নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশকারী, কটাক্ষকারী, অবমাননাকারীদেরকে শরঈ শাস্তি মৃত্যুদন্ড প্রদান


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্পর্কে, উনার সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম অর্থাৎ উনার সম্মানিত আব্বা-আম্মা আলাইহিমাস সালাম উনাদের সম্পর্কে, উনার সম্মানিতা আওয়াজে মুত্বহহারাত হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সম্পর্কে এবং উনার সম্মানিত আওলাদ 

বিলাদত মুবারক রৌশন আলোকিত ধরা…. 🌿


শানে রাসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম 🌷 খোদার নিয়ামত তাশরীফানে তামাম আলম💦 বিলাদত মুবারক রৌশন আলোকিত ধরা…. 🌿 কায়েনাত মাঝে খুশির ফুয়ারা ❄ এমনি আনন্দে খোদ আরশ আত্মহারা🌈 কে এলেন কে এলেন খলীফাতুল উমাম🇧🇩 ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাশরীফ নিয়ে ধরাতে🌦 

জাহান্নামী ৭২ দল এবং নাজাতপ্রাপ্ত ১ দল!


জাহান্নামী ৭২ দল এবং নাজাতপ্রাপ্ত ১ দল! নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, আমার উম্মত ৭৩ দলে বিভক্ত হবে। ১টি ব্যতীত ৭২টি দলই জাহান্নামী হবে। (তিরমিজী শরীফ) উক্ত ৭২টি জাহান্নামী ও পথভ্রষ্ট দল হচ্ছে 

পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত হয়েছে, বিধর্মীরা বিভ্রান্ত এবং পথভ্রষ্ট!


পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত হয়েছে, বিধর্মীরা বিভ্রান্ত এবং পথভ্রষ্ট! আমরা মুসলমানরা প্রতিদিন বিতরসহ পাঁচ ওয়াক্ত নামাযে কমপক্ষে ৩২বার পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ পাঠ করি এবং পবিত্র ঈসালে সওয়াবসহ আরো অনেক আমলে আমরা পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ পাঠ করি। 

সূত্রপাত হাদিয়া


সূত্রপাত হাদিয়া : আমার পরিচিত ব্যবসায়ী যিনি একসময় ঢাকার কর্ণফুলী গার্ডেন সিটি তে বুরকার ব্যবসা করতেন “টুটুল ভাই” ! তিনি কিছুদিন পূর্বে আমাকে মেহেরপুরের আম সম্পর্কে জানালেন আমিও উনাকে ১০/২০ কেজি আমের খরচ সহ মূল্য জানাতে বললাম ! উনি জানালেন এবং 

স্মরণে মালিক


স্মরণে মালিক স্বাদ পাইনা পাইনি বহুকাল গুলোকে খুঁজিয়া ফিরি শেষ বিকাল .. অভ্যন্তরীণ রাহিত্য তার তৃষ্ণার্ত প্রকাশ বকুল কিংবা বেলির সুভাষ … অবসানে রয় জিকিরে ঐশী এহসাস যন্ত্রের উপলব্ধিতে থাকেনা ইলাহী স্বাদ… ধ্যান তাঁরই খুঁজিয়াছ যারে পর্বত হেরা থেকে কাল আষাঢ়ে 

সুমহান মহাপবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার ৭, ৮, ১১, ১২, ১৩, ১৪ এবং ১৬ তারিখ সম্মানিত আইয়্যামুল্লাহ শরীফ উনাদের


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! সুমহান মহাপবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার ৭, ৮, 

সূত্রপাত হাদিয়া


সূত্রপাত হাদিয়া : আমার পরিচিত ব্যবসায়ী যিনি একসময় ঢাকার কর্ণফুলী গার্ডেন সিটি তে বুরকার ব্যবসা করতেন “টুটুল ভাই” ! তিনি কিছুদিন পূর্বে আমাকে মেহেরপুরের আম সম্পর্কে জানালেন আমিও উনাকে ১০/২০ কেজি আমের খরচ সহ মূল্য জানাতে বললাম ! উনি জানালেন এবং 

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ২১শে শাওওয়াল শরীফ। যা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বিশ্ব বাল্যবিবাহ দিবস হিসেবে মশহূর। সুবহানাল্লাহ!


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার কাছ থেকে তোমরা ইলম অর্জন করো।” সুবহানাল্লাহ! আজ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ২১শে শাওওয়াল শরীফ। যা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বিশ্ব বাল্যবিবাহ 

সুমহান বরকতময় মহাপবিত্র ২০শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আল খ্বমিসাহ আলাইহাস সালাম উনার


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা অন্য কোনো নারীদের মত নন।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বরকতময় মহাপবিত্র ২০শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আল খ্বমিসাহ আলাইহাস সালাম উনার মহাপবিত্র বিলাদতী 

সুমহান বরকতময় মহাপবিত্র ১৯শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যেই বিশেষ দিনটি হলো আখাছ্ছুল খাছ হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি তাদেরকে (উম্মাহকে) আমার বিশেষ বিশেষ দিনগুলো স্মরণ করিয়ে দিন।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বরকতময় মহাপবিত্র ১৯শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যেই বিশেষ দিনটি হলো আখাছ্ছুল খাছ হযরত আহলু বাইত 

মহাসম্মানিত-মহাপবিত্র পারিবারিক তা’লীম মুবারক


মহাসম্মানিত-মহাপবিত্র পারিবারিক তা’লীম মুবারক (১৯ শাওওয়াল শরীফ-২২ শাওওয়াল শরীফ) পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে সহজ করেই মহান আল্লাহপাক যিনি খালিক্ব, মালিক, রব তিনি এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূরপাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা হাদীয়া মুবারক করেছেন। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ 

ছোঁয়াচে বিশ্বাস করে কাতারে ফাঁক রাখলে কুফরী হবে। কারণ সম্মানিত ইসলামী শরীয়তে ছোঁয়াচে রোগ বলতে কোন রোগ নেই।


নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা কাতারে পরস্পরে মিশে দাঁড়াও। দুই কাতারের মাঝে কিছু ফাঁক রাখ এবং কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়াও। জামায়াতে নামায আদায়ের সময় কাতার সোজা করা ও ফাঁক বন্ধ করা ওয়াজিব।