মাসউদুর রহমান -blog


...


 


যেই ‘ভালো’ খারাপকে প্রতিহত করার ইচ্ছা রাখে না, সেই ‘ভালো’ কখনোই ভালো নয়


কিতাবে বর্ণিত রয়েছে যে, “স্বয়ং আল্লাহ পাক তিনি ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে নির্দেশ মুবারক দিলেন যে, অমুক শহরটি আপনারা উল্টিয়ে দিয়ে আসুন, কারণ সেখানকার বাসিন্দারা চরম পাপাচারে লিপ্ত হয়েছে। তখন ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা আর্জি করলেন, আয় আল্লাহ পাক, উক্ত শহরে



পবিত্র আশুরা শরীফ যা শিক্ষা দেয়: হক্বের উপর ইস্তেক্বামাত থাকলে বিজয় নিশ্চিত হয় আর বাতিল-বিধর্মীদের ধ্বংস অনিবার্য


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ইমাম, সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছালিছ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার উপর ইস্তিক্বামাত থেকে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র শাহাদতী শান মুবারক গ্রহণ করে শাহাদাতী শান মুবারককে



পবিত্র আশুরা শরীফ পালনের মধ্যে মুসলমানদের যাবতীয় কল্যাণ নিহিত


পবিত্র আশুরা যিনি খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে বান্দাদের প্রতি অফুরন্ত দয়া ও ইহসান উনার নিদর্শন। কারণ পবিত্র আশুরা বান্দার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মুক্তি দানের উছিলা। মানুষ মাত্রেই সবসময়ই রুজী- রোজগার নিয়ে পেরেশানীতে থাকে। আর এই



প্রসঙ্গ শিক্ষাব্যবস্থার নতুন রূপ: বিশ্বব্যাপী ইহুদী ষড়যন্ত্রের মাস্টার প্ল্যান প্রটোকল অফ ইহুদী


(সারা বিশ্বের ভারসাম্য নষ্ট করে নিজেদের করতলে নেওয়ার জন্য ইহুদীরা শত শত বছর আগে তৈরী করে দুটি মাস্টার প্ল্যান। একটি ছিলো দুই শত বছর মেয়াদী মাস্টারপ্লান অপরটি ছিলো তিনশত বছরব্যাপী মাস্টারপ্ল্যন। যাকে বলা হয় প্রটোকল অফ ইহুদী। এটা পাঠে পাঠক অতি



লকডাউন-শাটডাউনের নামে সবকিছু বন্ধ করে এবং তাদের কথিত নিয়ম মানতে বাধ্য করে মানুষকে কষ্ট দেয়া মূলত কুফরী


কাফির মুশরিকরা মরে শেষ হয়ে যাবে কিন্তু মৃত্যুর পূর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত ষড়যন্ত্র করেই যাবে। তাদের কুফরী তারা বাস্তবায়নের চেষ্টা করেই যাবে। নাউযুবিল্লাহ! এজন্য তারা শাসক শ্রেণি, উলামায়ে সূ ও সমাজের কর্তধারদের টার্গেট করে তাদেরকে দিয়ে কার্যক্রম চালাচ্ছে। তাদের দ্বারাই মানুষকে কষ্ট



সুন্নতী বাল্যবিবাহ নিষিদ্ধ করতে এত উৎসাহ, কিন্তু বিবাহপূর্ব প্রেম-ভালোবাসার নামে অনৈতিক সম্পর্ক নিষিদ্ধ করতে কোন উদ্যোগ নেই কেন?


যারা বাল্যবিবাহ বন্ধ করার আইন করেছে ও যারা এ কাজে সহযোগিতা করছে তাদের জন্য ও পাঠকদের জন্য কিছু প্রশ্ন দিয়েই লেখাটি শুরু করতে চাই। গ্রামের একটি মেয়ের বিয়ে ভেঙ্গে গেলে কি হয়- একটি দরিদ্র পরিবার একবার বিয়ের আয়োজন করতে জমি-জমা বিক্রি



‘ধর্মনিরপেক্ষতা’ যে কত ভয়ংকর, তার বড় নমুনা তুরস্ক


কাফির-ইহুদী নাস্তিকগুলো ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বুলি আওড়িয়ে যেসব মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম উঠিয়ে দিয়েছিল- এর প্রত্যেকটি রাষ্ট্রের মুসলমানদের পরবর্তীতে কঠিন পরিণতি পোহাতে হয়েছিল। এর মধ্যে তুরস্ক জঘন্যতম। তুরস্কে যখন কামাল লা’নাতুল্লাহ আলাইহি সে কাফির-ইহুদী-খ্রিস্টান ও নাস্তিকদের দ্বারা প্রতারিত হয়ে



বিধর্মীদের ‘মহাত্মা’ ‘মহাপুরুষ’ প্রভৃতি উপাধি প্রদানের মাধ্যমে মুসলমানরা তাদের উপর পরিচালিত গণহত্যা ও সম্ভ্রমহানির ‘নৈতিক অবস্থান’ তৈরী করে দেয়


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নবুওয়্যতি শান মুবারক প্রকাশের পূর্ব হতেই উনার উপাধি মুবারক ছিল ‘আল-আমীন’, তথা আমানতদার ও সত্যবাদী। পরবর্তীতে নবুওয়্যতি শান মুবারক প্রকাশের পরে যখন কাফির-মুশরিকরা উনাকে পাগল, যাদুকর প্রভৃতি অপবাদ দেয়ার অপচেষ্টা করে,



সুমহান মহাপবিত্র ১৫ই যিলহজ্জ শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা যমীনবাসী অর্থাৎ সারা কায়িনাতের জন্য নিরাপত্তা স্বরূপ।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান মহাপবিত্র ১৫ই যিলহজ্জ শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল আশির মিন



আজ সুমহান ও বরকতময় মহাপবিত্র ৬ই যিলহজ্জ শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুত তাসি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার সেই উম্মতের জন্য আমার শাফায়াত মুবারক ওয়াজিব, যে উম্মত আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করেন।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান ও বরকতময় মহাপবিত্র ৬ই যিলহজ্জ



সুমহান মহাপবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার মহাসম্মানিত আইয়্যামুল্লাহ শরীফ উনাদের অন্তর্ভূক্ত। সুবহানাল্লাহ!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! সুমহান মহাপবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার ২, ৬,



সবাই টিভি দেখা বন্ধ করে দিলেইতো এই হারামীপনা বন্ধ হয়ে যায়


মুসলমানগণ আজ নিজেদের অনেক দুর্বল ও অসহায় মনে করে। হীনম্মন্যতায় ভোগে। কিন্তু আসলে ব্যাপারটি কখনোই এরকম হওয়ার কথা ছিলো না। মুসলমান আজ কোন অন্যায়, অত্যাচারের বিরুদ্ধে বলতে কার্পণ্য করে, হারাম-নাজায়িজ কাজের প্রতিবাদ করতে চায় না। কিন্তু মুসলমানরা যদি প্রতিবাদ স্বরূপ নিজেরাই