নীলাভ -blog


...


 


মহিলাদের জন্য গিলালা (সেমিজ) পরিধান করা পবিত্র সুন্নত


মহাসম্মানিত মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে রয়েছে عَنْ حَضْرَت أُسَامَةَ بْنِ زَيْدٍ رَضِىَ اللّٰهُ تَعَالٰى عَنْه أَنَّ أَبَاهُ أُسَامَةَ قَالَ كَسَانِي رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قُبْطِيَّةً كَثِيفَةً كَانَتْ مِمَّا أهداها دحْيَة الْكَلْبِيّ رَضِىَ اللّٰهُ تَعَالٰى عَنْه فسكوتها امْرَأَتِي فَقَالَ



মহান আল্লাহ পাক উনার পক্ষ থেকে বেমেছাল নেয়ামত হচ্ছে উপকারী পোকাসমূহ; আসুন এদের হেফাজত করি


আইপিএম পদ্ধতি ব্যবহারে মিষ্টি মড়ার পোকা আক্রান্তের হার কীটনাশকের ব্যবহারের চেয়ে প্রায় ২ দশমিক ৫ থেকে ৩ গুণ কম হয়। ফলনও সে অনুপাতে বাড়ছে। এতে ১ দশমিক ৫ থেকে ২ গুণ বেশি টাকা আয় করতে সক্ষম হচ্ছেন কৃষকরা। রাসায়নিক কীটনাশক ব্যবহারের



ওলী-আউলিয়া রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারাও ইলমে গইব উনার অধিকারী


মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদেরকে ইলমে গইবসহ সর্বপ্রকার ইলিম হাদিয়া করার পদ্ধতির নাম হচ্ছে ‘ইলমে লাদুন্নী, ইলহাম ও ইলক্বা। আর হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে ইলমে গইবসহ সর্বপ্রকার ইলিম হাদিয়া করার পদ্ধতির নাম হচ্ছে



মুসলিম বিজ্ঞানী-মনীষীদের স্মরণ করে অনেকেই আফসোস করে; কিন্তু মুসলিম মনীষীদের যাঁরা তৈরি করেছিলেন, সেই হক্কানী পীর-মুর্শিদগণ উনাদের নিকট যাওয়া


বর্তমানে গোটা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ এক চরম হতাশার মধ্যে দিনাতিপাত করছে। যারা ইতিহাস সচেতন, তারা অতীতের মুসলিম বিজ্ঞানী-কবি সাহিত্যিকদের ইতিহাস স্মরণ করে আফসোস করে। তারা আফসোস করে এই ভেবে যে, আগে আমাদের সবই ছিল, কিন্তু এখন আমাদের কিছুই নেই। কিন্তু কেন



বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে কমপক্ষে দুই লাখ টন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন কমপক্ষে ৫০০ হিমাগার তৈরি করা সরকারের জন্য একান্ত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘নিশ্চয়ই অপচয়কারী শয়তানের ভাই।’ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘প্রত্যেকেই রক্ষক সে তার রক্ষিত বিষয় সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত হবে।’ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে কমপক্ষে দুই লাখ টন



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মাহফিল তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিল এর মাধ্যমেই নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু


আলেম নামধারী অনকে জহেল প্রকৃতির লোকেরা বলে থাকে  ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এ নাকি নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি সম্মানে বাড়াবাড়ি হয়ে যায়। আল্লাহকে ডাকার পরিবর্তে নাকি নবীজী( ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) উনাকে ডাকা এবং উনার সাহায্য



আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র, সর্বশ্রেষ্ঠ ছদকায়ে জারিয়া


  পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- عَن أَبِي هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللهُ عَنْهُ: أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم قَالَ إِذَا مَاتَ الْإِنْسَانُ اِنْقَطَعَ عَنْهُ عَمَلُهُ إِلَّا مِنْ ثَلَاثَةٍ: إِلَّا مِنْ صَدَقَةٍ جَارِيَةٍ، أَوْ عِلْمٍ يُنْتَفَعُ بِه، أَوْ وَلَدٍ



নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের, সম্মানিত দ্বীন ইসলাম


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমাদের মধ্য থেকে যে বা যারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম থেকে ফিরে যায় অর্থাৎ মুরতাদ হয়ে যায় অতঃপর সে বা তারা কাফির অবস্থায় মারা যাবে। যার ফ্ললে তাদের ইহকালীন ও পরকালীন সব আমলই নষ্ট হয়ে



পবিত্র আশুরা শরীফ উনার ফযীলত ও আমল


পবিত্র মুহররম শরীফ মাসের উল্লেখযোগ্য ও শ্রেষ্ঠতম দিন হচ্ছে ১০ই মুহররম শরীফ ‘আশূরা’র দিনটি। এ দিনটি বিশ্বব্যাপী এক আলোচিত দিন। সৃষ্টির সূচনা হয় এ দিনে এবং সৃষ্টির সমাপ্তিও ঘটবে এ দিনে। বিশেষ বিশেষ সৃষ্টি এ দিনেই করা হয় এবং বিশেষ বিশেষ



সন্ত্রাসবাদের নেপথ্য নায়ক বনাম আজকের বাংলাদেশ


চীনের সাথে উপমাহাদেশের চারটি দেশের সীমান্ত রয়েছে। বাংলাদেশের সাথে সীমান্ত না থাকলেও বিগত দশকগুলোতে যে ধরনের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে তা ক্রমেই ভূ-রাজনৈতিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। চীনের সাথে পাকিস্তানের এবং মায়ানমারের মধ্যে যে ধরনের কৌশলগত সামরিক সম্পর্ক রয়েছে সে কারণেই



জীবাণু অস্ত্র, টিকা ও সাম্রাজ্যবাদীদের জাতি নিধনের ষড়যন্ত্র


ভাইরাস বিষয়ে ধারণা না দিলে জাতি নিধনে বা জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে সাম্রাজ্যবাদীদের যে কত রকম ন্যাক্কারজনক কার্যক্রম আছে তা মানুষ ভাবতেই পারবে না। এই পর্যায়ে বলবো জিকা ভাইরাস নিয়ে কথা। জিকা ভাইরাস প্রথম সনাক্ত হয় উগান্ডাতে ১৯৪৭ সালে বানরের মধ্যে কিন্তু মানুষের



প্রসঙ্গ সুন্নতী বাল্যবিবাহ: ভেবে চিন্তে আইন প্রণয়ন করা উচিত


ওরা না জানে মহাপবিত্র কুরআন শরীফ ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ। আর না জানে নিজেদের ইতিহাস। মেয়েদের বালেগা বা প্রাপ্তা বয়স্ক হওয়ার ন্যূনতম বয়স হচ্ছে ৯ বছর। আর উর্ধ্বতম বয়স হচ্ছে ১৫ বছর। আর ছেলেদের বালেগ বা প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার সর্বোচ্চ সীমা