মুসলমান যদি শাফায়াত ও নাজাত চাও, তবে মুনাফিক সউদী ইহুদী ওহাবী মুনাফিক সরকারের বিরুদ্ধে রূখে দাঁড়াও


কোনো উম্মতের পক্ষে সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শাফায়াত, সুপারিশ, তায়াল্লুক, নিসবত ব্যতীত পরিত্রাণ লাভ করা কাস্মিনকালেও সম্ভব হবে না; তা কবরে, হাশরে, মীযানে, পুলছিরাতে, হাউজে কাওছারে যেখানেই হোক না কেন।
স্মরণীয় যে, মুসলমান মাত্রই উনারা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মত। আর কোনো উম্মত ততক্ষণ পর্যন্ত মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি, নিয়ামত ও জান্নাত লাভ করতে পারবে না এবং মহান আল্লাহ পাক উনার অসন্তুষ্টি, লা’নত ও জাহান্নাম থেকে রেহাই বা পরিত্রাণ লাভ করতে পারবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না তারা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি ঈমান না আনবে, উনাকে অনুসরণ না করবে, সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও উনার রওযা পাক যিয়ারত না করবে, উনার প্রতি বিশুদ্ধ আক্বীদা না রাখবে।
উল্লেখ্য, মুনাফিক সউদী ওহাবী ইহুদী সরকার গোষ্ঠী পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের দৃষ্টিতে তারা মুসলমানের অন্তর্ভুক্ত নয়। কারণ তাদের আক্বীদা ও আমলের মধ্যে বহু কুফরী রয়েছে। যেমন, তাদের আক্বীদা হচ্ছে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জিসিম মুবারক মাটির সাথে মিশে গেছে। নাউযুবিল্লাহ! তাদের আরো কুফরী আক্বীদা হচ্ছে, পবিত্র রওযা শরীফ যিয়ারত করা শিরক। নাউযুবিল্লাহ! তাই তারা বর্তমানে রওযা শরীফ উনার নিশানা মুছে ফেলার জন্য ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। নাউযুবিল্লাহ!
অতএব, মুসলিম উম্মাহর জন্য ফরয হচ্ছে, নিজেদের ঈমানের দাবিতে এবং আখিরাতের প্রতিটি ঘাঁটিতে মুক্তি পেতে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রকাশ্য দুশমন ইহুদীবশংবদ ও এজেন্ট মুনাফিক সউদী ওহাবী সরকার নিধনে রুখে দাঁড়ানো।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+