হে হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম! আপনার মুবারক বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ উনার মুবারক দিনে আপনাকে জানাই অভিনন্দন


হাদিউল উমাম -জিন্দাবাদ
ছানী শাহদামাদ-জিন্দাবাদ
ঈদে মীলাদ -জিন্দাবাদ
হে নূরী শাহদামাদ! আরশের পরশে, রওজায় মিশে, অতি নিমিষে আপনার আগমন। শুকরিয়া জানাতে, মাহফিল রাঙাতে, নূরী প্রভাতে, উজ্জীবিত সকল হৃদয় মন। মন মননে, হৃদী কাননে, মুবারক শানে, লিখিবার নেই ভাষা। শুধু দয়া, শুধু মায়া, নজরি ছায়া পাওয়া, মোর আশা। লিখনীর ছোঁয়া, হবে না ভুয়া, করেন যদি ইহসান। ছোট হলেও হবে তা অফুরান। আপনি হাবীবী নন্দন, চাই আপনার বন্দন, চাই নিছবতী করিডোর। একটু ছায়া, একটু মায়া, পেলেই শুভ হবে মোর ভোর। করুন ইহসান, চাই দয়া দান, চাই অফুরান, আপনার মুবারক কদমে, নূরানী হৃদে রাখুন বেঁধে বলি কেঁদে কেঁদে তাড়াবেন না অধমে। আপনি আলীশান, আপনি মহীয়ান, আপনি দয়াবান, রাখি আমি বিশ্বাস। ফজল, করম, রহম, পরম পেলে ছাড়তে পারবো নিঃশ্বাস। এ আমার অভিষেক আরজি কদমে ভেজি, থাকুন রাজি, মুবারক দিন আজি, শুধু এ দিনের তরে। হে আক্বাজী, হে দাতাজী করুন মর্জি, রাখুন মুবারক দ্বারে।
হে সাইয়্যিদী খান্দান!
ধরা সাজিয়ে, মাখলুক মজিয়ে, নূর চমকিয়ে, আঁধার থমকিয়ে, সুবাস ছড়িয়ে, সুন্নত জড়িয়ে, রূপালী অবয়বে, নিথর নীরব আজকের মহান দিনে আপনার মুবারক তাশরীফ সত্যিই আমাদেরকে করেছে বিমোহিত, আলোড়িত, আন্দোলিত ও আনন্দ মুখর। মুবারক নূরী পরশ মাখা শুভ দিবসে আপনাকে জানাই কায়িনাতের জানা অজানা সমস্ত পুষ্পমালার শুভেচ্ছা। অতি আদরে, দয়া ও সাদরে আপনি আমাদের শুভেচ্ছা গ্রহণ করুন।
হে তারাক্কির মিনহাজ!
আপনি তাশরীফ নিয়ে আমাদের করেছেন মুগ্ধ, ধন্য ও বরকতময়। আমরা যা পূর্বে বুঝতাম না, জানতাম না, মানতাম না, ভ্রুক্ষেপ করতাম না, ইতমিনান মনে করতাম না তা সবই আপনি বুঝিয়ে দেন, নজরে এনে দেন, জানিয়ে দেন, ইতমিনান বানিয়ে দেন। তাই আপনি হচ্ছেন আমাদের তারাক্কির মিনহাজ। মুর্শিদী রেযা পেতে আপনি আমাদের পরম সহায়ক।
হে ছহিবে নিজাম!
উল্টোপাল্টা, এলোমেলো, অগোছানো, দৃষ্টিকটু ইত্যাদি কার্যক্রমে, আমলে আমরা ছিলাম বিভোর। আপনার সুনির্দেশিকা, সুপরামর্শ, মুবারক আদেশ-নিষেধ, তর্জ-তরীক্বা, নিয়ম-নীতি আমাদেরকে করেছে সুশৃঙ্খল, সুবিন্যস্ত, সুনিপুণ। তাই আমরা দৃঢ়চিত্তে এক বাক্যে বলতে বাধ্য হবো আপনি হচ্ছেন ছহিবে নিজাম।
হে রূপালী চাঁদ!
ব্যক্তির ভালো কথাও ভালো লাগে না, ভালো জিনিসও পছন্দ হয় না, যদি না ধরে অন্তরে। তাই তো প্রবাদে বলা হয়েছে- যাকে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা। আর আপনার রূপালী চাঁদ সদৃশ অবয়বের মাঝ থেকে দু’খানা হেলালের মতো শাফাতাইন নিসৃত মধুমাখা ঐশী বাণীমালা সত্যি আমাদেরকে আবেগাপ্লুত করে দেয়। আজীব করে দেয়, মোহনীয় করে দেয়, যার কারণে দায়িমী শুনতে ইচ্ছে করে আপনার মুবারক নছিহত, ওয়াজ শরীফ, পরামর্শ শরীফ, সুনির্দেশনা শরীফ।
ইয়া শাহদামাদে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম!
সুমহান মুজাদ্দিদ যেমন কোশেশ করে, রিয়াজাত, মাশাক্কাত করে হওয়া যায় না। ঠিক তেমনি কোশেশ, রিয়াজত, মাশাক্কাত করে মুজাদ্দিদ উনার দামাদ হওয়াও যায় না। কেননা এই বিষয়গুলো হলো মুরাদ, মক্ববুল, মাহবুব, তথা মনোনীত হওয়া বিষয়ের গ-িতে والله يختص برحمته من يشاء
খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি যাকে উনার রহমতে খাছ দ্বারা বেষ্টন করে নেন, উনারাই হতে পারেন মুজাদ্দিদ, হতে পারেন উনার শাহদামাদ।
ইয়া হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম!
আপনার মুবারক লক্বব বুঝিয়ে দেন আপনি কত বড় মাক্বাম উনার ওলীআল্লাহ। আপনি কায়িনাতের সকল উম্মতের পথ-প্রদর্শক। আপনি বিদয়াত, বিশরা, কুফর, শিরক ইত্যাদি থেকে উম্মাহকে টেনে বের করে ফরয-ওয়াজিব সুন্নতের পাবন্দ করে দেন। কাফিরকে করেন মুসলমান। বিদয়াতীকে করেন ইছলাহ। বেহায়াকে করেন রুচিসম্মত স্বাভাবিক।
হে ওয়ারাউল ওয়ারা!
আপনার শান আলীশান, অফুরান। আপনার সব শানের বিকাশ হয়েছে আজকের এই মুবারক ৯ই জুমাদাল ঊলা শরীফ-এ। তাই মুবারক এদিনে আপনাকে আবারও জানাই আহলান, সাহলান, স্বাগতম, খোশ আমদেদ। শুভ বিলাদত জিন্দাবাদ, ৯ই জুমাদাল ঊলা শরীফ জিন্দাবাদ।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Leave a Reply

[fbls]