যিকরান -blog


...


 


সংখ্যালঘু হিন্দুদের কথিত ‘দেশত্যাগ’ নিয়ে বিভ্রান্তি


বাংলাদেশ থেকে হিন্দুরা নাকি দেশত্যাগ করে ভারতে চলে যাচ্ছে? আসলে মূল ব্যপারটির গভীরে কি রহস্য লুকায়িত, সেটা নিয়ে ভেবেছেন কি কখনো? তাহলে আসল ব্যাপারটি কি হতে পারে দেখা যাক- ১) পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ১৯৬১ সালে ইন্ডিয়ায় হিন্দু জনসংখ্যা ছিল মোট জনসংখ্যার



ইসলামী ফাউন্ডেশনে আবারও শয়তানের অনুপ্রবেশ: গণশিক্ষার বইয়ে ব্যাপক কাটছাঁট


ইসলামিক ফাউন্ডেশনে আবারো বাতিলপন্থীদের শয়তানী ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। সেখানে নতুন ডিজি আনিস মাহমুদ কাদেরের প্রবেশের পর থেকেই শুরু হয়েছে হক্ব বিষয়গুলোর পরিবর্তে বাতিল বিষয়গুলোর অনুপ্রবেশ। ইসলামী ফাউন্ডেশনের গণশিক্ষার সহজ কুরআন শিক্ষা বইয়ের পূর্বের ২০২০ সালের সংস্করণ আর চলমান ২০২১ সালের সংস্করণে



প্রত্যেক মুসলমানেরই উচিত- “আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচারকেন্দ্র” উনার সাথে সংশ্লিষ্ট ও সম্পৃক্ত হওয়া


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই আমার মহাসম্মানিত হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মাঝে তোমাদের জন্য সর্বোত্তম আদর্শ মুবারক রয়েছে।” সুবহানাল্লাহ! মু’মিন-মুসলমানদেরকে জীবনের প্রতিটি পদে পদে পরিপূর্ণভাবে সুন্নত মুবারক উনার রঙ্গে রঞ্জিত করতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে- “আন্তর্জাতিক পবিত্র



পবিত্র পহেলা শাওওয়াল শরীফ-এ ঈদুল ফিতরসহ সমগ্র যমীনবাসী ও আসমানবাসী ধন্য


সমগ্র পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ যেমন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছানা ছিফতে পরিপূর্ণ। তেমনিভাবে উনার রয়েছে মহান আল্লাহ পাক উনার সাথে গভীর ও নিবিড় সুসম্পর্ক এবং নিছবত; অনুরূপভাবে হযরত আহলে বাইত আলাইহিমুস সালাম উনারা নূরে মুজাসসাম,



যাদের ঈমান-আক্বীদা শুদ্ধ নয় তাদেরকে যাকাত দেয়া যাবে না


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মাসয়ালা হলো, যারা অমুসলিম অর্থাৎ যারা ঈমানদার নয়, তাদেরকে ফরয-ওয়াজিব ছদকা অর্থাৎ যাকাত, উশর ফিতরা, মান্নত, কাফফারা, কুরবানীর চামড়া বিক্রির টাকা ইত্যাদি কোনোটাই দেয়া জায়িয নেই। একইভাবে যাদের আক্বীদার মধ্যে কুফরী রয়েছে। অর্থাৎ যারা নিজেকে মুসলমান হিসেবে



তারাবীহ নামায ২০ রাকায়াতই আদায় করতে হবে


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “মহান আল্লাহ পাক তিনি তোমাদের জন্য রমাদ্বান শরীফ মাস উনার রোযাকে ফরয করেছেন আর আমি তোমাদের জন্য ক্বিয়ামুল লাইল তথা তারাবীহ নামাযকে সুন্নত করেছি। সুবহানাল্লাহ! মহাসম্মানিত ইসলামী শরীয়ত



মাদরাসাগুলো থেকে উলামায়ে ছু’দের বের করে দিতে হবে


মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ এবং মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র হাদীছ শরীফ শিক্ষা দেয়া হয় মাদরাসায়। কাজেই মাদরাসার ছাত্ররা নিশ্চিতভাবে আল্লাহওয়ালা অর্থাৎ উত্তম চরিত্রবান হবে- এটাই স্বাভাবিক।



একটি সরকারী ফতওয়া ও একটি ঘটনা!


বাদশাহ শাহজাহান তাঁর শাসনামলে একবার খুজলী-পাচরা, চুলকানী রোগে আক্রান্ত হলে তৎকালীন হাকীম বা ডাক্তার দ্রুত আরোগ্য লাভের জন্য রেশমী কাপড় পরিধানের পরামর্শ দেয়। অতঃপর বাদশাহ তার দরবারের তিনশত মুফতীর ফতওয়ার ভিত্তিতে রেশমী কাপড় পরিধান করতে সম্মত হন। তবে শর্ত দেন, ‘যদি



হিরাক্লিয়াস, গান্ধী ও বিধর্মীদের কথিত নামধারীদের ইসলামপ্রীতির স্বরূপ


বর্তমান মুসলমানদের মধ্যে একটি স্বভাব প্রায়ই লক্ষ্য করা যায়। তারা বিভিন্ন বিধর্মী লেখক ও রাজনীতিবিদদের বিভিন্ন কোটেশন তুলে ধরে, যেখানে তারা দ্বীন ইসলাম উনার প্রশংসা করে বক্তব্য দিয়েছে। দ্বীন ইসলাম উনার মাহাত্ম্য তুলে ধরতে গিয়ে বার্নাডশ, রবীন্দ্র, গান্ধী এদের কোটেশন তুলে



সুমহান বরকতময় পবিত্র ২৫শে রজবুল হারাম শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুস সাবি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার সেই উম্মতের জন্য আমার শাফায়াত মুবারক ওয়াজিব, যে উম্মত আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করেন।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বরকতময় পবিত্র ২৫শে রজবুল হারাম



সবচেয়ে বড় সমাজ কল্যাণমূলক কাজ হলো পবিত্র ঈমান রক্ষা করা


শুধু কেবল রাজধানী ঢাকা বা অন্যান্য, জেলা শহরগুলোতেই নয়, এখন প্রায় প্রতিটি গ্রামেই ছোটবড় বিভিন্ন রকম সমিতি, সংগঠন দেখা যায়। যেমন- ….যুব কল্যাণ সমিতি, …. সামাজিক সংস্কৃতি পরিষদ, …. সমাজ কল্যাণ সমিতি -এরকম আরো নানারকম নামের সংগঠন এখন চোখে পড়ার মতো



সুমহান বরকতময় মহাসম্মানিত মহাপবিত্র ৭ই শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যা সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, আখাছ্ছুল খাছ আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম ও আলাইহিন্নাস সালাম উনারা আসমান ও যমীনবাসীদের জন্য নিরাপত্তা দানকারী।” সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বরকতময় মহাসম্মানিত মহাপবিত্র ৭ই শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যা