কলম-১৩ -blog


...


 


‘বেপর্দা হয়ে পবিত্র হজ্জ করা নিষেধ’ এটা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনারই ফতওয়া


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যার উপর পবিত্র হজ্জ ফরয সে যেন পবিত্র হজ্জ করতে গিয়ে কোনো প্রকার অশ্লীল-অশালীন কাজ না করে এবং কোনো প্রকার ফাসিকী বা নাফরমানিমূলক কাজ না করে এবং ঝগড়া-বিবাদ না করে। আর



ব্যক্তির জন্যই রাষ্ট্র, কিন্তু রাষ্ট্রের জন্য ব্যক্তি নয়; আর মুসলমানের জন্য দ্বীন ইসলামই সবচেয়ে বড়


পবিত্র ‘ইসলাম’ শব্দের অর্থ হচ্ছে শান্তি। পবিত্র ‘ইসলাম’ই পেরেছে এবং পারে যমীনে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার বাইরে কোথাও শান্তি পাওয়া যায়নি এবং যাবেও না। কাজেই শরয়ী পর্দা পালনই শান্তি স্থাপন করতে পারবে। শরয়ী পর্দার অভাবেই আজ সবদিকেই শুধু



হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের শান-মান বহিঃপ্রকাশের একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ


বারতম খলীফা হযরত ইমাম মুহম্মদ মাহদী আলাইহিস সালাম উনি যখন এ পৃথিবীতে আগমন করে সম্মানিত খিলাফত মুবারক পরিচালনা করবেন এবং দাজ্জালের বিরুদ্ধে জিহাদ করবেন তখন উনার মুবারক খিদমতে আঞ্জাম দিবেন হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ! এখানে চিন্তা ও ফিকিরের



কথিত ‘স্বাস্থ্যবিধি’র নামে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার শরীয়তকে পরিবর্তন ও বিকৃত করা হচ্ছে, যা কাট্টা কুফরীর অন্তর্ভূক্ত


দ্বীন ইসলামে কোন ছোঁয়াচে রোগ নেই: কথিত ‘স্বাস্থ্যবিধি’র নামে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার শরীয়তকে পরিবর্তন ও বিকৃত করা হচ্ছে, যা কাট্টা কুফরীর অন্তর্ভূক্ত প্রশাসনের শরীয়তবিরোধী নির্দেশনার কারণে যে সকল শরীয়তের খেলাফ নাজায়িজ কাজ হচ্ছে, তার খ-নমূলক আলোচনা এখানে করা হলো। ১)



গোল্ডেন রাইস (জিএমও) চাষ করার বুদ্ধিদাতারা দেশ ও জাতির শত্রু


বিশ্বব্যাপী নিষিদ্ধ জিএমও ক্রপ্স (জেনেটিক্যাল মডিফাইড খাদ্য শস্য) বাংলাদেশের মতো খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি দেশে কী করে অনুমোদিত হতে পারে, তা সত্যিই আশ্চর্যের বিষয়। আমাদের দেশে এই আত্মঘাতী বীজ বাণিজ্যিকিকরণের পেছনে কে বা কারা কাজ করছে তাদেরকে চিহ্নিত করা ও খুঁজে বের



মুসলমানরা যদি মহান আল্লাহ পাক উনার অসন্তুষ্টি থেকে পরিত্রাণ পেতে চায়, করোনাসহ সর্বপ্রকার আযাব-গযব থেকে নাযাত চায় এবং কাফির-মুশরিকদের


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যদি তোমরা পবিত্র ও সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার উপর ইস্তিক্বামত থাকতে পারো এবং মুত্তাক্বী হও, তবে কাফির-মুশরিকদের ষড়যন্ত্র তোমাদের কোনো ক্ষতি করতে পারবে না।” সুবহানাল্লাহ! মুসলমানরা যদি মহান আল্লাহ পাক উনার অসন্তুষ্টি থেকে পরিত্রাণ



মহল্লায় মহল্লায় পূজামন্ডপ হয়, কিন্তু কুরবানীর হাট বসতে হতে বাধা!!


বাংলাদেশের ৯৮ ভাগ মুসলমানদের দেশে প্রতিবারই পাড়ায়-পাড়ায়, মহল্লায়-মহল্লায়, মোড়ে-মোড়ে পূজামন্ডপ বসাতে দেখা যায়। সংখ্যালঘুরা পাড়ায়-পাড়ায়, মহল্লায়-মহল্লায় পূজামন্ডপ বসাতে পারে তাহলে ৯৮ ভাগ মুসলমানদের সুবিধার্থে কেন প্রতিটি এলাকায় কুরবানীর হাট বসানো হবে না? মুসলমানদের জন্য প্রতিটি এলাকা, পাড়া-মহল্লা সবখানইে কুরবানীর হাট বসাতে



স্বাধীনভাবে যদি দ্বীন ইসলামই পালন করা না যায়, তাহলে কি প্রয়োজন এই বাংলাদেশ নামক স্বাধীন ভূ-খণ্ডের?


বাংলাদেশ কেন স্বাধীন হলো? এর উত্তরে অনেকেই অনেক কিছু বলতে পারে, কিন্তু সঠিক উত্তর হলো- বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে সঠিকভাবে দ্বীন ইসলাম পালনের জন্য। যদি কেউ বলে যে, স্বাধীনতা এসেছে পূজা-অর্চনার জন্য, সংগীত গাওয়ার জন্য, পহেলা বৈশাখ উদযাপনের জন্য, তাহলে বলতে হবে-



জিএমও ফুড নিয়ে দেশের সকল মানুষকে সতর্ক থাকতে হবে


২০০৪ সালে মানব খাদ্য হিসাবে জিএম ভুট্টা বিটি-১১ এর যখন অনুমোদন দেয়া হয় ৫টি দেশ ছিল বিপক্ষে এবং একটি দেশ ভোট দানে বিরত থাকে। সারা বিশ্বের বেশ কিছু বিজ্ঞানী তখন এ অনুমোদনের বিরোধিতা করেছিলো। তাদের মাঝে মে-ওয়ান হো এবং জো কমিনস



প্রত্যেক মুসলমান ও মুসলমান দেশের সরকারের জন্য ফরয হচ্ছে- কাফির বা বিধর্মী, বিদয়াতী ও ফাসিক ব্যক্তিদের প্রশংসা, তা বক্তব্যে


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘যে ব্যক্তি কোনো বিদয়াতীকে সম্মান দেখালো, সে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার ক্ষতিসাধনে সাহায্য করলো।’ নাউযুবিল্লাহ! সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে কোনো কাফির বা বিধর্মী, বিদয়াতী ও ফাসিকদের প্রশংসা



হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমগণ উনাদের আত্মত্যাগ


একদিন আখিরী রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র দরবার শরীফ-এ এক ব্যক্তি এসে হাযির হলেন এবং বললেন, “ইয়া রসূলাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! কিছুদিন পর আমার মেয়ের



হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সম্মানিত জবান মুবারক-এ উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আস সাবি‘য়াহ্ আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম


উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ্ আলাইহাস সালাম তিনি বলেন, وَلَمْ أَرَ امْرَأَةً قَطُّ خَيْرًا فِي الدِّينِ مِنْ اُمِّ الْمُؤْمِنِيْنَ السَّابِعَةِ سَيِّدَتِنَا حَضْرَتْ اَطْوَلُ يَدًا عَلَيْهَا السَّلَامُ (سَيِّدَتَنَا حَضْرَتْ زينب عَلَيْهَا السَّلَامُ). وَأَتْقَى لِلَّهِ وَأَصْدَقَ حَدِيثًا، وَأَوْصَلَ لِلرَّحِمِ، وَأَعْظَمَ صَدَقَةً،