অনজু ঘোষ -blog


নির্মম সত্যি কথা বলি............। যা অনেকের কাছে খারাপ লাগে । কিন্তু তাতে আমার কিছু আসে যায় না .....................


 


বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের বিচার চাই !!!


যারা মনে করে ইসরাইল,আমেরিকা অথবা রেন্ডিয়ার সহায়তায় বিরোধী রাজনৈতিক দল অথবা ক্ষমতাসীন দলকে শায়েস্তা করা বা ক্ষমতাচ্যুত করে নিজেদের অবস্থান শক্ত করাই যুক্তিযুক্ত এরা নিকৃষ্ট দেশোদ্রোহী,এদের ফাঁসি হওয়া উচিত| ওদেরকে জনসম্মুখে হত্যা করা উচিত ৷ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের বিচার চাই !!!



Say “NO” to Israeli & Rendian bastard agents in Bangladesh .


Dear Bangladeshi Friends; Say “NO” to Israeli & Rendian bastard agents in Bangladesh . We love Bangladesh.



সরকার কি নিজের প্রতি আস্থা হারিয়ে ফেলেছে, যে আমেরিকা ভারতের সাহায্য নিয়ে অপরাধ দমন করতে হবে?


বাংলাদেশের জনগণ কি তাদেরকে দ্বায়িত্ব দিয়েছে দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বহিরাগত দের অনুপ্রবেশ করবে কি করবে না সেটা সিধান্ত নেয়ার? দেশে সরকারের প্রশাসন থাকতে, এতো বিজ্ঞ পুলিশ, RAB, সি আই ডি, সেনাবাহিনী থাকতে ভারত আর আমেরিকার হস্তক্ষেপের কি কোনো প্রয়োজন আছে? জনগণের



রেন্ডিয়ানরা কোন দিন বাংলাদেশের ভাল চায় না !!!


সাপের বাচ্চা কখনো ভাল হয়না। যদিও সে (সাময়িক) ভাল হয় তবুও সে সাপের বাচ্চাই !!! রেন্ডিয়ানরা কোন দিন বাংলাদেশের ভাল চায় না !!! যদিও সে অনেক চুক্তি করুক আর মিস্টি কথা বলুক না কেন !!!!



সজীব ওয়াজেদ জয়ের যখন জন্ম হয় তখন পুরো জাতি স্বাধীনতার জন্যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে লিপ্ত ছিল।


সজীব ওয়াজেদ জয়ের যখন জন্ম হয় তখন পুরো জাতি স্বাধীনতার জন্যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে লিপ্ত ছিল। এই বেলায় একটা আশ্চর্যজনক কন্ট্রাস্ট বা বৈপরীত্য দেখা যায়। যে পাক আর্মি সারা দেশে অসংখ্য নারীর প্রতি অমানবিক আচরন করেছে – সেই পাক আর্মিই জয়ের গর্ভবতি



মেয়েদের ওড়না সমাচার””””


»%%%%মেয়েদের ওড়না সমাচার””””১৯৯০ সাল….. মা→ওড়না দিয়ে রাখবি সব সময়। নাইলে মাইর দিব কিন্তু… ‘ ★২০০০ সাল★ মা→একটু ওড়না টা দিয়ে চলবি।নাহলে লোকে কি ভাববে? ‘ ★২০১০ সাল★ মা→একটু ওড়না টা পরবি? আজ তোর দাদুর বন্ধু আসবে। মেয়ে→ উফু, মা যাও তো।বিরক্ত



সত্যিকারের মানুষ সবসময় মিষ্টভাষী ও অন্যের প্রতি সহমর্মী থাকে।


ছোট্ট একটি জিহবা, অথচ এই জিহবার কারনে মানুষ বুঝতে পারেনা কোন সময় কি বলে বসে।। এর কারনেই দুনিয়াতে মানুষ সম্মানিত হয়, আবার এর কারনেই অসম্মানিত হয়। বিভিন্ন ধর্মে যত আদেশ নিষেধ রয়েছে- এর মাঝে সব চেয়ে আদেশ নিষেধ রয়েছে মানুষের শিষ্টাচার



আমি বেঁচে থাকতে এই দেশকে নিয়ে কাউকে খেলতে দেব না,” —–শেখ হাসিনা।


“অনেকে(আমেরিকা-ভারত) চাইবে, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস আছে দেখিয়ে দেশটাকে নিয়ে খেলতে। (অর্থাৎ ড্রোন হামলা চালিয়ে বাংলাদেশকে ইরাক , সিরিয়ার মত যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশে পরিণত করে লুটপাট করতে ) আমি বেঁচে থাকতে এই দেশকে নিয়ে কাউকে খেলতে দেব না,” —– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।



ঢাকায় ভারতীর দূতাবাস থেকে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা “র”এর সকল কার্যক্রম পরিচালিত হয় ।


ঢাকায় ভারতীর দূতাবাস থেকে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা “র”এর সকল কার্যক্রম পরিচালিত হয় । ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা রিসার্স অ্যান্ড এনালাইসিস উইং বা “র” পার্শ্ববর্তী সব দেশের (অর্থাৎ বাংলাদেশে ) রাজনৈতিক ও সামরিক ঘটনাবলি ও অবস্থান যা ভারতের জাতীয় নিরাপত্তার সাথে জড়িত এবং



“আমার চোখের সামনে আমার মেয়ে বড় হচ্ছে,


নাস্তিক লুচ্চা হুমায়ূন আযাদ তাঁর এক বইতে লিখেছে, “আমার চোখের সামনে আমার মেয়ে বড় হচ্ছে, কিন্তু সামাজিক নিয়মের বেড়াজালে আমার হাত-পা বাঁধা”। বাংলাদেশে কিছু নাম করা জঘন্য ব্যক্তি আছে যারা পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট। তাদের মধ্যে একজনের নাম হচ্ছে হুমায়ুন আযাদ ।



রাস্তায় যখন থার্ড ক্লাস কিছু অশ্লীল মুভির অর্ধ নগ্না কিছু তরুণীর পোস্টার লাগানো থাকে


রাস্তায় যখন থার্ড ক্লাস কিছু অশ্লীল মুভির অর্ধ নগ্না কিছু তরুণীর পোস্টার লাগানো থাকে লজ্জ্বায় যখন আপনি মাথা নিচু করে কিছু না দেখার ভান করে চলে যাচ্ছেন তখন আপনার বাচ্চাটাই সেই পোস্টার টা অত্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পর্যবেক্ষণ করছে! অল্প বয়সেই তারা



সরকারের সৎ ইচ্ছা থাকলে এসব নাস্তিকদের লেখা বন্ধ করে দিতে পারে;


বাংলাদেশের আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থা “সি আই এ” এর বাংলাদেশী এজেন্টরা এবং রেন্ডিয়ার গোয়েন্দা সংস্থা “র” এর হিন্দু এজেন্টরা এসব নাস্তিকদের লালন- পালন করে, প্ৰয়োজন শেষে খুন করে ৷ আর বিশ্বের কাছে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে ৷ সরকারের সৎ ইচ্ছা থাকলে এসব