যে ব্যক্তি মসজিদ ভাঙ্গে বা উচ্ছেদ করে সে ব্যক্তি সবচেয়ে বড় যালিম


যিনি খালিক্ব, যিনি মালিক, যিনি রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- ওই ব্যক্তির চেয়ে বড় যালিম কে আছে যে পবিত্র মসজিদে মহান আল্লাহ পাক উনার যিকির আযকার করতে বাধা প্রদান করে।”
উল্লেখ্য যে, মসজিদ মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত হয়েছে- নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-
اَلْـمَسْجِدُ بَيْتُ الله
অর্থ:- “পবিত্র মসজিদ মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর।” সুবহানাল্লাহ!
মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর উনার মূল হচ্ছেন পবিত্র কা’বা শরীফ। যা সৃষ্টির শুরু থেকে মোট দশবার পুনঃনির্মিত হয়েছেন।
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে-
“হযরত খলীলুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি মহান আল্লাহ পাক উনার মুবারক নির্দেশে উনার সম্মানিত আওলাদ হযরত যবীহুল্লাহ আলাইহিস সালাম উনাকেসহ পবিত্র কা’বা ঘর পুনঃনির্মাণ করার পরে পুরাতন ঘর মুবারকের অনেক পাথর অতিরিক্ত হিসেবে থেকে গেল। সেই অতিরিক্ত পাথর মুবারকগুলি কি করা হবে সে বিষয়ে হযরত খলীলুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে আরজু করার প্রেক্ষিতে মহান আল্লাহ পাক তিনি উনাকে নির্দেশ মুবারক দিলেন- “কিছু পাথরে اَللهُ (আল্লাহ) আর কিছু পাথরে مُـحَمَّدٌ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَ سَلَّمَ (মুহম্মদ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) লিখে সেগুলি পৃথিবীর চতুর্দিকে নিক্ষেপ করতে। মুবারক নির্দেশ অনুযায়ী উনারা দুজনে মিলে সেই পাথর মুবারকগুলি পৃথিবীর চতুর্দিকে নিক্ষেপ করলেন। الله (আল্লাহু) লিখা পাথর মুবারক যে স্থানে পতিত হয়েছেন ক্বিয়ামতের পূর্বে হলেও সেখানে একটি মসজিদ নির্মিত হবে। আর নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র নাম মুবারক লিখিত পাথর মুবারক পৃথিবীর যে স্থানে পতিত হয়েছেন ক্বিয়ামতের পূর্বে হলেও সে যমীনে একটি মাদরাসা তৈরি হবে। সুবহানাল্লাহ!
সুতরাং কোনো স্থানে কোনো মসজিদ নির্মিত ও প্রতিষ্ঠিত হলেই বুঝতে হবে, সেই জায়গা মহান আল্লাহ পাক উনার কুদরতী স্থান ও হযরত খলীলুল্লাহ আলাইহিস সালাম উনার নিক্ষিপ্ত পাথর মুবারক পতিত হওয়া স্থান।
কাজেই উক্ত স্থানকে সম্মান করা ও সেই মসজিদের হিফাযত ও খিদমতের আনজাম দেয়া কায়িনাতবাসীর জন্য ফরয-ওয়াজিবের অন্তর্ভুক্ত।
এছাড়া কেউ যদি পবিত্র মসজিদসমূহে ইবাদত-বন্দেগী, যিকির-আযকার করতে বাধা প্রদান করে অথবা মুসলমানগণ যেন ইবাদত করতে না পারে সেজন্য পবিত্র মসজিদসমূহ ভেঙ্গে ফেলে, মহান আল্লাহ পাক তিনি উপরোক্ত পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে সে ব্যক্তিকেই সবচেয়ে বড় যালিম বলে সম্বোধন করেছেন।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]