ছবি ও বেপর্দাই হচ্ছে বর্তমানে সমস্ত পাপ কাজের মূল উৎস


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবরক করেন, “আহলে কিতাব তথা ইহুদী-নাছারারা চেয়ে থাকে কিভাবে মুসলমানদেরকে ঈমান আনার পর কাফির বানানো যায়।” (পবিত্র সূরা বাক্বারা শরীফ)
বর্তমানে যামানায় সমস্ত পাপ কাজের মূল উৎস হচ্ছে ছবি এবং বেপর্দা। যে ব্যক্তি এ দুটোর মধ্যে মশগুল হয়ে যাবে, সে পবিত্র ঈমান এবং সম্মানিত ইসলাম থেকে দূরে সরে যাবে। তার দ্বারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার কাজ করা কস্মিনকালেও সম্ভব হবে না। মহান আল্লাহ পাক তিনি ক্ষমা করুন, খালিছ তওবা নছীব না হলে তার জন্য বেঈমান হয়ে মারা যাওয়াটাই স্বাভাবিক।
আর এজন্যই মুসলমানদের সবচেয়ে বড় শত্রু ইহুদী, মুশরিক, নাছারা ও কাফিরেরা মুসলমানদের মাঝে ছবি এবং বেপর্দাকে অত্যন্ত সুকৌশলে ঢুকিয়ে দিয়েছে। যেন মুসলমানেরা ঈমান এবং ইসলাম থেকে দূরে সরে গিয়ে কাফির হয়ে যায়। আর বাস্তবে আমরা তার প্রতিফলনে দেখতে পাচ্ছি যে, মুসলমানরা পবিত্র ঈমান এবং সম্মানিত ইসলাম থেকে দূরে সরে গেছে।
মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “ছবি এবং বেপর্দা যদি বন্ধ না করা হয়, তাহলে মুসলমানদের জন্য ঈমান এবং সম্মানিত ইসলাম উনার উপর থাকা অত্যন্ত কঠিন হয়ে যাবে।”
তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেছেন, “ছবি এবং বেপর্দা যদি বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে প্রায় সমস্ত পাপ কাজই বন্ধ হয়ে যাবে। ইনশাআল্লাহ! মানুষেরা সহজেই আল্লাহওয়ালা হতে পারবে।”
তাই সরকারের উচিত শতকরা প্রায় ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত এদেশ থেকে ছবি এবং বেপর্দা বন্ধ করে দেয়া এবং পর্দা করার জন্য বাধ্য করা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে