বাজেটে পবিত্র কুরবানীর বরাদ্দ কোথায়?


বর্তমান সরকার শতকরা ৯৮ ভাগ মুসলমানের সমর্থনে ক্ষমতায় এসেছে; তাই তাদেরকে মুসলমানদের সুবিধা-অসুবিধাগুলোকেই প্রাধান্য দিতে হবে। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের সাথে বলতে হয় যে, সরকার সর্বদাই তার বিপরীত করে যাচ্ছে। শতকরা ২%-এরও কম বিধর্মীদের বিভিন্ন উৎসবে ও পূজাম-পে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হলেও মুসলমানদের পবিত্র ঈদে এ ধরনের কোনো উদ্যোগ নেই। নাঊযুবিল্লাহ! তাই সরকারকে পবিত্র ঈদুল আযহা ও পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আলাদাভাবে ‘পবিত্র ঈদ খাত’ সৃষ্টি করে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ করতে হবে।

এখন প্রশ্ন আসতে পারে অর্থের যোগান কিভাবে হবে? সহজ উত্তর হলো, ১লা বৈশাখে ক্রীড়া খাতে এবং গান-বাজনা, নাটক, সিনেমা ইত্যাদির নামে কথিত সংস্কৃতি খাতে যে পরিমাণ অর্থের অপচয় করা হয়, তা বাদ দিয়ে খুব সহজেই ‘পবিত্র ঈদ খাত’-এ অর্থের যোগান দেয়া যাবে। তাই সরকারকে এ ব্যাপারে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রেখে পরিকল্পনা গ্রহণ এবং সুষ্ঠু বাস্তবায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে