ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপসহ দ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান


ছাত্র আনজুমানে আল বাইয়্যিনাতের প্রতিবাদী সংবাদ সম্মেলন:
ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপসহ দ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে মানহানীকর যে কোন বিষয় প্রচার, প্রকাশ ও প্রদানকারীর মৃত্যুদ-ের শাস্তি জারীর পাশাপাশি ফরাসী প্রেসিডেন্টের চরম ধৃষ্টতা ও অমার্জনীয় অপরাধের দায়ে ফ্রান্সের সাথে সর্বপ্রকার কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন, সরকারী-বেসরকারীভাবে ফ্রান্সের সকল পণ্য বয়কট, ফ্রান্সের অপরাধকে সমর্থনকারী দেশের সাথে সমস্ত প্রকার কূটনৈতিক, ব্যবসায়ী, অর্থনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করাসহ ওআইসি’র মাধ্যমে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপসহ দ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানিয়েছে ছাত্র আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত, বাংলাদেশ।
গতকাল ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার) জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে মহাসম্মানিত মহাপবিত্র রসূল নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে ফ্রান্সসহ সমস্ত শাতিমে রসূলের চরম ধৃষ্টতাপূর্ণ বেয়াদবির প্রতিবাদে আয়োজিত প্রতিবাদী সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, পাঁচ ওয়াক্ত আযানে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছানা-ছিফত মুবারক পাঠ করতে হয়, উনার মুবারক শানে পবিত্র দরূদ শরীফ পাঠ না করলে কোন নামাযই পরিপূর্ণ হয়না, কোন মানুষ যদি ক্বিয়ামত পর্যন্ত পবিত্র কালিমা শরীফ উনার ১ম অংশ লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ এতটুকু পাঠ করে সে মুসলমান, ঈমানদার হিসেবে গণ্য হয়না, যতক্ষণ পর্যন্ত মুহম্মাদুর রসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এই বাক্য মুবারক পাঠ না করবে।
অর্থাৎ নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই হলেন, মুসলমানদের মহাসম্মানিত ঈমান। তাহলে উনার শান-মান মুবারক কতটুকু বুলন্দ থেকে বুলন্দতর করা হয়েছে সেটা বান্দা-বান্দী, উম্মত, কায়িনাতবাসীর চিন্তা-কল্পনার উর্ধ্বে। সুবহানাল্লাহ! তাহলে যারা উনার মুবারক শানের খিলাফ কথা-বার্তা বলবে, উনার মুবারক শানে কটুক্তি করবে, ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করবে তাদের কি শাস্তি হবে?
বক্তারা বলেন, মহাসম্মানিত নবী ও রসূল, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে নিয়ে ফরাসী প্রেসিডেন্টের সরাসরি পৃষ্ঠপোষকতায় ব্যঙ্গচিত্র ও কার্টুন প্রচার করা হচ্ছে। নাঊযুবিল্লাহ! যা বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে ন্যাক্কারজনক ঘটনা। মুসলমানরা যা কখনোই বরদাস্ত করেনা। এমন জঘন্যতম অমার্জনীয় ধৃষ্টতার বিরুদ্ধে আমরা তীব্র প্রতিবাদ এবং কঠোর নিন্দা জানাচ্ছি।
বক্তারা বলেন, বিশ্বের ৩৫০ কোটি মুসলমান। আমরা মুসলমানরা আমাদের মহাসম্মানিত নবী ও রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে নিজের জান-মাল থেকেও বেশি ভালবাসি। উনার সমুন্নত শান মুবারকে কোন ধরণের বেয়াদবী আমরা কখনোই বরদাস্ত করিনা। উনার ভালবাসায় আমাদের কাছে পুরো সৃষ্টি জগত অতিতুচ্ছ। উনার জন্য আমাদের সমগ্র উপার্জন ও প্রাণ উৎসর্গকৃত। উনাকে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র ও কার্টুন প্রচার করে ফরাসী ম্যাক্রন গোষ্ঠী ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করেছে।
বক্তারা বলেন, আমাদের মহাসম্মানিত নবী ও রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শান বিরোধী ব্যঙ্গচিত্র ও কার্টুনসহ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সর্বপ্রকার কার্যক্রম এই মূহুর্তেই বন্ধ করো, করতে হবে। দ্বীন ইসলাম উনার বিরোধী সব অপতৎপরতার জবনিপাত এখনই করতে হবে।
বক্তারা বলেন, আমরা মহান বারী তায়ালা উনার নিকট তোমাদের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত কঠিন বদ দুআ করছি। আমাদের অন্তরের অন্তঃস্থলের কামনা, পানি, আগুন আর বাতাসের তা-বে ফ্রান্স একাকার হয়ে যাক। ফ্রান্স নামক ভূমি ইতিহাস হতে চিরতরে হারিয়ে যাক। তোমাদের সাথে আমাদের রাষ্ট্রীয়, অর্থনৈতিক, ব্যবসায়িকসহ সব সম্পর্ক ছিন্ন। তোমাদের সাথে যারা সম্পর্ক রাখবে, তারা মুসলমানদের থেকে বিচ্ছিন্ন। মুসলমানদের পক্ষ হতে, তোমাদের প্রতি চির অভিসম্পাত।
মুসলিম দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়ে বক্তারা বলেন, সমস্ত মুসলিম দেশ থেকে ফ্রান্সসহ সকল দুশমনে রসূলসহ তাদের সকল পণ্য বয়কট করতে হবে। ফ্রান্সের সাথে সমস্ত প্রকার কূটনৈতিক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করতে হবে। ওআইসিকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে একযোগে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]