তিস্তায় পানি নেই, সীমান্তে শান্তি নেই; বাঙালিকে নেশাগ্রস্ত করে লটেপুটে খাচ্ছে ভারত


কোথাও বড় ধরনের চুরি, লুটপাট বা ডাকাতি তখনই হয় যখন সেখানকার অধিবাসীরা ঘুমিয়ে থাকে অথবা খেলায় বা কোনো নেশায় বেহুঁশ হয়ে থাকে। এমন অবস্থায় শুধু চুরি ডাকাতি নয়, ব্যাপক খুন-খারাবি কিংবা গণহত্যাও সংঘটিত করা সহজ। ভারত ঠিক এই কাজটিই বাংলাদেশে করে যাচ্ছে। বাঙালি মুসলিম জাতিকে নেশায় আসক্ত করে প্রতারণামূলক চুক্তি, লুটপাট আর নিজেদের স্বার্থ হাছিল করে যাচ্ছে মুশরিক নিয়ন্ত্রিত ভারত। সাম্প্রতিককালে দেশে অপসংস্কৃতি আর খেলাধুলার যে আসর জমে উঠছে তাতে ভারতের মুশরিকদের সেই দস্যু মনোভাবই প্রমাণিত হচ্ছে।
ভারতীয় মুশরিকরা বাংলাদেশকে কখনোই কোনো ছাড় দেয়নি, দিচ্ছে না। তিস্তার পানি বণ্টন কিংবা স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন করেনি। ছিটমহল বিনিময়ও হচ্ছে না। বন্ধ হচ্ছে না সীমান্তে বাংলাদেশীদের হত্যা ও নির্যাতন। নিরস্ত্র মানুষের উপর ঠা-া মাথায় গুলি বর্ষণ করার বহু প্রমাণ থাকা সত্ত্বেও সীমান্ত হত্যাকা-ের বিচার না করে বিএসএফকে বরং হত্যার লাইসেন্স দিয়েছে সাম্প্রদায়িকতাবাদী ভারতীয় মুশরিকরা।

অন্যদিকে কানেকটিভিটির নামে ভারতকে ট্রানজিট দেয়া হচ্ছে। এখন স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠে যে, তাহলে বাংলাদেশের প্রতি ভারতের কথিত ‘সহযোগিতা’ কি ভারতের স্বার্থ আদায়ের পথকে সুগম করে দিতে সহযোগিতা? বাস্তবতায় তাই প্রমাণিত হচ্ছে। নির্বিঘেœ স্বার্থ আদায়ের জন্য, বাঙালি মুসলিম জাতিকে নেশাগ্রস্ত করে তুলতে, খেলায় মত্ত রাখতে এবং চেতনা থেকে দেশপ্রেম তুলে দিয়ে ভারতপ্রেম পুশ করার সহযোগিতাই করে যাচ্ছে ভারতীয় মুশরিকরা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]