দ্বীন ইসলামের শিক্ষা কত মহান ! ! !


একদিন এক ইহুদি ক্রেতা এসে দাঁড়ালেন, নবীজির এক সাহাবীর দোকানের সামনে। একটা পণ্যের দাম শুনে কিনতে সম্মত হলেন ঐ ক্রেতা। কিন্তু তাকে আশ্চর্য করে দিয়ে সাহাবীটি দূরের আরেকটি দোকান দেখিয়ে দিয়ে বললেন,পণ্যটি সেখান থেকে কিনতে। দাম একই, জিনিসও একই। ক্রেতা ঐ দোকানে গেলেন এবং পণ্যটা কিনে ফেরত আসলেন প্রথম দোকানে।
.
সাহাবীটি জিজ্ঞেস করলেন ক্রেতাকে,
– আপনার জিনিসটা কি পাওয়া যায়নি সেখানে.?
: পেয়েছি, কিন্তু আমি অন্য একটা কথা জানার জন্য এসেছি।
– কী কথা ?
: তুমি যার কাছে আমাকে পাঠিয়েছিলে সে তো হচ্ছে আমার ধর্মের মানুষ—ইহুদি। আমরা তো তোমাদের পছন্দ করি না। আবার তুমি একজন ব্যবসায়ী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীর কাছে আমাকে পাঠালে,মুসলিম হয়ে একজন ইহুদিকে ব্যবসার সুযোগ করে দিলে কেন?
.
.
তখন সাহাবী তখন মুচকি হেসে বললেনঃ
মহান আল্লাহ আমাকে আজকের মতো যথেষ্ট রিযিক দিয়েছেন। আর ঐ লোক সকাল থেকে বসে আছে। কোন বেচাকেনা হয়নি ওর। তার ও তো পরিবার আছে। একজন ক্রেতা পেলে তার ন্যুনতম চাহিদাটুকু হয়ত মিটবে। কিছুটা হলেও তার উপকার হবে।
.
আর আমাদের রাসূল সাল্লাল্লাহু বলেছেনঃ
“তোমরা তোমাদের প্রতিবেশীর খেয়াল রাখিও।”
.
.
ইহুদী ক্রেতাটি, হতবাক হয়ে ভাবলেন -যে ধর্ম মানুষের কল্যাণের কথা এভাবে মানুষকে ভাবতে শেখায়, সেই ধর্ম কখনোই মিথ্যা হতে পারে না। সাথে সাথে তিনি কালিমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে ফেললেন। #সুবহানাল্লাহ
.
তথ্যসুত্রঃ হেকায়াতুস সাহাবা:- ৩৮৯।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে