সরকারী আমলারা কার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে?


মুনাফিক ঐ ব্যক্তি যার জবানে একটা, অন্তরে আরেকটা। ৯৮ ভাগ মুসলমান উনাদের দেশের সরকারি আমলারা অধিকাংশই মুসলমান। তারা নামায পড়ে, রোযা রাখে। অন্তরে কাফির-মুশরিকের মুহব্বত। নাউযুবিল্লাহ! বন্ধুত্ব মুশরিকদের সাথে, তাদের কথায় উঠে বসে। নাউযুবিল্লাহ!
এমন প্রশাসন বা আমলারা যে দেশে থাকে সে দেশের মুসলমান কখনো ঈমান হিফাযত করতে পারে না। বর্তমানে সেটাই আমরা দেখতে পাচ্ছি। বর্তমানে বেশিরভাগ মুসলমানদের অবস্থা এমন হয়েছে যে, তারা নামায পড়ে, রোযা রাখে, হজ্জ করে, যাকাত দেয়। অথচ তারা হরদম ছবি তুলে টিভি দেখে, বেপর্দা হয়, পহেলা বৈশাখ পালন করে, কাফির-মুশরিকদের পোশাক পড়ে। অর্থাৎ যত হারাম কুফরী আছে সবই করে। নাউযুবিল্লাহ!
অন্যায়ের প্রতিবাদ করা, প্রতিরোধ করার যে ঈমানী কুওওয়াত থাকা প্রয়োজন ছিল, তা তাদের নেই। তারা বোবা শয়তানের মতো চুপ করে থাকে। নাউযুবিল্লাহ!
এই সরকার ক্ষমতায় আসার আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে, পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের খিলাফ কোনো আইন পাস করবে না। অথচ ক্ষমতায় এসে তার উল্টোটা করতেছে। নাউযুবিল্লাহ! স্কুল কলেজের সিলেবাসে মুশরিকদের বিষয়গুলো প্রবেশ করিয়েছে। নাউযুবিল্লাহ! খাছ সুন্নতী বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন করেছে। নাউযুবিল্লাহ! তাহলে সরকার কার ভূমিকা পালন করছে। অতএব, সরকারি লোকদের উচিত খাছভাবে ইস্তিগফার, তওবা করা এবং যামানার মহান মুজাদ্দিদে আ’যম উনার ছোহবতে এসে সব বিষয়ে পরামর্শ নিয়ে কাজ করা। তবেই তারা কঠিন আযাব থেকে বাঁচতে পারবে। নতুবা তাদের জন্য কঠিন আযাব অপেক্ষা করছে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]