মুহম্মদ মাহদিউল ইসলাম -blog


...


 


আন্তর্জাতিক মহাসম্মানিত মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে সরাসরি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি


যামানার লক্ষ্যস্থল আহলে বাইত ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইউস সুন্নাহ, ছাহিবুস সুন্নাহ, হাফিজুস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, সুলত্বানুন নাছীর, হাবীবুল্লাহ, ছাহিবু রহমাতুল্লিল আলামিন, মাওলানা, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি পবিত্র জুমুয়া শরীফ ও মুবারক মাহফিলে কয়েকবার ইরশাদ



মুসলমানদের জন্য পবিত্র দ্বীন ইসলাম ব্যতীত অন্য ধর্ম ও মতবাদের নিয়ম-নীতি গ্রহণ করা কুফরী


মহান আল্লাহ পাক মানুষকে আশরাফুল মাখলূকাত করে সৃষ্টি করেছেন। উদ্দেশ্য হলো এই মানুষ উনার আদেশ-নিষেধ মুতাবিক চলে উনার মুহব্বত-মা’রিফাত, রেযামন্দি-সন্তুষ্টি মুবারক হাছিল করবে। এই লক্ষ্যে মহান আল্লাহ পাক মানবজাতির মধ্য হতেই হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস্ সালাম উনাদেরকে উনার খলীফা বা প্রতিনিধি মনোনীত



ইমামুম মিন আইম্মাতিল মুসলিমীন, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল আ’শির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার


মুবারক নাম ও পরিচিতি: প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ইমামুম মিন আইম্মাতিল মুসলিমীন, যিকরান কাশিফ ইসরারিল ইমতিনাহী, মাহবুবে তরীন, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল আ’শির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আহলে বাইত শরীফ উনার দশম ইমাম। উনার মূল নাম মুবারক



তারা ইসলামবিদ্বেষী! যারা কুরবানী নিয়ে স্বাস্থ্যগত ও দূষণের উদ্দেশ্যমূলক অপপ্রচার চালাচ্ছে


ইসলামবিদ্বেষী, নাস্তিক, কথিত কুষিল সমাজ আর দালাল মিডিয়া প্রতিবছর কুরবানী এলেই পশুর হাট, গরুতে বিষাক্ততা, পশু কুরবানীর স্থান নিয়ে অপপ্রচার করে। তারা যুক্তি দেয় যে- ‘কুরবানী পশুর হাটের কারণে মানুষের দুর্ভোগ হয় আর হাসপাতালে রোগীদের কষ্ট হয়। আবার যত্রতত্র জবাই করার



মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র কুরবানীর পশুদেরকে সম্মান করা ফরয এবং বেমেছাল ফযীলত লাভের কারণ


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, قَالَ النَّبِـىُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَظِّمُوْا ضَحَايَاكُمْ فِاِنَّـهَا عَلَى الصِّرَاطِ مَطَايَاكُمْ. অর্থ: “নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, তোমরা তোমাদের মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র



মহাপবিত্র ও মহাসম্মানিত সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ শরীফ মহাসম্মানিত ১২ই শরীফ উনার সম্মানার্থে: প্রত্যেক মাসের ১২ তারিখে মহাপবিত্র রাজারবাগ দরবার


আহলু বাইতে রসূলিল্লাহ, মুজাদ্দিদে আযম রাজারবাগ শরীফ উনার মহাসম্মানিত মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার মুবারক তত্ত্বাবধানে ও পৃষ্ঠপোষকতায় মহাসম্মানিত রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার আয়োজনে মহাসম্মানিত সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ উপলক্ষে সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ ১২ই শরীফ উনার সম্মানার্থে আজ



কম বয়সে বিয়েতে সমস্যা, কিন্তু চর্মবাণিজ্যে কোনো সমস্যা হয় না?


মেয়েদের বিয়ের বয়স নিয়ে কিছু অতিভক্তি দেখানো নারীবাদী মহল ও মিডিয়াগুলো খুব লম্ফঝম্ফ করে। তাদের যুক্তি- ১৬ বছর বয়সে একটি মেয়ে সংসারের দায়িত্ব নিতে পারে না, কম বয়সে বিয়ে হলে তার পড়ালেখা নষ্ট নয়। এটাই যদি হয় মূল সমস্যা, তাহলে কথিত



সুমহান পবিত্র ১৪ই শাওওয়াল শরীফ: আফযালুল আউলিয়া হযরত ইমাম মুজাদ্দিদ আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার খালিছ ওলী, হিজরী দ্বিতীয় সহস্রাব্দের (একাদশ হিজরী শতকের) মুজাদ্দিদ, আফদ্বালুল আউলিয়া, বদরুদ্দীন, কাইয়্যুমে আউওয়াল শাহ ছূফী হযরত শায়েখ আহমদ ফারূক্বী মুজাদ্দিদে আলফে ছানী সিরহিন্দী হানাফী মাতুরীদী নকশবন্দী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি মানুষের বিবেক, মন ও



সকলের রিযিকের মালিক মহান আল্লাহ পাক তিনি ॥ রিযিক সম্পূর্ণ কুদরতী বিষয়


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- وَمَا مِن دَابَّةٍ فِي الْأَرْضِ إِلَّا عَلَى اللَّـهِ رِزْقُهَا অর্থ: “যমীনে যত প্রাণী আছে সবার রিযিকের মালিক মহান আল্লাহ পাক তিনি।” (পবিত্র সূরা হুদ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-৬ ) হযরত সুলাইমান আলাইহিস সালাম তিনি



সাইয়্যিদাতুন নিসা, হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি সুমহান বেমেছাল বরকতময় ৪ঠা শাওওয়াল শরীফে পবিত্র বিলাদতী


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা দ্বীনী ইলম অর্জন করো সাইয়্যিদাতুন নিসা, উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার কাছ থেকে।” সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদাতুন নিসা, হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি সুমহান বেমেছাল বরকতময় ৪ঠা



যারা পবিত্র লাইলাতুম মুবারাকাহ তথা শবে বরাত সম্পর্কে চু-চেরা করবে, তারা কাট্টা কাফির ও চিরজাহান্নামী হয়ে যাবে


‘বরাত’ উনার বরকতময় রাতটির বর্ণনা স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন উনার কালাম পাক উনার মধ্যে ঘোষণা করেছেন। এ প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই আমি বরকতময় রজনীতে (লাইলাতুল বরাতে) পবিত্র কুরআন শরীফ নাযিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নিশ্চয়ই



করোনা কাফিরদের প্রতি একটি খোদায়ী গযব


পবিত্র হাদীছ শরীফে বর্ণিত হয়েছে, “যমীনে সব সময় সাত জন ওলীআল্লাহ থাকেন যাঁদের উছিলায় জ্বীন-ইনসানের সকল প্রাণী রিযিক পেয়ে থাকে।” সুবহানাল্লাহ! করোনা ভাইরাস হলো ইসলামবিদ্বেষী ও মুসলিমবিদ্বেষী চীন থেকে শুরু করে বিশ্বের সকল কাফিরগোষ্ঠীর উপর নাযিল হওয়া অত্যন্ত কঠিন এক গযব।