জুলফিকার -blog


...


 


সুমহান ও বেমেছাল ১৭ ও ১৮ই রমাদ্বান শরীফ- সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার ইতিহাসে এক বেমেছাল ফযীলতপূর্ণ, রহমতপূর্ণ, গুরুত্বপূর্ণ এবং


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’ সুমহান ও বেমেছাল ১৭ ও ১৮ ই রমাদ্বান শরীফ-



বেমেছাল ফযীলতপূর্ণ ৬ই রমাদ্বান শরীফ- আওলাদে রসূল সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ আছ ছালিছা, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মে কুলসুম আলাইহাস


রসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, অত্যন্ত স্নেহময়ী বিনতু এবং উনার সর্বপ্রথম আহলিয়া উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদীজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিতা চার বানাত আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের একজন অর্থাৎ তৃতীয়া বিনতু সাইয়্যিদাতুন নিসা হযরত উম্মে কুলসুম আলাইহাস সালাম।



তাবলীগ আমিরের বিরুদ্ধে ২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ॥ দেশব্যাপী নিজস্ব সন্ত্রাসী গ্রুপ ও নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছে মালানা যোবায়ের


তাবলীগ জামাতের আমির মালানা ওয়াসিফুল ইসলাম তাবলীগ ও কাকরাইল মসজিদ নির্মাণের নামে দেশ-বিদেশ থেকে টাকা তুলে দুই শত কোটি টাকা আত্মসাত করেছে বলে অভিযোগ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষক এম মুশফিকুর রহমান চৌধুরী সমর্থিত তাবলীগ জামাতের শিক্ষকেরা। গতকাল ইয়াওমুল আহাদ (রোববার)



প্রচলিত বাংলা সন প্রকৃতপক্ষে বাদশাহ আকবরের প্রবর্তিত ফসলী সন। যারা একে বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য বলে তারা নেহায়েত গণ্ডমূর্খ।


সূচনা: আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন হচ্ছে সম্মানিত ইসলাম।’ তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন,  “তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে ভয় করো এবং কাফির ও মুনাফিকদের অনুসরণ করো না।” ঐতিহাসিকভাবে প্রমাণিত যে



বাংলাদেশবিদ্বেষী রাজাকার রবীন্দ্রের গান ‘সোনার বাংলা’ গিনেজে, কিন্তু ত্রিশ লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত ‘জাতীয় পতাকা’ পায়ের নিচে


লাখো কণ্ঠে কথিত জাতীয় সংগীত গেয়ে রেকর্ড সৃষ্টি হলো। নাম উঠে গেল গিনেজ বুক ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে। এতে খরচ হলো কমবেশি ৯০ কোটি টাকা। একসাথে এতো মানুষ কথিত জাতীয় সংগীত গেয়ে বিশ্বরেকর্ড হলো কিন্তু সেই রেকর্ড অনুষ্ঠানেই পদদলিত হলো লক্ষ প্রাণের রক্ত



বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নাস্তিক প্রজন্ম!


আমরা মুসলমান, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম কি করে নাস্তিক হবে? একটা স্বাভাবিক প্রশ্ন। অথচ সূর্য পূর্ব দিকে উদিত হওয়ার মতোই বিষয়টি বাস্তব। আমাদের চোখের সামনে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নাস্তিক করা হচ্ছে, আইনগতভাবেই তা করা হচ্ছে। মাঝে মধ্যে কিছু বিষয় আমাদের কাছে খটকা



স্বাধীন রাষ্ট্র থাকার পরও বাঙালি মুসলমান আজও কেন বারোবণিতা ভিত্তিক কলকাতার হিন্দু সংস্কৃতির মুখাপেক্ষী হয়ে রয়েছে?


হিন্দু সম্প্রদায় নিয়ে একটি মোহ কাজ করে প্রচলিত শিক্ষায় শিক্ষিত মুসলমানদের মধ্যে, হিন্দু সাহিত্যিকদের লেখালেখি পাঠ করার কারণে তারা হিন্দু সংস্কৃতির প্রতি আসক্তি বোধ করে। কলকাতার সংস্কৃতি ধারণের আগে স্বাভাবিকভাবেই তাদের উচিত ছিল সেসব সংস্কৃতির উৎসমূল সম্পর্কে তাহক্বীক করা। কিন্তু হুজুগে



‘বৈদেশিক ঋণের ৭৫ শতাংশই লুট হয়’


বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ এবং বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত বলেছেন, গত চল্লিশ বছরে সরকারিভাবে যে আড়াই লক্ষ কোটি টাকার বৈদেশিক ঋণ-অনুদান এসেছে তার ৭৫ শতাংশই লুট করেছে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক দুর্বৃত্তরা। তিনি বলেন, বিত্তবানদের এই লুটপাটের কারণে ক্ষমতাধররা অধিকতর



সুমহান ৯ জুমাদাল ঊলা শরীফ ।। একজন ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল, কুতুবুল আলম, হাদীউল উমাম, বাবুল ইলম, সাইয়্যিদুনা হযরত


মহান আল্লাহ পাক সুবহানাহূ ওয়া তায়ালা তিনি এবং উনার প্রিয়তম রসূল, মাশুকে মাওলা, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি অর্থাৎ উনারা উনাদের উদিষ্ট ব্যবস্থায় জগৎ-সংসার পরিচালনা এবং বিশ্ব পরিসরে মনোনীত দ্বীন-ইসলাম উনার হাক্বীক্বী আবাদের জন্য কালে কালে,



পহেলা বৈশাখকে যারা সার্বজনীন বাঙালী উৎসব বলে, ধর্মীয় প্রেক্ষিতের থেকে আলাদা করে বর্ণনা করতে চায় তারা আসলে বোকার স্বর্গে


পহেলা বৈশাখ ফসলী (কতিথ বাংলা) সনের প্রথম দিন। দিনটি পালিত হচ্ছে বাঙালীর ঐতিহ্য ধরে রাখার চেতনা হিসেবে। মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ইত্যাদি পরিচয়ের বাইরে আলাদাভাবে এ বাঙালী পরিচয়ের দাবী। কিন্তু পহেলা বৈশাখ উদযাপনকারীরা একদিকে যেমন জানেনা যে, ফসলী (কতিথ বাংলা) সনের ‘সন’



খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, হাবীবুল্লাহ হযরত মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার সম্মানিত দ্বিতীয়া আওলাদ তয়্যিবাহ, হুমায়রা, ছিদ্দীকাহ্, আতীকাহ্, জামীলাহ্, হাবীবাতুল্লাহ্,


আওলাদে রসূল, নিবরাসাতুল উমাম, রাজারবাগ শরীফ উনার হযরত শাহযাদী ছানী আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র বিলাদত শরীফ দিবস ১৯ রবিউছ ছানী শরীফ স্মরনে আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হিসেবে উনার বেমেছাল ফাযায়িল-ফযীলতের কিছু অংশ তুলে ধরা হলোঃ নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর



হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই হচ্ছেন ঈমান; তাই উনার পবিত্র শানে বিন্দুতম চু-চেরা করে কেউ মুসলমান থাকতে


পবিত্র ঈমানের মূলই হচ্ছেন যিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি। উনার প্রতি পরিপূর্ণ ঈমান না আনা পর্যন্ত, পরিপূর্ণ হুসনে যন বা সুধারণা শোষণ না করা পর্যন্ত, উনাকে সবচেয়ে মুহব্বত না