কুরবানীর জবাই বিষয়ে ‘তোমরা’ গায়ে পড়ে ফিতনা করতে চাও কেন?


পবিত্র কুরবানী। এটা যেনতেন বিষয় নয়। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার অন্যতম শিয়ার বা নিদর্শন। মুসলমানদের মুসলমানিত্বের পরিচায়ক। এখানে কেন সরকার ও সরকারের এমপি-মন্ত্রীদের এত কথা। কুরবানীর পশু জবাইয়ের বিষয় নিয়ে কেন এত নিয়ম-নীতির বুলি আওড়ানো হচ্ছে। তোমরা যখন রাস্তা দখল করে মিছিল করো, শোভাযাত্রা করো, সমাবেশ করো তখন কোথায় থাকে তোমাদের নিয়ম-নীতি? বিধর্মী-অমুসলিম, মুশরিকরা যখন ঈদে মুসলমানদের বাড়ি ফেরার সময় রথযাত্রা করে রাস্তাঘাটে জ্যাম বাঁধিয়ে ফেলে, তখন কোথায় থাকে তোমাদের এসব বুলি? যখন মুশরিকগুলো ঢোল, তবলা নিয়ে অলিগলিগুলোকে মাথায় তুলে উদ্দাম নাচে তখন কেন মুখ দিয়ে কথা বেরোয় না?
ও বুঝেছি! এদেশের মুসলমানগণ সহজ সরল। কোনো একটা কথা দিয়ে বুঝ দিলেই হলো। ক্ষমতায় আসার আগে যেভাবে মিষ্টি-মধুর কথা দিয়ে বুলিয়েছো, এখনো সেই একই কথা চালিয়ে যাবে?
আর কত? আর কত ধোঁকাবাজি করবে? এবার থামো। একটু ভাবো- তোমাকেও মৃত্যুবরন করতে হবে, পরকাল তোমারও আছে। পবিত্র কুরবানীর হাট কমাবে, স্বাধীনভাবে পশু জবাইয়ে বাধা দিবে, চামড়া নিয়ে লুটপাট করবে- আবার পরকালে নাজাতও চাইবে। কখনোই নয়। এত সহজ নয়। এখনো সময় আছে খালিছ তওবা করে নাও। সামনে পবিত্র কুরবানী আসছে নিজে ও নিজের পরিবারের সবাইকে কুরবানীতে উৎসাহিত করো। রহমত, বরকত নিয়ে এই জীবন ও পরজীবনকে শান্তিময় করো। মহান আল্লাহ পাক তিনি কবুল করুন। আমীন।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]