যে ব্যক্তি নিজেকে মুসলমান দাবি করবে আবার পূজার শুভেচ্ছাও দিবে সে কিন্তু মুশরিক হয়ে যাবে


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন,

“নিশ্চয়ই মুশরিকরা নাপাক।” (পবিত্র সূরা তওবা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-২৮)

“তোমরা ছবি বা মুর্তির অপবিত্রতা বেঁচে থাকো এবং মিথ্যা কথা বা (গান-বাজনা, নাটক-সিনেমা, কাল্পনিক, মনগড়া-বানোয়াটি কাজ) থেকে বেঁচে থাকো।” (পবিত্র সূরা হজ্জ্ব শরীফঃ ৩০)

“নিশ্চয়ই তোমরা মুসলমান উনাদের জন্য সবচেয়ে বড়শত্রু হিসেবে পাবে ইহুদীদেরকে অতঃপর মুশরিকদের।” (পবিত্র সূরা মায়িদা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৮২)

আর নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন “মূর্তি ধ্বংস করার জন্যেই আমি প্রেরিত হয়েছি”

সুতরাং এতো নিষেধ থাকার পর ও যে ব্যক্তি মুশরিকদের পূজায় যাবে/সাহায্য করবে সেও তাদের দলভুক্ত হয়ে যাবে অর্থাৎ মুশরিক হয়ে যাবে।। (প্রমাণিত)

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে