কায়িনাতের বুকে এক অভূতপূর্ব তাজদীদ মুবারক: সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন ‘সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূর আলাইহিস সালাম’


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সম্মানিত ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন,
وَاِنِّـىْ زَوَّجْتُهُ ابْنَتَـىْ فَذٰلِكَ سَمَّاهُ اللهُ عِنْدَ الْـمَلَائِكَةِ ذَا النُّوْرِ وَسَـمَّاهُ فِى الْـجِنَانِ ذَا النُّوْرَيْنِ فَمَنْ شَتَمَ عُثْمَانَ عَلَيْهِ السَّلَامُ فَقَدْ شَتَمَنِـىْ.
অর্থ: “আর নিশ্চয়ই আমি আমার মহাসম্মানিতা দুইজন বানাত আলাইহিমাস সালাম উনাদেরকে সাইয়্যিদুনা হযরত উছমান ইবনে আফফান আলাইহিস সালাম উনার সাথে নিসবতে আযীম শরীফ দিয়েছি। তাই মহান আল্লাহ পাক তিনি হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদের নিকট হযরত উছমান আলাইহিস সালাম উনার সম্মানিত ও পবিত্র ইসম বানাম মুবারক রেখেছেন ‘যুন নূর’ এবং সম্মানিত জান্নাত মুবারক-এ উনার সম্মানিত ও পবিত্র ইসম বা নাম মুবারক রেখেছেন ‘যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম’। সুবহানাল্লাহ! তাই যে ব্যক্তি উনাকে তিরস্কার করলো, সে মূলত আমাকেই তিরস্কার করলো।” না‘ঊযুবিল্লাহ! (কানযুল উম্মাল ১৩/৫৩)
এ সম্পর্কে বিশ্বখ্যাত সীরত বিশারদ হাফিয আবুল ফিদা আল্লামা ইবনে কাছীর রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার বিশ্বখ্যাত কিতাব ‘আল বিদায়াহ ওয়ান নিহায়াহ’ উনার মধ্যে উল্লেখ করেন,
ثُـمَّ زَوَّجَهٗ بِاُخْتِهَا الْاُخْرٰى اُمَّ كُلْثُوْمٍ عَلَيْهَا السَّلَامُ بِنْتُ رَسُوْلِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَلِـهٰذَا كَانَ يُقَالُ لِعُثْمَانَ بْنِ عَفَّانَ عَلَيْهِ السَّلَامُ ذُو النُّوْرَيْنِ
অর্থ: “নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুছ ছানিয়াহ আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশ পাওয়ার পর উনার অপর বোন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুছ ছালিছাহ আলাইহাস সালাম উনাকে সাইয়্যিদুনা হযরত উছমান ইবনে আফ্ফান আলাইহিস সালাম উনার সাথে সম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ দেন। এ জন্য উনাকে ‘যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম’ বলা হয়।” সুবহানাল্লাহ!(আল বিদায়াহ ওয়ান নিহায়াহ ৩/৪১৯)
আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমামুল মুহাদ্দিছীন মিনাল আউওয়ালীন ইলাল আখিরীন মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিতা বানাতউম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুছ ছানিয়াহ আলাইহাস সালাম উনাকে এবং উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুছ ছালিছাহ আলাইহাস সালাম উনাকে অর্থাৎ উনাদের দুইজনকে সম্মানিতনিসবতে আযীম শরীফ করার কারণে তিনি হচ্ছেন ‘যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম তথা দুই মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র নূর মুবারক উনাদের মালিক।’ সুবহানাল্লাহ! অনুরূপভাবে সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ ইবনে রবী’ আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন ‘যুন নূর আলাইহিস সালাম তথা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র এক নূর মুবারক উনার মালিক’। সুবহানাল্লাহ! কেননা তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার একজন মহাসম্মানিতা বানাত,উম্মু আবীহা, আন নূরুল ঊলা সাইয়্যিদাতুনা হযরত খইরু ওয়া আফদ্বলু বানাতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে সম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ করেছেন এবং উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দিয়েছেন। কাজেই উনাকে ‘সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূর আলাইহিস সালাম’ বলতে হবে। সুবহানাল্লাহ! একইভাবে উম্মু আবীহা আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনাকে সম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ করার কারণে এবং উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দেয়ার কারণে সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনিও হচ্ছেন ‘যুন নূর আলাইহিস সালাম’। সুবহানাল্লাহ! তবে তিনি যেহেতু কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম হিসেবে মাশহূর হয়ে গেছেন। তাই উনাকে সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম বলা হবে।” সুবহানাল্লাহ!
কাজেই আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমামুল মুহাদ্দিছীন মিনাল আউওয়ালীন ইলাল আখিরীন মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম উনার সম্মানিত তাজদীদ মুবারক অনুসারে সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ ইবনে রবী’ আলাইহিস সালাম উনাকে ‘সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূর আলাইহিস সালাম’ বলা হবে। সুবহানাল্লাহ!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে