‘বেপর্দা হয়ে পবিত্র হজ্জ করা নিষেধ’ এটা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনারই ফতওয়া


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যার উপর পবিত্র হজ্জ ফরয সে যেন পবিত্র হজ্জ করতে গিয়ে কোনো প্রকার অশ্লীল-অশালীন কাজ না করে এবং কোনো প্রকার ফাসিকী বা নাফরমানিমূলক কাজ না করে এবং ঝগড়া-বিবাদ না করে। আর তোমরা যে নেক কাজ করো তা মহান আল্লাহ পাক তিনি জানেন। তোমরা পাথেয় সংগ্রহ করো। নিশ্চয়ই উত্তম পাথেয় হলো তাক্বওয়া। (পবিত্র সূরা বাক্বারা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১৯৬)
এ পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মাধ্যমে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি সুস্পষ্টরূপে জানিয়ে দিয়েছেন যে, পবিত্র হজ্জ করতে গিয়ে কোনো প্রকার অশ্লীল-অশালীন তথা ছবি তোলা ও বেপর্দা-বেহায়াপনামূলক কাজ করা যাবে না।
আরো বলা হয়েছে যে, পবিত্র হজ্জ করতে গিয়ে কোনো প্রকার ফাসিকী বা নাফরমানিমূলক কাজ করা যাবে না। অর্থাৎ ছবি তুলে ও বেপর্দা-বেহায়াপনামূলক কাজ করে এবং ফাসিকী ও নাফরমানিমূলক কাজ করে পবিত্র হজ্জ পালনের চিন্তা করা সম্পূর্ণ গুমরাহী। কারণ খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি নিষেধ করে দিয়েছেন যে, তোমরা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার হুকুম উনার খিলাফ, আদেশ মুবারক উনার খিলাফ অর্থাৎ খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার নাফরমানি করে, ফাসিকী কাজ করে, হারাম কাজ করে তথা বেপর্দার কাজ করে পবিত্র হজ্জ করো না।
তাহলে বেপর্দা ও ছবি তোলার ন্যায় নাফরমানিমূলক কাজ করে পবিত্র হজ্জ করবে কিভাবে? খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি তো সেটা নিষেধ করেছেন। মহান আল্লাহ পাক উনার সে নিষেধ উপেক্ষা করাটা চির লানতগ্রস্ত ও চিরজাহান্নামী ইবলিসের ধোঁকা ও অনুসরণ নয় কি?

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে