চোর-ডাকাতও যেমন অপরাধী; ভাস্কর্য, স্ট্যাচু, ম্যানিকিনও তেমনি মূর্তি


যারা মানুষের মাল-সম্পদ লুণ্ঠন করে এমন অপরাধীদেরকে আমরা চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারী বিভিন্ন নামে অবহিত করে থাকি।
চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারী এইসব অপরাধীদের নামের মধ্যে ভিন্নতা লক্ষণীয়। কিন্তু অনিস্বীকার্য সত্য যে, এই অপরাধমূলক কর্মকা- প্রতিটির অর্থ কিন্তু একই সেটা হচ্ছে মানুষের মাল-সম্পদ লুণ্ঠন।
যিনি খালিক্ব যিনি মালিক যিনি রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, তোমরা মূর্তিসমূহের অপবিত্রতা থেকে নিজেদেরকে হিফাযত করো। (পবিত্র সূরা হজ্জ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-৩০)
পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ ঘোষিত অপবিত্র বস্তু মূর্তি যেটা মানুষের পবিত্র ঈমান উনাকে লুণ্ঠন করে, অপকৌশল প্রয়োগে ভাস্কর্য, স্ট্যাচু, ম্যানিকিন যেই নামই বলা হোক না কেন, এই অপবিত্র বস্তু প্রতিটিই মূর্তির অন্তর্গত। কারণ পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে দেখা যাচ্ছে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন মূর্তিসমূহের অপবিত্রতা (উবংবপৎধঃরড়হ ড়ভ ংঃধঃঁবং)।
এখানে সুস্পষ্টভাবে বুঝা যাচ্ছে মূর্তিসমূহ অর্থাৎ মূর্তির সমার্থক বস্তু যেমন-ভাস্কর্য, স্ট্যাচু, ম্যানিকিন ইত্যাদি বস্তুগুলি মূর্তির অন্তর্গত ।
এখন আমরা সহজ-সরল বাংলায় বলবো চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারী যেমনি অপরাধী! ভাস্কর্য, স্ট্যাচু, ম্যানিকিন তেমনি মূর্তি!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]