বৈশাখের চৈত্র মেলা বা হিন্দু মেলার ইতিহাস, মুসলিমবিদ্বেষীতার ইতিহাস


“হিন্দু পুনরুথানবাদী আন্দোলনের ধারায় একটি প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করে তা হলো চৈত্র মেলা বা হিন্দু মেলা। এই মেলা প্রতিষ্ঠা এবং মেলা কার্য্যক্রমের সাথে জোড়াসাকোর ঠাকুর পরিবার ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলো। ১৮৬৭ সালে নবগোপাল মিত্র এই মেলা প্রতিষ্ঠা করে।
এই শতকের আশির দশকের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত এই মেলার কার্য্যক্রম চলতে থাকে। প্রধানত প্রাচীন ভারতীয় সনাতনী রীতি পদ্ধতি মোতাবেক সামাজিক চালচলন প্রতিষ্ঠাই ছিল এই মেলার মুখ্য উদ্ধেশ্য।

মেলার নাম থেকেই বুঝা যায় একটি সাম্প্রদায়িক সঙ্ঘঠন হিসেবেই এই মেলার আত্বপ্রকাশ।
হিন্দু পুনরুথানবাদী আন্দোলনের অন্যতম প্রধান প্রতিষ্ঠান হিন্দু মেলার প্রথম অধিবেশন হয় ১৮৬৭ সালের ১২ এপ্রিল বেলগাছিয়ায়।
২য় অধিবেশন ১৮৬৮ সালে , ৩য় ১৮৬৯,৪র্থ ১৮৭০ , পঞ্চম ১৮৭১ , ৬ষ্ঠ ১৮৭২, ৭ম ১৮৭৩, ৮ম ১৮৭৪, ৯ম ১৮৭৫,১০ম ১৮৭৬, একাদশ ১৮৭৭, ১৮৭৮ সালে দ্বাদশ, ১৮৮০ সালে চতুর্দশ অধিবেশন হয়।

( অধ্যাপক ড. নুরুল ইসলাম মনজুর লিখিত ‘শতবর্ষ পরে ফিরে দেখা ইতিহাস বঙ্গভঙ্গ ও মুসলিম লীগ, পৃঃ ১৮,২৯ )

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে