দেশের ছেলে-মেয়েদের চরিত্র রক্ষার্থে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ নয় বরং বাল্যবিবাহের পক্ষে ব্যাপক প্রচারণা চালানো উচিত-১


সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার বয়স মুবারক যখন ৬ বছর তখন উনার সাথে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র নিছবাতুল আযীম শরীফ (আক্বদ্ মুবারক) সুসম্পন্ন হয় এবং ৯ বছর বয়স মুবারকে তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্রতম হুজরা শরীফে তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করেন। সুবহানাল্লাহ! এ বিষয়টি একটি নয় দু’টি নয় বরং অসংখ্য ছহীহ্ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের বর্ণনা মুবারক দ্বারাই অকাট্যভাবে প্রমাণিত। সুবহানাল্লাহ!

কাজেই, এ বিষয়টি অস্বীকার করার অর্থ হচ্ছে বহু পবিত্র ছহীহ্ হাদীছ শরীফ উনাদেরকে অস্বীকার করা। আর এ ব্যাপারে সকলেই একমত যে, পবিত্র হাদীছ শরীফ অস্বীকার করা কাট্টা কুফরী। আর যে কুফরী করে সেই কাফির হয়। নাউযুবিল্লাহ!
নিম্নে ছহীহ্ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার কিতাব মুবারক থেকে এ সম্পর্কিত পবিত্র হাদীছ শরীফ উল্লেখ করা হলো-
عَنْ حضرت ام المؤمنين الثالثة الصديقة عليها السلام أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم تَزَوَّجَهَا وَهْيَ بِنْتُ سِتِّ سِنِينَ وَأُدْخِلَتْ عَلَيْهِ وَهْيَ بِنْتُ تِسْعٍ وَمَكَثَتْ عِنْدَهُ تِسْعًا.
অর্থ: সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। নিশ্চয়ই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে (সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম) উনার পবিত্র নিছবাতুল আযীম শরীফ (আক্বদ্ মুবারক) সুসম্পন্ন হয় যখন উনার বয়স মুবারক ছিল ৬ বছর। আর তিনি ৯ বছর বয়স মুবারকে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র হুজরা শরীফে তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করেন এবং ৯ বছর উনার সাথে অবস্থান মুবারক করেন।” সুবহানাল্লাহ! (ছহীহুল বুখারী কিতাবু বাদ্ইল ওয়াহ্ই বাবু ইনকাহির রজুলি ওয়ালাদাহুছ ছিগার)

বাল্যবিবাহের মধ্যে অনেক উপকার রয়েছে। বর্তমানে কাফের-মুশরিকরা চক্রান্ত করে বাংলাদেশের মুসলমানদেরকে সেই সুফল থেকে বিমুখ রাখতে চাচ্ছে এবং নিজেরা বাল্যবিবাহের সুফলের বিষয়টি উপলদ্ধি করতে পেরে নিজেরা ব্যাপকভাবে বাল্যবিবাহ করে যাচ্ছে এবং উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে।
যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স সেন্টার ফর কমিউনিকেশন প্রোগ্রামস কর্তৃক বাস্তবায়িত ইউএসএআইডির উজ্জীবন এসবিসিসি প্রকল্প বাংলাদেশে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে কাজ করছে।
কিছুদিন পূর্বে তারা সুপার স্টোর আগোরাকে সাথে নিয়ে কথিত বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে সচেতনতা তৈরি করতে ১০ লাখ স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান পরিচালনা করেছে।

তাদের বক্তব্য হচ্ছে, বাংলাদেশে নাকি হঠাৎ বাল্যবিবাহ বেড়ে গেছে। সেজন্য তারা স্বাক্ষর অভিযান পরিচালনা করেছে। অথচ যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ টি রাজ্যের ৪৫টি রাজ্যে আইনগতভাবেই বাল্যবিবাহের বৈধতা রয়েছে। এছাড়া তাদের দাবি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্র একটি সভ্য ও উন্নত দেশ। যদি কথিত এই সভ্য দেশ বাল্যবিবাহের আইনগতভাবে অনুমতি দিতে পারে তাহলে বাংলাদেশে কেন বাল্যবিবাহের আইনগতভাবে অনুমতি দিতে পারবেনা? ইউএসএআইডি’র উচিত বাংলাদেশে এরা ব্যাপক ভাবে বাল্যবিবাহের পক্ষে প্রচারণা করা।
-আহমদ হুসাইন

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]