পবিত্র মসজিদ শরীফ উনার মধ্যে নামায পড়ার নামে টুল বা চেয়ারে বসা বিদয়াত


ইদানীং বিশেষ করে বেশ কয়েক বৎসর যাবৎ দেখা যাচ্ছে- খালিক মালিক্ব রব মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর পবিত্র মসজিদ শরীফ উনার মধ্যে নামায পড়ার নামে কতিপয় মুসল্লী বিশেষ করে সমাজের প্রভাবশালী ব্যক্তি ও মসজিদ কমিটির লোকজনের কেউ কেউ টুল কিংবা চেয়ারে বসে থাকে। তারা বলে থাকে- মাজুরতার কারণে তারা এভাবে নামায পড়ে। আর এজন্য ইমাম সাহেবের থেকেও কোনো বাধা নিষেধ থাকে না। এর একটি কারণ কমিটির প্রভাবশালীদেরকে তোষণ করা আর অন্যটি হলো ইমাম সাহেবদের অজ্ঞতা মূর্খতা।
অথচ পবিত্র মসজিদ শরীফ হলো শুধুমাত্র সুস্থ মুসল্লীদের জন্য। যারা অসুস্থ মুসল্লী তাদের জন্য মসজিদ বা জামায়াত কোনোটিরই বাধ্যবাধকতা ইসলামী শরীয়ত উনার মাঝে নেই। এক কথায় নামায পড়ার জন্য যত তরতীব বা নিয়ম-কানুন সম্মানিত ইসলামী ফিকাহ উনার কিতাবগুলোর মধ্যে বর্ণিত আছে, সেগুলো পালন করলে কোনোভাবেই টুল বা চেয়ারে বসে নামায আদায় করা সম্ভব নয়। আর এ কারণে শুধুমাত্র পবিত্র মসজিদ শরীফ উনার মধ্যেই নয়, বরং বাসা বাড়িতেও চেয়ার বা টুলে বসে নামায পড়া জায়িয নেই। এটা শরীয়তবিরোধী আমল হিসেবে গণ্য হবে। আর সেটা যে সুস্পষ্ট বিদয়াত হবে তাতো বলার অপেক্ষায় রাখে না। এমন বিদয়াত আমল যে বা যারা করবে, সমর্থন করবে প্রত্যেকেই বিদয়াতী বলে চিহ্নিত হবে। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “যে ব্যক্তি কোনো বিদয়াতীকে সম্মান দেখালো, সে দ্বীন ইসলাম উনাকে ধ্বংস করার কাজে সাহায্য করলো।” নাউযুবিল্লাহ!
অতএব, পবিত্র মসজিদ শরীফ উনার মধ্যে নামায পড়ার নামে টুল বা চেয়ারে বসার ন্যায় সকল আধুনিক বিদয়াত হতে আমাদেরকে সতর্ক সাবধান এবং বিরত থাকতে হবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে