মাসউদুর রহমান -blog


...


 


সুমহান মহাপবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার ৭, ৮, ১১, ১২, ১৩, ১৪ এবং ১৬ তারিখ সম্মানিত আইয়্যামুল্লাহ শরীফ উনাদের


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! সুমহান মহাপবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার ৭, ৮,



মহাসম্মানিত-মহাপবিত্র পারিবারিক তা’লীম মুবারক


মহাসম্মানিত-মহাপবিত্র পারিবারিক তা’লীম মুবারক (১৯ শাওওয়াল শরীফ-২২ শাওওয়াল শরীফ) পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে সহজ করেই মহান আল্লাহপাক যিনি খালিক্ব, মালিক, রব তিনি এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূরপাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা হাদীয়া মুবারক করেছেন। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ



সেলোয়ার পরিধান করা পবিত্র সুন্নত মুবারক


কিতাবে বর্ণিত রয়েছে, لُبْسُ السَّرَابِيْلِ سُنَّةٌ وَ هُوَ مِنْ اَسْتُرِ الثِّيَابِ لِلرِّجَالِ وَالنِّسَاءِ كَذَا فِى الْغَرَائِبْ )فتوى عالمگيرى الجزء الرابع( অর্থ: গারায়িব নামক কিতাবে রয়েছে, সেলোয়ার পরিধান করা পুরুষ মহিলা উভয়ের জন্য পবিত্র সুন্নত মুবারক। (ফাতওয়ায়ে আলমগীরী চতুর্থ খন্ড) মহিলাদের জন্যেও



বাল্যবিবাহকে কটাক্ষ করা কখনোই শরীয়তসম্মত নয়, বরং কুফরী


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার মাধমেই বাল্যবিবাহকে পবিত্র সুন্নত মুবারক হিসেবে সাব্যস্ত করেছেন। কারণ উনার নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে উনার নিসবাতে আযীমাহ মুবারক



অশ্লীল কথা থেকে সবাইকে বেঁচে থাকতে হবে


রাজনীতির নামে- মাঠে ময়দানে, বুদ্ধি বিক্রির টক শো’র নামে হারাম টেলিভিশন চ্যানেলে, ওয়াজের নামে বিদাতী ধর্মব্যবসায়ীদের বয়ানে, গল্প গুজবের নামে হোটেলে-চায়ের দোকানে যা হয় তা কখনোই সম্মানিত দ্বীন ইসলামসম্মত আমল নয়। এসব জায়গায় মিথ্যাকে আশ্রয় করে, আজগুবী কথাকে পুঁজি করে, অপরকে



মানুষকে কষ্ট দেয়ার এক কুফরী নীতির নাম হচ্ছে কথিত এই ‘স্বাস্থ্যবিধি’


অবস্থাটা এমন হয়েছে যে, কোন কাফির-মুশরিক কোন একটা বিষয় জারী করলে আমাদের দেশেও সেটা কায়িম করতেই হবে। নাউযুবিল্লাহ! কিন্তু সেটা কতটুকু ফায়দাজনক তা কখনো কি চিন্তা করেছে আমাদের দেশের কর্ণধাররা? বর্তমানে কাফিরদের প্রতি আপতিত মহাগযব করোনার কারণে কাফিররা তাদের দেশে লকডাউন



১লা শাওওয়াল শরীফ অন্যতম স্মরণীয় বরণীয় দিন


মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পাক কালাম উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি তাদেরকে মহান আল্লাহ পাক উনার দিনসমূহের কথা স্মরণ করিয়ে দিন। অবশ্যই ছবর ও শোকরকারীগণের জন্য সেই দিন সমূহে অনেক নিদর্শনাবলী রয়েছে।”



মহান পবিত্র বরকতময় ১লা শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! আখাছছুল খাছ আহলু বাইত শরীফ সাইয়্যিদাতুনা হযরত নাক্বীবাতুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমাকে মুহব্বত করার কারণে।” সুবহানাল্লাহ! সুমহান পবিত্র বরকতময় ১লা শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! আখাছছুল খাছ আহলু বাইত শরীফ সাইয়্যিদাতুনা



প্রসঙ্গঃ মসজিদে চেয়ারে নামায: স্বার্থ রক্ষায় সঠিক ফতওয়া দেয় না তারা


বর্তমানে মসজিদ কমিটিগুলোতে দেখা যায়, যে যতবেশি মসজিদে টাকা-পয়সা দেয় বা এলাকায় যে যত প্রভাবশালী তাদেরকেই কমিটির সভাপতি-সেক্রেটারী করা হয়। এ কারণে দেখা যায়, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাতো বটেই পাড়ার বড় বড় সন্ত্রাসীদেরকেও অনেক সময় কমিটির সদস্য হিসেবে রাখা হয়। নাউযুবিল্লাহ! আর



যাদের ঈমান-আক্বীদা শুদ্ধ নয় তাদেরকে যাকাত দেয়া যাবে না


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মাসয়ালা হলো, যারা অমুসলিম অর্থাৎ যারা ঈমানদার নয়, তাদেরকে ফরয-ওয়াজিব ছদকা অর্থাৎ যাকাত, উশর ফিতরা, মান্নত, কাফফারা, কুরবানীর চামড়া বিক্রির টাকা ইত্যাদি কোনোটাই দেয়া জায়িয নেই। একইভাবে যাদের আক্বীদার মধ্যে কুফরী রয়েছে। অর্থাৎ যারা নিজেকে মুসলমান হিসেবে



আমাদের এই অঞ্চল থেকে দস্যু ইংরেজ ব্রিটিশদের লুটপাটের খন্ডচিত্র


ইংরেজ নৌদস্যুদের লিডার ‘ক্লাইভ’ পলাশীর যুদ্ধ শেষে মীর জাফরের কাছ থেকে ২ লাখ ৩৪ হাজার পাউন্ড আত্মসাৎ করে রাতারাতি ইংল্যান্ডের শ্রেষ্ঠ ধনীতে পরিণত হয়।” (সূত্র-পি. রবার্টস, হিস্টরী অব ব্রিটিশ ইন্ডিয়া, পৃষ্ঠা ৩৮।) ১) ১৭৫৭ থেকে ১৭৬৫ সাল পর্যন্ত মাত্র কয়েক বছরে



পবিত্র শাওওয়াল শরীফ মাস উনার ১, ৪, ৭, ১২ ১৪, ১৯, ২০, ২১, ২২, ২৪ ও ২৫ তারিখ সম্মানিত


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমরা চাঁদ দেখে রোযা শুরু করো এবং চাঁদ দেখে ঈদ করো।’ সুবহানাল্লাহ! বাংলাদেশে পবিত্র শাওওয়াল শরীফ মাস উনার চাঁদ তালাশ করতে হবে আগামী ২৯শে রমাদ্বান শরীফ ১৪৪২ হিজরী