لِيَعْبُدُوْنِ (লিইয়া’বুদূন) থেকে لِيُصَلُّوْنِ (লিইউছল্লূন) পর্যন্ত ৮টি মাক্বাম মুবারক উনাদের বর্ণনা


আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুত্বহ্হার, মুত্বহহির, আছ ছমাদ, মুজাদিদ্দে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ১৪৪১ হিজরী শরীফ উনার ১৫ই যিলহজ্জ শরীফ লাইলাতুল খ¦মীস শরীফ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ফালইয়াফরহূ শরীফ সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মাহফিল মুবারক-এ ইরশাদ মুবারক করেন, “لِيَعْبُدُوْنِ (লিইয়া’বুদূন) থেকে لِيُصَلُّوْنِ (লিইউছল্লূন) পর্যন্ত ৮টি মাক্বাম মুবারক রয়েছেন। সেগুলো হচ্ছেন-
১. لِيَعْبُدُوْنِ – (লিইয়া’বুদূন) ইবাদতের মাক্বাম। তারপর
২. لِيُحْسِنُوْنِ – (লিইউহ্সিনূন) ইহ্সানের মাক্বাম। তারপর
৩. لِيَقْرَبُوْنِ – (লিইয়াক্ব্রবূন) কুরবতের মাক্বাম। তারপর
৪. لِيَعْرِفُوْنِ – (লিইয়া’রিফূন) মা’রেফতের মাক্বাম। তারপর
৫. لِيُحِبُّوْنِ – (লিইউহিব্বূন) মুহব্বতের মাক্বাম। তারপর
৬. لِيَشْرَحُوْنِ – (লিইয়াশ্রহূন) শরহে ছুদূরের মাক্বাম। তারপর
৭. لِيَفْرَحُوْنِ – (লিইয়াফ্রহূন) ফালইয়াফরহূ শরীফ উনার মাক্বাম। তারপর
৮. لِيُصَلُّوْنِ – (লিইউছল্লূন) সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার মাক্বাম।
ইবাদত বন্দেগী করতে করতে ইহ্সানের দরজায় পৌঁছবে। ইহ্সানের দরজা থেকে কুরবত হাছিল করবে, কুরবতের থেকে মা’রেফাত হাছিল করবে, মা’রেফাত থেকে মুহব্বত হাছিল করবে, মুহব্বত থেকে তার শরহে ছুদূর হবে, শরহে ছুদূরের কারণে সে খুশি প্রকাশ করবে। এবং তখনই তার পক্ষে لِيُصَلُّوْنِ (লিইউছল্লূন) এর মাক্বাম অর্জন করা সম্ভব হবে।” সুবহানা মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!
পৃথিবীর ইতিহাসে আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুত্বহ্হার, মুত্বহহির, আছ ছমাদ, মুজাদিদ্দে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই এই ৮টি মাক্বাম মুবারক প্রকাশ করেন। ইতিপূর্বে আর কেউ এই ৮টি মাক্বাম মুবারক সম্পর্কে জানতো না’; হাছিল করার তো প্রশ্নোই উঠে না।
তাহলে যিনি খ¦লিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার মহাসম্মানিত হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অর্থাৎ উনাদের সাথে আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, ক্বায়িম মাক্বামে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, রহমতুল্লিল আলামীন, মুত্বহ্হার, মুত্বহ্হির, আছ ছমাদ, মুজাদ্দিদে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কত বেমেছাল সম্মানিত তা‘য়াল্লুক্ব-নিসবত মুবারক, সেটা সমস্ত জিন-ইনসান, তামাম কায়িনাতবাসী সকলের চিন্তা ও কল্পনার উর্ধ্বে। (সুবহানা মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!)
এক কথায় তিনি শুধু মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং উনার মহাসম্মানিত মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নন; এছাড়া সমস্ত শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনাদের অধিকারী হচ্ছেন তিনি। (সুবহানা মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!)
মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে হাক্বীক্বী ছহীহ সমঝ, বিশুদ্ধ আক্বীদাহ ও হুসনে যন মুবারক দান করুন। আমীন!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]