নাযাত প্রাপ্তির বিশেষ পথ ছদক্বায়ে জারিয়া


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যখন কোন মানুষ ইন্তেকাল করে, তখন তার সকল আমল বন্ধ হয়ে যায়; মাত্র তিনটি আমল ছাড়া-
(এক) ছদকায়ে জারিয়া: যেমন-মসজিদ-মাদ্রাসা নির্মাণ করা, রাস্তা-ঘাট নির্মাণ করা, বৃক্ষ রোপন করা ইত্যাদি। (দুই) নেক সন্তান, যে তার পিতা মাতার জন্য দোয়া করে। (তিন) ইলিম (যে ইলিম দ্বারা নিজে আল্লাহওয়ালা হবে এবং অন্য মানুষ আল্লাহওয়ালা হবে তথা ইলমে শরীয়ত ও ইলমে মা’রেফত) হাছিল করা।
এই তিনটি বিষয়ের মধ্যে অন্যতম একটি হল, একজন সন্তানকে যদি ছহীহ আক্বীদাসম্পন্ন দ্বীন ইসলামের মারকাজ কোন দ্বীনি প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়া করাতে এই সন্তানের পিছনে যত টাকা-পয়সা খরচ হবে তা ছদকায়ে জারিয়া হিসেবে পিতা-মাতা উত্তম প্রতিদান পেতেই থাকবে।
“ছদকায়ে জারিয়ার যে তিনটি বিষয় রয়েছে, তার মধ্যে সন্তানকে ছহীহ আকী¡দা সম্পন্ন দ্বীনি ইলিম শিক্ষা দিলে উল্লিখিত তিনটি বিষয় হাছিল হয়ে যাবে”। সুবহানাল্লাহ!
উল্লেখ্য, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যারা শিক্ষক হিসেবে থাকবেন, তাদেরকে অবশ্যই ছহীহ আক্বীদাসম্পন্ন হতে হবে। অন্যথায় শিক্ষার্থী গোমরাহ হয়ে যাবে। বিনিময়ে পিতা-মাতা পরকালে ভাল কোন প্রতিদান পাবে না; বরং আরো বিপদের কারণ হতে পারে।
তাই, দুনিয়ার মানুষকে নাযাত দানের জন্য আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফে প্রতিষ্ঠা করেছন মুহাম্মদিয়া জামিয়া শরীফ মাদ্রাসা। এখানে রয়েছে বালক এবং বালিকা মাদ্রাসা। এই মাদ্রাসায় আপনার সন্তানকে ভর্তি করালে ১. আক্বীদা বিশুদ্ধ হবে। ২. সুন্নতের আমল করতে পারবে। ৩. আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছোহবত মুবারক ইখতিয়ার করে ফয়েজ তাওয়াজ্জুহ হাছিলের মাধ্যমে খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার রসূল নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সন্তুষ্টি মুবারক হাছিল করা সম্ভব হবে।
স্মরণীয় বিষয় যে, আপনি যদি আপনার সন্তানকে এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ান, যেখানে পড়ালে ঈমান আক্বীদা নষ্ট হয়ে যাবে এবং খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এবং হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিস সালাম উনাদের বিরুদ্ধাচারণ করবে, যার পরিণাম অত্যন্ত ভয়াবহ, জাহান্নাম। নাউযুবিল্লাহ!
অতএব, সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি আর বিলম্ব না করে আপনার ঈমান আমল ইছলাহ করতে ছহীহ ইলিম মুবারক হাছিল করতে তাড়াতাড়ি আপনার সন্তানকে মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ মাদ্রাসায় ভর্তি করিয়ে আপনার চিরস্থায়ী ঠিকানা সুমহান জান্নাতের পথ খোলাছা করুন।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে