কিছু হারাম ও সন্দেহজনক উপাদান সমূহের পরিচিতি


বাইল সল্ট (পিত্তরস): এটি লিভারের নীচে অবস্থিত গল ব্লাডারের মধ্য থেকে নিঃসৃত হয়। অনেক সময় ফুড ইন্ডাস্ট্রীটিতে খাদ্যকে ইমালসিফিকেশন করতে বাইল সল্ট ব্যবহার করে থাকে। এক্ষেত্রে তাদের উৎস হচ্ছে প্রাণীর বাইল সল্ট। বাইল সল্ট হালাল উপায়ে যবেহ করা প্রানীরটা ব্যবহার করলেও হালাল হবে না কারণ এটি খাওয়া জায়িয নেই। আর পাশ্চাত্যে শুকোরের বাইল ব্যবহার করে থাকে যা সম্পূর্ণরূপে হারাম।
পনির: যারা বিদেশ থেকে আসা পনির খেতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য রয়েছে সাবধান বাণী। আমাদের বাংলাদেশে পনির বানাতে লেবুর রস বা ইস্ট ব্যবহার করলেও বিদেশে কিন্তু তা হয় না। ওরা ব্যবহার করে রেনেট (জবহহবঃ). রেনেট একটা এনজাইম, যা প্রাণীর পেটের মধ্য থেকে সংগ্রহ করা হয়। (সাধারণত জঁসরহধহঃং সধসসধষং অর্থাৎ যে প্রাণীগুলো তৃণ থেকে শরীরের চাহিদা পূরণ করে, যেমন- গরু, মহিষ, শূকর, হরিণ ইত্যাদি থেকে নেয়া হয়)। তবে রেনেট দিয়ে বানানো পনির নিয়ে অনেক বিতর্ক বা মত রয়েছে।
* কারো ধারণা- প্রাণী হালাল হলেই রেনেট হালাল হবে, যবেহ হালাল হওয়া শর্ত নয়।
* কারো ধারণা- প্রাণী হালাল হলে প্রাণীটি মৃত হলেও রেনেট হালাল, যবেহ হালাল হওয়া শর্ত নয়।
* কারো ধারণা- রেনেট যেখান থেকেই সংগ্রহ করে ব্যবহার করা হোক না কেন, পনির হালাল।
* আর কারো ধারণা- প্রাণী হালাল হওয়াই কেবল শর্ত নয়, যবেহ হালাল হওয়াও শর্ত। প্রকৃতপক্ষে এটিই বিশুদ্ধ মত।
কিন্তু বাস্তব কথা হচ্ছে- কাফির দেশ থেকে আসা পনিরের মধ্যে এত সব বিতর্ক/মত লেখা থাকে না, রেনেটের উৎস উল্লেখ থাকে না। ফলে সন্দেহজনক জিনিস থেকে দূরে থাকতে হবে। এটাই তাকওয়া।
কোলেস্টেরল: এক ধরণের ফ্যাট এবং সবসময় প্রানীজ উৎস থেকেই হয়। কেবল হালালভাবে যবেহকৃত প্রাণীর হলে খাওয়ার উপযুক্ত হবে। সাধারণভাবে হারাম।
ডাইগ্লিসারাইড (উরমষুপবৎরফব): এক ধরণের ইমালসিফায়ার। প্রানীজ উৎস হলে নিশ্চিত হওয়া দরকার। সাধারণভাবে হারাম।
জিলাটিন (এবষধঃরহ, ঔবষষড় এবষধঃরহ): অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রানীজ উৎস এবং শুকোর। কোলাজেন থেকে তৈরি হলেও জিলাটিনের মধ্যে মূল বৈশিষ্ট্য উপস্থিত থাকে না বলে হালাল তবে নিশ্চিত শুকোরের উৎস হলে গ্রহন করা তাকওয়ার খেলাপ। যবেহকৃত হালাল প্রাণীর উৎস হলে নিশ্চিতভাবে হালাল।
গ্লিসারল (এষুপবৎড়ষ, এষুপবৎরহব): এটি প্রাণীর থেকেও হয় ভেষজ থেকেও হয়। প্রাণীর উৎসগুলো যথেস্ট সন্দেহজনক এবং ব্যবহার করা তাকওয়ার খিলাপ। তবে ভেষজ উৎসের গ্লিসারিন বাজারে পাওয়া যায়।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

One Comment

Leave a Reply

[fbls]
  1. মেঘমালা says:

    এ বিষয়ে কেউই সচেতন নয়। অথচ হালাল-হারাম নিয়ে সর্বোচ্চ সচেতনতা কাম্য।