প্রতিটি দেশের সরকার প্রধানসহ সকলের জন্য ফরয হচ্ছে, আগত পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার বিশেষ বিশেষ দিন ও রাত মুবারকগুলো যথাযথভাবে পালন করে রহমত, বরকত, নিয়ামত, সাকিনা হাছিল করার লক্ষ্যে শরয়ী পদ্ধতিতে খালি চোখে চাঁদ দেখে সঠিক তারিখে মাস শুরু করা।


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘(হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) মহান আল্লাহ পাক উনার বিশেষ বিশেষ দিনগুলো ঈমানদার বান্দা-বান্দী উনাদেরকে স্মরণ করিয়ে দিন। নিশ্চয়ই এতে ধৈর্যশীল, শোকরগোযার বান্দা-বান্দীদের জন্যে নিদর্শনাবলী রয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! তাই
প্রতিটি দেশের সরকার প্রধানসহ সকলের জন্য ফরয হচ্ছে, আগত পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার বিশেষ বিশেষ দিন ও রাত মুবারকগুলো যথাযথভাবে পালন করে রহমত, বরকত, নিয়ামত, সাকিনা হাছিল করার লক্ষ্যে শরয়ী পদ্ধতিতে খালি চোখে চাঁদ দেখে সঠিক তারিখে মাস শুরু করা।
– ক্বওল শরীফ: সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম

যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহ্ইউস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, ক্বইয়ূমুয যামান, জাব্বারিউল আউওয়াল, ক্বউইয়্যূল আউওয়াল, সুলত্বানুন নাছীর, হাবীবুল্লাহ, জামিউল আলক্বাব, আওলাদে রসূল, মাওলানা সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র হিজরী সন উনার দ্বিতীয় মাস হচ্ছে ‘পবিত্র ছফর শরীফ’। ফযীলত ও বুযূর্গীর ক্ষেত্রে এ পবিত্র মাসটিও এক বিশেষ স্থান দখল করে আছে। এ পবিত্র মাস উনারই শেষ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবার হচ্ছেন- ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’। সুবহানাল্লাহ! এ মুবারক দিনে সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মারীদ্বী শান মুবারক থেকে ছিহ্হাতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ! যা এ বছরের জন্য ২৬শে সফর শরীফ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ৩ তারিখ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আল হাদিয়াহ আ’শার আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র নিসবাতুল আযীম শরীফ দিবস। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ৫ তারিখ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছানিয়াহ আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ দিবস। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ৭ তারিখ মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুস সাবি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ১২ তারিখ পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ শরীফ অর্থাৎ ১২ই শরীফ। এ দিন কোটি কোটি কণ্ঠে পবিত্র মীলাদ শরীফ অনুষ্ঠিত হয়।
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ২৪ তারিখ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছানিয়াহ আ’শার আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র নিসবাতুল আযীম শরীফ দিবস। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ২৭ তারিখ সাইয়্যিদাতুনা হযরত বিনতু যিন নূর আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশ দিবস। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ২৮ তারিখ প্রথমতঃ ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র শাহাদাতী শান মুবারক প্রকাশ দিবস। সুবহানাল্লাহ! দ্বিতীয়তঃ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মি বা’দা উম্মি আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক মুবারক প্রকাশ দিবস।

তৃতীয়তঃ মুজাদ্দিদে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাক উনার খালিছ ওলী, আফযালুল আউলিয়া, ক্বইয়্যূমে আউওয়াল, মুজাদ্দিদুয যামান হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশ দিবস। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, সুতরাং আরবী অন্যান্য মাস উনার ন্যায় পবিত্র ছফর শরীফ মাসটিও মুসলমান উনাদের জন্য অত্যন্ত ফযীলতপূর্ণ। এ পবিত্র মাস উনার বিশেষ দিনগুলো যথাযথভাবে পালন করে রহমত, বরকত, নিয়ামত, সাকীনা হাছিল করতে হলে সঠিক তারিখে মাসটি শুরু হওয়া অতীব জরুরী।

মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, বাংলাদেশ পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার চাঁদ তালাশ করবে আগামী ২১শে রবি’ ১৩৮৮ শামসী, ১৮ই সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রিঃ, ইয়াওমুল জুমুয়াহ (জুমুয়াবার) দিবাগত সন্ধায়। সেদিন ঢাকায় সূর্যাস্ত ৫ টা ৫৯ মিনিটে এবং চন্দ্রাস্ত ৬টা ৫৬ মিনিটে অর্থাৎ চাঁদ ৫৬ মিনিট আকাশে অবস্থান করে অস্ত যাবে। সূর্যাস্তের সময় দিগন্তরেখার ১১ ডিগ্রী ৩৫ আর্ক মিনিট উপরে থাকবে চাঁদের অবস্থান এবং কৌণিক দূরত্ব হবে ১৪ ডিগ্রী ৩৮ আর্ক মিনিট। সেদিন চাঁদের বয়স হবে ২৩ ঘন্টা ৪৯ মিনিট। সেদিন চাঁদ খুঁজতে হবে ২৬৪ ডিগ্রী আযিমাতে এবং সূর্য থাকবে ২৭২ ডিগ্রী আযিমাতে অর্থাৎ সূর্যের বায়ে থাকবে চাঁদের অবস্থান। আকাশ পরিস্কার থাকলে ঢাকার সময় অনুযায়ী সন্ধ্যা ৬টা ২৫ মিনিটের দিকে চাঁদ দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]