গোসল করার মহাসম্মানিত সুন্নতী তারতীব


গোসল করার পূর্বে শরীরে যয়তুনের তেল দেয়া এবং না দেয়া উভয়টাই সম্মানিত সুন্নত মুবারক।
মাথায় তেল দেয়ার নিয়ম হলো-প্রথমে ডান ভ্রূতে তারপর বাম ভ্রূতে, তারপর ডান চোখের পাতায়, তারপর বাম চোখের পাতায়। অত:পর মাথার ডানদিক হতে প্রয়োজনমতো তেল দেয়া।
আর দাড়িতে তেল দেয়ার নিয়ম হলো- প্রথমে ডান ভ্রূতে তারপর বাম ভ্রূতে, তারপর নিম দাড়িতে। অত:পর দাড়ির ডান দিক হতে তেল দিতে হবে। তেল দেয়ার সময় সর্বক্ষেত্রে ডান দিকের অংশ আগে শুরু করতে হবে।

তেল ব্যবহার করলে,তেল লাগানো শেষ হলে মিসওয়াক করে নিতে হবে। অতঃপর ডান হাতে পানি নিয়ে দুই হাত কব্জি পর্যন্ত ধুয়ে নিতে হবে এবং শুধুমাত্র পা ধোয়া ছাড়া নামাযের ওযূর মতো ভালভাবে ওযূ করে নিতে হবে। রোযাদারকে গড়গড়ার সাথে কুলি না করে ও নাকে পানি দেয়ার সময় সতর্কতা বজায় রাখতে নাক নিচের দিকে নামিয়ে রাখতে হবে।
ওযূ করা শেষ হলে প্রথমে মাথার ডান পার্শ্বে পানি ঢেলে চুলের গোড়া ভালভাবে আঙ্গুল দিয়ে ভিজিয়ে নিতে হবে। পুরুষের বাবরী চুল থাকলে ও মহিলাদের বেনী বা খোঁপা থাকলে চুলের গোড়াতে ভালভাবে পানি পৌঁছাতে হবে। অত:পর মাথার বাম পার্শ্বে অত:পর মাথার মধ্যে ঢালবে। অতঃপর ডান কাঁধে, অতঃপর বাম কাঁধে তিনবার করে এমনভাবে পানি ঢালবে, যেনো সমস্ত শরীরে পানি পৌছে যায়।
নাভি, বগল ও অন্যান্য কুঁচকানো জায়গায় পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুতে হবে। হাতে আংটি থাকলে সেখানেও পানি পৌঁছাতে হবে। প্রত্যেক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ধৌত করার সময় ধুন্দলের ছোবড়া ব্যবহার করা এবং না করা উভয়টাই সম্মানিত সুন্নত মুবারক। আর পা ঘষার সময় ঝামা পাথর ব্যবহার করা এবং না করা উভয়টাই খাছ সুন্নত মুবারক। এক মুদ্দ (৬২৫ গ্রাম) পানি দিয়ে ওযূ এবং অনধিক পাঁচ মুদ্দ (৩১২৫ গ্রাম) বা প্রায় সোয়া তিন কেজি পানি দিয়ে গোসল শেষ করা সম্মানিত সুন্নত মুবারক। তবে প্রয়োজনে অতিরিক্ত পানি ব্যবহার করা সুন্নত মুবারক উনার খিলাফ হবে না,তবে অবশ্যই প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি অপচয় করা ঠিক হবেনা অর্থাৎ সুন্নত মুবারক হবেনা।
সমস্ত শরীরে পানি ঢালা শেষ হয়ে গেলে গোসলের জায়গা থেকে একটু সরে গিয়ে দুই পা ৩ বার ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে এবং সমস্ত শরীর মুছতে হবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]