বিদয়াত ছেড়ে পবিত্র সুন্নত পালনে অভ্যস্ত করতে প্রতিষ্ঠা হয়েছে ‘আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’


শুরুতেই তিনটি নছীহত মুবারক স্মরণ রাখা প্রয়োজন-
(১) পবিত্র সুন্নত মুবারক পালন করা ফরয। (২) পবিত্র সুন্নত মুবারক তরক করা ফাসিকী আর (৩) পবিত্র সুন্নত মুবারক ইহানত করা কুফরী।
উপরোক্ত বিষয় থেকে ১ম বিষয়ের উপর আমলে অভ্যস্ত করা এবং পরের ২টি বিষয় থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার লক্ষেই তথা বিদয়াত থেকে দূরে রেখে সুন্নত মুবারক পালনে অভ্যস্ত করতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে ‘আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’।
মহান আল্লাহ পাক উনার দেওয়া শ্রেষ্ঠ রহমতগুলোর একটি হল এই যে, তিনি পবিত্র দ্বীনকে পূর্ণাঙ্গ ও পরিপূর্ণ করে দিয়েছেন, তাই মুসলিমদের অন্য কোন জীবনব্যবস্থা নেই। এ কারণেই মহান আল্লাহ্ পাক তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে খতামুন-নাবিয়্যীন হিসেবে এবং কায়িনাতবাসীর কাছে রহমত মুবারক হিসেবে পাঠিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যা করেছেন, বলেছেন, করতে আদেশ দিয়েছেন বা কেউ করলে সম্মতি মুবারক দিয়েছেন সেগুলোই পবিত্র সুন্নত মুবারক হিসেবে বিবেচিত হবে। সুবহানাল্লাহ!
আর তিনি যে কথা বলেননি সে কথা বলা এবং তিনি যা করেননি এমন কাজকে আদর্শরূপে গ্রহণ করার নাম বিদয়াত। তথা পবিত্র সুন্নতের বিপরীতে নিজে নিজে কিছু আমল করা, খাওয়া-দাওয়া করা, চলাফেরা করা ইত্যাদি যা কিছুই মনগড়া সেগুলোই বিদয়াত।
এককথায় সম্মানিত মুসলমানদের মাথার তালু থেকে পায়ের তলা, হায়াত থেকে মউত, এমনকি হায়াতের পূর্ব থেকে মউতের পর পর্যন্ত, উনারা কি খাবেন, কি পরবেন, কিভাবে চলবেন তার সবকিছু মনগড়া করার কোনই সুযোগ নেই। কিন্তু বর্তমানে অধিকাংশ লোকই মনগড়াভাবে চলতেছে। নাউযুবিল্লাহ!
মানুষ যাতে করে মনগড়াভাবে কোন কিছু না করে, না খায়, কোন আমল মনগড়াভাবে না করে সে জন্য আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ, ক্বায়িম মাক্বামে হাবীবুল্লাহ, মাওলানা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি সারাবিশ্বের মুসলমানদের জন্য প্রতিষ্ঠা করে দিয়েছেন ‘আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’। সুবহানাল্লাহ!
আর এজন্য সম্মানিত সুন্নত মুবারক বিস্তারিত জানতে, দেখতে, গ্রহণ ও প্রচার করতে “আন্তর্জাতিক মহাসম্মানিত সুন্নত প্রচার কেন্দ্রে” রাজারবাগ শরীফ, ঢাকা-১২১৭ এ যোগাযোগ করা এবং প্রকাশিত সুন্নতী কিতাবসমূহ পাঠ করার জন্য সবাইকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে। যাতে করে সকলেই নাজাত, রহমত, বরকত, কামিয়াবী হাছিল করতে পারেন।
কেননা পবিত্র সুন্নত মুবারকের মধ্যেই রয়েছে সমস্ত নিয়ামত, রহমত, বরকত, শিফা ও আরোগ্য।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে