খাবারে লুকিয়ে থাকা হারাম উপাদান


রেনেট বা রেনিন (Rennet or Rennin): সদ্য হত্যাকরা প্রানীর পেট থেকে রেনেট এনজাইম সংগ্রহ করা হয় যা পনির বানানোর কাজে ব্যবহার করা হয়। তবে পাশ্চ্যাতে রেনেট সংগ্রহ করা হয় শুকোরের পেট থেকে। এটি হারাম । এ কারণে বিদেশী (মুসলিম দেশ ছাড়া) পনির এবং পনির যুক্ত প্রোডাক্ট সাবধানতার সাথে গ্রহন করতে হবে।
রিবোফ্লেভিন (Riboflavin): এটি ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স এর একটি উপাদান। এর ই-কোড হচ্ছে: ই-১০১ (E-101)। দুটি পদ্ধতিতে রিবোফ্লেভিন প্রস্তুত হয়-
১) বায়ো-টেকনোলজিক্যাল প্রসেস: এখানে ব্যাক্টেরিয়া এবং ফাঙ্গাস ব্যবহৃত হয়। এখান থেকে নেয়া রিবোফ্লেভিন সন্দেহযুক্ত।
ব্যাক্টেরিয়া: Corynebacterium ammoniagenes and Bacillus subtilis.Micrococcus luteus (American Type Culture Collection strain number ATCC 49442),
ফাঙ্গাস : Ashbya gossypii, Candida famata and Candida flaveri
২) ক্যামিক্যাল প্রসেস: যা সিনথেটিক ভিটামিনের উৎস এবং হালাল।
ব্যবহার: ভিটামিন হিসেবে ওষুধ শিল্পে এবং কালার হিসেবে ফুড ইন্ডাস্ট্রিতে ব্যবহৃত হয়।
বর্ণনা: জীবাণু ব্যবহার করে বাণিজ্যিকভাবে রিবোফ্লেভিন উৎপাদনের জন্য বিভিন্ন বায়ো টেকনোলজিক্যাল পদ্ধতি তৈরি করা হয়েছে। পরিবর্তিত ব্যাক্টেরিয়াতে এত পরিমাণ রিবোফ্লেভিন পাওয়া যায় যে তাদের মাইসেলিয়ামগুলো লাল ও বাদামী বর্ণ ধারণ করে এবং তাদের ভেকুলসে রিবোফ্লেভিন ক্রিস্টাল জমে থাকে এবং এক সময় মাইসেলিয়াম ভেঙ্গে যায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে রিবোফ্লেভিন অতিরিক্ত প্রোডাকশন হয়। এরকম একটি ব্যাকটেরিয়া হচ্ছে মাইক্রোকক্কাস লুটিয়াস (Micrococcus luteus)। ( যা ATCC 49442 হিসেবেও পরিচিত)
সিদ্ধান্ত : ক্যামিক্যাল প্রসেসে উৎপাদিত রিবোফ্লেভিন ব্যবহার করা হালাল হবে। তবে এটা নিশ্চিত হওয়া কঠিন যে কোনটি ক্যামিক্যাল প্রসেসে উৎপাদিত আর কোনটি বায়ো টেকনোলজিক্যাল প্রসেসে উৎপাদিত। বায়ো টেকনোলজিক্যাল প্রসেসে উৎপাদিত রিবোফ্লেভিন কেবল তখনই হালাল হবে যখন তা জীবন রক্ষার প্রয়োজনে ব্যবহৃত হবে।
শিলেক (Shellac-904): এটি এক ধরণের রেসিন যা এক প্রকার পোকা গাছের মধ্যে নিঃসরণ করে থাকে। উপাদানটি হালাল।
সর্টেনিং (Shortening): কোন ফুড প্রোডাক্টের গায়ে সর্টেনিং লেখা থাকলে বোঝায় সেখানে তেল বা ফ্যাট আছে। তেলের উৎস সাধারণত উদ্ভিদ কিন্তু ফ্যাটের উৎস হয়ে থাকে প্রাণী। শুধু সর্টেনিং লেখা থাকলে এটা বোঝা দূরহ যে, সেখানে উদ্ভিদ তেল আছে না প্রাণীর ফ্যাট আছে। কোথাও ভেজিটেবল সর্টেনিং লেখা থাকলে বুঝতে হবে ভেজিটেবল তেল আছে ৮০-৯০% আর প্রাণীর ফ্যাট আছে ১০-২০%। অবশ্যই ১০০% ভেজিটেবল তেল লেখা থাকলেই কেবল হালাল হবে নতুবা নয়। যদি নিশ্চিত হালাল উৎস থেকে কেনা হয় তবে হালাল নতুবা সন্দেহজনক। আর বেকারি এবং ফুড ইন্ডাস্ট্রিজের পক্ষে সর্টেনিং এর উৎস হালাল না হারাম তা বোঝা কখনোই সম্ভব নয়।
সফট ড্রিঙ্কস (Soft Drinks): সফট ড্রিঙ্কসে সাধারণভাবে এলকোহল থাকেনা। কিন্তু যে ফ্লেভার ব্যবহার করা হয় সেখানে এলকোহল থাকে। আমাদের দেশীয় পণ্যের অনেকগুলোর মাঝেই এই এলকোহল আছে, কিন্তু ফ্লেভার বাইরের দেশ থেকে আমদানী করা হয় বলে অনেকই এ বিষয়ে অবগত নন।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]