মহাসম্মানিত সুন্নত মুবারক কায়িনাতব্যাপী প্রচার-প্রসারের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত- ‘আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’ বিস্ময়কর এক শান মুবারক


মহাসম্মানিত মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক সারা কায়িনাতব্যাপী প্রচার-প্রসারের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত- ‘আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’ প্রতিষ্ঠা ও বাস্তবায়ন করে, রাজারবাগ শরীফ উনার মহাসম্মানিত মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বেমেছাল অভূতপূর্ব শান মুবারক প্রকাশ করেছেন। সুবহানাল্লাহ!
পবিত্র সুন্নত মুবারক উনার ফযীলত মুবারক প্রকাশে রাজারবাগ শরীফ উনার মহাসম্মানিত মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানার্থে উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র শান মুবারক প্রকাশার্থে পবিত্র সুন্নত মুবারক উনার সীমাহীন ফযীলত মুবারক প্রকাশ করেছেন।
তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন- “সৃষ্টির শুরু থেকে ক্বিয়ামত অবধি হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারা, উনাদের সমস্ত উম্মত, পূর্ববর্তী এবং পরবর্তী সমস্ত হযরত আউলিয়া কিরাম রহমাতুল্লাহি আলাইহিম উনারা সহ দুনিয়ার সমস্ত মানুষের সমস্ত নেক আমলগুলো যদি মীযানের এক পাল্লায় রাখা হয় এবং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র একটি সুন্নত মুবারক এক পাল্লায় রাখা হয়; তাহলে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সেই একটি সুন্নত মুবারক উনার ওজন তথা ফযীলত মুবারক-ই সবচেয়ে বেশী ভারী ও সর্বশ্রেষ্ঠ-সর্বোত্তম এবং সম্মানিত হবেন।” সুবহানাল্লাহ ওয়া সুবহানা রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম।
আর সেই সম্মানিত ফযীলত মুবারক সমূহ যাতে সমস্ত উম্মত লাভ করতে পারে, সেই লক্ষ্যে রাজারবাগ শরীফ উনার মহাসম্মানিত মুর্শিদ ক্বিবলা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র সুন্নত মুবারকগুলো সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্মভাবে তাহক্বীক্ব করে বের করে জারী করছেন। এক কথায় পায়ের তলা থেকে মাথার তালু এবং হায়াতের শুরু থেকে ইন্তেকাল পর্যন্ত সমস্ত সুন্নত মুবারক তথা যিন্দেগীর শতভাগ সুন্নত মুবারকগুলো জানিয়ে দিচ্ছেন। সুবহানাল্লাহ!
এমনকি সেই সমস্ত সুন্নত মুবারক পালন প্রচার প্রসারের সুবিধার্থে প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’।
যাতে করে উম্মত সেই মর্যাদাপূর্ণ সুন্নত মুবারকগুলো পালন করে হাক্বীক্বী নিসবত এবং ফযীলত মুবারক হাছিল করতে পারেন, যেমনটা হাছিল করেছেন হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা। সুবহানাল্লাহ!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে