেছিলো ইসলামবিদ্বেষী কামাল লানতুল্লাহি আলাইহি। যার ফলগুলো কেমন হয়েছিলো দেখুন- ১) শিশুদের ইসলামী শিক্ষা নিষিদ্ধ করা হয়। ২) ধর্ম মন্ত্রণালয়, মাদরাসা-মসজিদ বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং হজ্জ-ওমরা যাত্রা নিষিদ্ধ করা হয়। ৩) বড় বড় মসজিদগুলোতে

সংবিধানে “রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম” কেন প্রয়োজন?


অনেকেই হয়তো জানেন, একটা সময় তুরস্কে আরবীতে আযান দেয়া নিষিদ্ধ ছিল। এই আইনটা জারী করার পূর্বে সবার আগে কিন্তু ঐদেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম তুলে দিতে হয়েছিল। এখন বুঝতে পারছেন সমস্যাটা আসলে কোথায়? বাংলাদেশে এখনো বিটিভি কিংবা বেতারে নামাজের ওয়াক্তে ৫ বার আযান

মুসলমানগণ সচেতন হউন


রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম থাকবে নাকি থাকবে না? এ নিয়ে আগামী ২৭ মার্চ উচ্চ আদালতে একটি রুলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। খবরটি কারো না জানার কথা নয়, তবুও একটা লিংক দেয়া হলো বিস্তারিত জানার জন্য- খবর: http://www.ittefaq.com.bd/print-edition/first-page/2016/03/01/105340.html এখন প্রশ্ন হচ্ছে- ১. রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম যারা

সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বহাল চাই


সংবিধান সমুন্নত সংগ্রামী আইনজীবি পরিষদের উদ্যোগে আজ বিকাল ৩ ঘটিকায় সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের সফিউর রহমান মিলনায়তনে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম অপরিবর্তীত রাখার অপরিহার্য্যতা শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় সভায় বক্তারা ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত এদেশে দ্বীন ইসলামকে দেশের রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে

যে যুক্তি দেখিয়ে—রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম—বাতিল করার জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে সেই একই যুক্তি দেখিয়ে কিন্তু—রাষ্ট্রভাষা বাংলা—ও বাতিল করে দেয়া যায়


দেশে মুসলিম ছাড়াও অন্য ধর্মের লোক যেমন আছে তেমনি বাঙালী ছাড়াও অন্য জাতিগোষ্টীর লোকও তেমনি আছে। চাকমা-মারমা-সাওতাল-বিহারীসহ যারা অন্য ভাষায় কথা বলে তাদের অধিকারের কথা কেউ বলছে না কেন? রাষ্ট্রের কোন ধর্ম থাকে না, ধর্ম থাকে ব্যক্তির—এইটা যদি যুক্তি হয় তাহলে