সরকারী আমলারা কার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে?


মুনাফিক ঐ ব্যক্তি যার জবানে একটা, অন্তরে আরেকটা। ৯৮ ভাগ মুসলমান উনাদের দেশের সরকারি আমলারা অধিকাংশই মুসলমান। তারা নামায পড়ে, রোযা রাখে। অন্তরে কাফির-মুশরিকের মুহব্বত। নাউযুবিল্লাহ! বন্ধুত্ব মুশরিকদের সাথে, তাদের কথায় উঠে বসে। নাউযুবিল্লাহ! এমন প্রশাসন বা আমলারা যে দেশে থাকে 

দ্বীন ইসলাম থেকে সরিয়ে দিতেই আজগুবি বেহুদা দিবসের প্রচলন!


অন্যের ঘরের পিঠার ঘ্রাণ বেশি। একটা প্রচলিত কথা। কথাটির মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হলো, নিজের যা আছে তাতে সে খুশি নয় কিংবা অন্যের যা আছে সেটাকেই বেশি উৎকৃষ্ট মনে করা। এটাকে হীনম্মন্যতা কিংবা এধরনের মানসিকতার অধিকারীকে মানসিক বিকারগ্রস্তও বলা যায়। দুঃখজনক হলেও 

সামাজিক দায়িত্ব বনাম ঈমানী দায়িত্ব !!


শুধু কেবল রাজধানী ঢাকা বা অন্যান্য, জেলা শহরগুলোতেই নয়, এখন প্রায় প্রতিটি গ্রামেই ছোটবড় বিভিন্ন রকম সমিতি, সংগঠন দেখা যায়। যেমন- ….যুব কল্যাণ সমিতি, …. সামাজিক সংস্কৃতি পরিষদ, …. সমাজ কল্যাণ সমিতি -এরকম আরো নানারকম নামের সংগঠন এখন চোখে পড়ার মতো 

কথিত করোনার অজুহাতে রাজধানীতে পবিত্র কুরবানীর পশুর হাট কমানোর পাঁয়তারা করছে। নাউযুবিল্লাহ!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইশরাদ মুবারক করেন, তোমরা পরস্পর পরস্পরকে নেকী ও পরহেযগারীর মধ্যে সাহায্য-সহযোগিতা করো, পাপ ও নাফরমানীর মধ্যে সাহায্য-সহযোগিতা করো না। সরকার এবারও কথিত করোনার অজুহাতে রাজধানীতে পবিত্র কুরবানীর পশুর হাট কমানোর পাঁয়তারা করছে। নাউযুবিল্লাহ! যা স্পষ্টতই পবিত্র কুরবানীতে 

অনুসরণীয় ৪ মাযহাব উনাদের ফতওয়া মুতাবিক- নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শান মুবারক মানহানির


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্পর্কে, উনার সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম অর্থাৎ উনার সম্মানিত আব্বা-আম্মা আলাইহিমাস সালাম উনাদের সম্পর্কে, উনার সম্মানিতা আওয়াজে মুত্বহহারাত হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সম্পর্কে এবং উনার সম্মানিত আওলাদ 

এদেশে রাজনৈতিক পিতার সমালোচনা করলে শাস্তি হয়, কিন্তু দ্বীন ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করলে শাস্তি হয় না!!


দেশের মানুষ এখন অনেক বেশি রাজনীতিতে সচেতন হয়েছে, আইন আদালতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়েছে, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের সম্মান দিতে শিখেছে। তাইতো এদেশে কোনো রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের সমালোচনা হলে, কটূক্তি করা হলে প্রশাসন তাদের হন্যে হয়ে খুঁজে, তাদের জেল দেয়, জরিমানা দেয়। কেউ আদালত অবমাননা 

পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার চাঁদ তালাশ করতে হবে আগামী ২৯শে যিলক্বদ শরীফ ১৪৪২ হিজরী মুতাবিক ১২ই ছানী ১৩৮৯


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, মহান আল্লাহ পাক উনার জন্যই মানুষের পবিত্র হজ্জ করা ফরয, যার পথের সামর্থ্য এবং (ঈমান-আমল ও জান-মালের) নিরাপত্তা রয়েছে। সুবহানাল্লাহ! বাংলাদেশে পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার চাঁদ তালাশ করতে হবে আগামী ২৯শে যিলক্বদ শরীফ 

শাসক শোষণে আওড়াচ্ছে আবোলতাবোল বুলি, কুশাসনের সংশয় বিস্মিত নয় মোরা এবার জাগিবে কবি নজরুলের আমামা কবিতাগুলি….!


করোনার নাম দিয়ে কে দিচ্ছে ধোকা, কুসুম কলি মিম-মাহিরাও বুঝতে পারে প্রোপাগান্ডা আমাদের বানাচ্ছে বোকা ! বলার আজ কেউ নেই , চলার সাথী সেও নেই….. তুমি আমি এই গোটা শহর এই শহরের অলি গলি, বেঁচে থাকতেও প্রাণহীন আজ জনমানবহীন রাস্তা গুলো 

তিনি “ইছনাইনিল আযীম শরীফ” (সোমবার) মহাপবিত্র ও মহাসম্মানিত বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার কারণে এ মুবারক দিবসটি হচ্ছেন- সাইয়্যিদু


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইছনাইনিল আযীম শরীফ (সোমবার) পবিত্রতম বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন।” সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি “ইছনাইনিল আযীম 

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র আইয়্যামুল্লাহ শরীফ পালন করা সকলের জন্য ফরযে আইন


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক وَذَكِّرْهُمْ بِاَيَّامِ اللهِ اِنَّ فِـىْ ذٰلِكَ لَاٰيٰتٍ لِّكُلِّ صَبَّارٍ شَكُوْرٍ অর্থ: “আর আপনি তাদেরকে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র আইয়্যামুল্লাহ শরীফ তথা মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বিশেষ বিশেষ দিন মুবারক 

প্রত্যেক সামর্থ্যবান ব্যক্তির জন্য আবশ্যক ও সর্বোত্তম আমল হলো নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার


মহান আল্লাহ পাক তিনি আদেশ মুবারক করেন- فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَٱنۡـحَرۡ অর্থ: আপনার রব তায়ালা মহান আল্লাহ পাক উনার জন্যেই পবিত্র ছলাত আদায় করুন এবং ও পবিত্র কুরবানী করুন। (পবিত্র সূরা কাওসার শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ২) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক 

পবিত্র কুরবানীদাতার ফাযায়িল-ফযীলত


(ক) পবিত্র কুরবানী উনার ফযীলত সম্পর্কে বহু পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে। যেমন পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে- عَنْ حَضْرَتْ زَيِدِ بْنِ اَرْقَمَ رَضِىَ اللهُ تَعَالـٰى عَنْهُ قَالَ قَالَ اَصْحَابُ رَسُوْلِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَا