মুসলমানদের হজ্জ নষ্টকরণে নিরাপত্তার নামে সিসি ক্যামেরার ব্যবহার! ইহুদী-খ্রিস্টানদের গভীর ষড়যন্ত্র


হজ্জকে বলা হয় জামিউল ইবাদত। সামর্থ্যবানদের উপর জীবনে একবার হজ্জ করা ফরয। মুসলমানদের চিরশত্রু ইহুদী-খ্রিস্টানদের চক্রান্ত এখানেও থেমে নেই। কালামুল্লাহ শরীফ-এ খালিক্ব, মালিক, রব মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেন, “আহলে কিতাবদের (ইহুদী-খ্রিস্টানদের) অধিকাংশ চায় কি করে মুসলমানদের ঈমান আনার পর আবার কাফিরে পরিণত করা যায়।’
ইহুদী-খিস্টানরা তাই কৌশলে মুসলমানদের ঈমান-আমল নষ্ট করার জন্য উলামায়ে ‘সূ’দের দ্বারা হারাম ও গুমরাহীর মিশ্রণ ঘটিয়েছে। তারা মুসলমানদের হজ্জ নষ্ট করার জন্য নিরাপত্তার অজুহাতে হেরেম শরীফ, মক্কা শরীফ, মিনা, আরাফাহ, মুযদালিফা প্রভৃতি স্থানে হাজার হাজার ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ও টিভি স্থাপন করেছে। অতিসত্বর এই সংখ্যা আরও বাড়াবে বলে জানিয়েছে। অথচ ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা কখনও নিরাপত্তা দেয় না।
একটি সিসি ক্যামেরা দ্বারা সেকেন্ডে কমপক্ষে ৪০০টি ছবি উঠে থাকে। তাহলে ১০ হাজার সিসি ক্যামেরা দ্বারা এক সেকেন্ডে একজন লোকের কতগুলো ছবি উঠবে তা ভাববার বিষয়। আর কোটি কোটি হাজীদের প্রতিনিয়ত কত কোটি ছবি উঠবে ও কত কোটি কবীরা গুনাহ হবে তা ভাবলে আশ্চর্য হতে হয়। হাদীছ শরীফ-এ রয়েছে, “প্রাণীর ছবি থাকলে রহমতের ফেরেশতা থাকে না।” আর ইহুদীরা পুরো হজ্জের ময়দানকে রহমত শূন্য করার জন্য এই ষড়যন্ত্র করেছে। তাছাড়া সবসময় একটি স্যাটেলাইট কাবা শরীফ-এর উপর স্থির করে রেখেছে। এটি অনবরত কাবা শরীফ-এর ভিডিও ছবি ধারণ করে যাচ্ছে। এর দ্বারা ইহুদীরা একদিকে মুসলমানদের সমস্ত গোপন তথ্য সংগ্রহ করছে। নাঊযুবিল্লাহ!
অপরদিকে সূক্ষ্ম ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে হজ্জের মতো একটি পবিত্র ইবাদতকে সুকৌশলে নষ্ট করছে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

One Comment

Leave a Reply

[fbls]
  1. আরে ভাই সিকিউরিটির ব্যবস্থা করলে কত লোকের চাকরি হবে, কত লোক মক্কা শরীফ মদীনা শরীফের কাছে থাকতে পারবে, ইসলা হতে পারবে। কত লোকের ব্যবসাওে হবে, কিন্তু আমাওদে দুর্ভাগ্য যে সৌদি আরব বাঁকা পথে হাটতে ই ভাল বাসে।