শরীয়তসম্মত বহুবিবাহ ও বাল্যবিবাহ নিয়ে যত সমালোচনা; অথচ অবৈধ সম্পর্ক নিয়ে কোনো কথা নেই!


মুসলমানদের চিরশত্রু ইহুদী, নাছারা, কাফির, মুশরিকরা কি করে মুসলমানদের ক্ষতি করবে এবং মিথ্যা কল্পকাহিনী রটাবে- এই চিন্তায় মগ্ন থাকে সারাক্ষণ।
সম্মানিত দ্বীন ইসলাম মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন; অন্য সকল ধর্মই বাতিল। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম একটি পরিপূর্ণ, নিয়ামতপূর্ণ এবং সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত দ্বীন। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবনব্যবস্থা। হিংসা ও শত্রুতার কারণে বিধর্মীরা এ সত্য বুঝতে পেরেও নানা অযৌক্তিক মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে থাকে।

সম্মানিত দ্বীন ইসলাম সম্মত বহুবিবাহ এবং বাল্যবিবাহ নিয়ে ওদের কত না প্রচারণা। কিন্তু আজ সময়ের বাস্তবতায় এই বহুবিবাহ অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বলে প্রতীয়মান হয়েছে। যে বিষয়টি কাফির, মুশরিকরা বুঝে না- তাহলো এই প্রথাদ্বয় নিয়মিত ব্যবস্থা নয়; যেমন বিবাহ বিচ্ছেদ। শুধু বিশেষ প্রয়োজনেই একজন মুসলমানকে মহান আল্লাহ পাক তিনি চারটা পর্যন্ত বিবাহের বিধান দিয়েছেন। যে কারণে আজ দেখা যাচ্ছে, হিন্দুরা মুসলমান উনাদের চেয়ে বেশি বহুবিবাবহ করে থাকে যদিও হিন্দু ধর্ম মতে বহুবিবাহ নিষিদ্ধ। আর ইহুদী-নাছারাদের কথা স্বতন্ত্র- ওদের সমাজ থেকে বৈধ বিবাহ প্রথাই উঠে যাচ্ছে। একাধিক অবৈধ সম্পর্ক রাখতে ওরা বেশি পছন্দ করে। নাঊযুবিল্লাহ!

বাল্যবিবাহও এমনই একটি প্রথা। শুধু অতি প্রয়োজনেই এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় কাফির-মুশরিকদের অবৈধ কিশোরী মাতা হতে কেনো বাধা নেই! বাধা শুধু মুসলমান উনাদের বৈধ সম্পর্কের সময়। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে কোনো বাড়াবাড়ি নেই- এটা বুঝার মানসিকতা বিধর্মীদের নেই। চিন্তা-চেতনার ত্রুটির পাশাপাশি হিংসা ও বিদ্বেষবশতই এই সমালোচনা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]