নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সালাম উনার, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মানহানী ও কটাক্ষ করে লেখা সমস্ত গ্রন্থ, পুস্তিকা ও পত্র-পত্রিকার লেখক, অনুবাদক, প্রকাশক, প্রচারক, সমর্থক সকলেই কাট্টা মুরতাদের অন্তর্ভুক্ত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমাদের মধ্য থেকে যে বা যারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম থেকে ফিরে যায় অর্থাৎ মুরতাদ হয়ে যায় অতঃপর সে বা তারা কাফির অবস্থায় মারা যাবে। যার ফ্ললে তাদের ইহকালীন ও পরকালীন সব আমলই নষ্ট হয়ে যায় এবং তারা অনন্তকাল ধরে জাহান্নামে থাকবে।”
প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সালাম উনার, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মানহানী ও কটাক্ষ করে লেখা সমস্ত গ্রন্থ, পুস্তিকা ও পত্র-পত্রিকার লেখক, অনুবাদক, প্রকাশক, প্রচারক, সমর্থক সকলেই কাট্টা মুরতাদের অন্তর্ভুক্ত। সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার ফায়ছালা মতে- মুরতাদের একমাত্র শাস্তি হচ্ছে মৃত্যুদণ্ড।
৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত ও রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার দেশের সরকারের জন্য ফরয হচ্ছে- এ ধরণের সমস্ত গ্রন্থ, পুস্তিকা, পত্র-পত্রিকা ও প্রকাশনা চিরদিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা এবং এ ধরণের গ্রন্থ, পুস্তিকা ও পত্র-পত্রিকার লেখক, অনুবাদক, প্রকাশক, প্রচারক ও সমর্থক সকলকে গ্রেফতার করে মুরতাদের শরয়ী শাস্তি বাস্তবায়ন করা।
– ক্বওল শরীফ: সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম
যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইউস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, ক্বইয়ূমুয যামান, জাব্বারিউল আউওয়াল, ক্বউইয়্যূল আউওয়াল, সুলত্বানুন নাছীর, হাবীবুল্লাহ, জামিউল আলক্বাব, আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ, মাওলানা সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাক তিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে বেমেছাল ফাযায়িল-ফযীলত, মর্যাদা-মর্তবা, শান-মান মুবারক হাদিয়া মুবারক করেছেন।’ মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমার সম্মানিত হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আমি আপনাকে ও আপনার যিকির (মর্যাদা-মর্তবা)কে সমুন্নত করেছি।” সুবহানাল্লাহ!

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন তিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুহব্বতেই সবকিছু সৃষ্টি করেছেন। এ প্রসঙ্গে পবিত্র হাদীছে কুদসী শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “সম্মানিত আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি ছাড়া যত কিছু রয়েছে, সব আপনার কারণেই সৃষ্টি করেছি।” সুবহানাল্লাহ!

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র হাদীছে কুদসী শরীফ উনার মধ্যে আরো এসেছে, মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমি আপনাকে খলীল ও হাবীব হিসেবে গ্রহণ করেছি।’ সুবহানাল্লাহ!

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, অথচ আশ্চর্যের বিষয় হলো- কিভাবে ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত ও রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার এই দেশে স্বঘোষিত মুরতাদগুলো নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের, সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার, পবিত্র ওহী মুবারক উনার ও পবিত্র কুরআন শরীফ উনাদেরকে মানহানী ও কটাক্ষ করে লেখা বই-পুস্তক পত্র-পত্রিকা প্রকাশ করার দুঃসাহস দেখায়? নাউযুবিল্লাহ!

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন- অতএব, বলার অপেক্ষা রাখে না যে, সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের, সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার, পবিত্র ওহী মুবারক উনার ও পবিত্র কুরআন শরীফ উনাদেরকে মানহানী ও কটাক্ষ করে লেখা গ্রন্থ, পুস্তিকা ও পত্র-পত্রিকার লেখক, অনুবাদক, প্রকাশক, প্রচারক, সমর্থক সকলেই কাট্টা মুরতাদের অন্তর্ভুক্ত।

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার ফায়ছালা মতে- মুরতাদের একমাত্র শাস্তি হচ্ছে মৃত্যুদ-। ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত ও রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার এ দেশের সরকারের জন্য ফরয হচ্ছে, এধরনের সমস্ত গ্রন্থ, পুস্তিকা, পত্র-পত্রিকা ও প্রকাশনা চিরদিনের জন্য নিষিদ্ধ ও বন্ধ ঘোষণা করা এবং উল্লিখিত গ্রন্থ, পুস্তিকা ও পত্র-পত্রিকার লেখক, অনুবাদক, প্রকাশক, প্রচারক ও সমর্থক সকলকে গ্রেফতার করে মুরতাদের শরয়ী শাস্তি বাস্তবায়ন করা। সরকার যদি তা করতে ব্যর্থ হয়, তবে অবশ্যই তাকে ইহকাল ও পরকাল উভয়কালে কঠিন কাফফারা আদায় করতে হবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]