প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য ফরয হচ্ছে- সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার খেলাফ সর্ব প্রকার নিয়ম-নীতি, তর্জ-তরীক্বা ও মতবাদ অনুসরন ও অনুকরন করা থেকে পরিপূর্ণরূপে বিরত থাকা


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম অর্থাৎ পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের পরিপূর্ণ বিধান আসার পর অন্য কোনো ধর্ম ও মতবাদের নিয়মনীতি গ্রহণ করা কারো জন্যই জায়িয তো নেই বরং সম্পূর্ণ হারাম ও কুফরী। কেউ যদি তা গ্রহণ করে, তবে সে সম্মানিত ঈমান ও সম্মানিত দ্বীন ইসলাম থেকে খারিজ হবে এবং কঠিন শাস্তির সম্মুখীন হবে অর্থাৎ জাহান্নামী হবে।

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তিনি মহান আল্লাহ পাক যিনি উনার রসূল হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে হিদায়েত ও সত্য দ্বীনসহ পাঠিয়েছেন অতীতের পবিত্র ওহী মুবারক দ্বারা নাযিলকৃত সমস্ত দ্বীন এবং অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের মানবরচিত সমস্ত মতবাদকে রহিত করে দিয়ে। এক্ষেত্রে সাক্ষী হিসেবে মহান আল্লাহ পাক তিনিই যথেষ্ট।’ সুবহানাল্লাহ!সম্মানিত দ্বীন ইসলাম অর্থাৎ পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের পরিপূর্ণ বিধান আসার পর অন্য কোনো ধর্ম ও মতবাদের নিয়মনীতি গ্রহণ করা কারো জন্যই জায়িয তো নেই বরং সম্পূর্ণ হারাম ও কুফরী। কেউ যদি তা গ্রহণ করে, তবে সে সম্মানিত ঈমান ও সম্মানিত দ্বীন ইসলাম থেকে খারিজ হবে এবং কঠিন শাস্তির সম্মুখীন হবে অর্থাৎ জাহান্নামী হবে। তাই প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য ফরয হচ্ছে- সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার খেলাফ সর্ব প্রকার নিয়ম-নীতি, তর্জ-তরীক্বা ও মতবাদ অনুসরন ও অনুকরন করা থেকে পরিপূর্ণরূপে বিরত থাকা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে