বাংলা ব্লগ -blog


আসুন আমরা সকলে মিলে ইসলামকে ও ইসলামের বিভিন্ন দিক তুলে ধরি যেন তা থেকে মানুষ ফায়দা লাভ করতে পারে।


 


মুড়ি খাওয়ার উপকারিতা


মুড়ি শুধু স্বাদের জন্যই নয়, এর উপকারিতাও আছে অনেক। ইফতারে ছোলা-মুড়ির চাহিদা থাকে সবচেয়ে বেশি। শুধু কি ছোলা, মুড়ির সঙ্গে পেঁয়াজু, বেগুনি, চপ, শসা, টমেটো, জিলাপি মিশিয়ে তৈরি করা হয় আরো সুস্বাদু খাবার। মুড়ির রয়েছে প্রচুর উপকারিতা- ১৪ গ্রাম মুড়িতে রয়েছে



মুসলমানদের উচিত সপ্তাহের বারসমূহের নাম পবিত্র হাদীছ শরীফ অনুযায়ী উচ্চারণ করা।


একজন বয়োঃপ্রাপ্ত ও সুস্থ বিবেকসম্পন্ন মুসলমান পুরুষ-মহিলার জন্য দৈনিক ৫ ওয়াক্ত নামায আদায় করতে হয়। এ পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের নামকরণ পবিত্র হাদীছ শরীফ দ্বারাই হয়েছে। যেমন ফজর, যুহর, আছর, মাগরিব ও ‘ইশা। আজ পর্যন্ত কোন মুসলমান এই পাঁচ ওয়াক্ত নামাযকে ওয়াক্তের



১৪৪২ হিজরী সনের পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ মাস উনার চাঁদ দেখা গেছে


যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, আহলু বাইতে রসূলিল্লাহ, রাজারবাগ শরীফ উনার মহাসম্মানিত মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার মুবারক পৃষ্ঠপোষকতায় ও দিক-নির্দেশনায় পরিচালিত “মাজলিসু রুইয়াতিল হিলাল” উনার সংবাদ অনুযায়ী বাংলাদেশের আকাশে গতকাল ইয়াওমুল খামীস



আন্তর্জাতিক পবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার কেন্দ্র’ থেকে সংগ্রহ করুন সুন্নতী চামড়ার মশক


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা এবং হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু আনহুম উনারা পানি সংরক্ষণে চামড়ার মশক ব্যবহার করেছেন। অর্থ্যাৎ চামড়ার মশক ব্যবহার করা খাছ সুন্নত মুবারক। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার



পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করতে করতে হিন্দুস্থানের বিশিষ্ট ওলী হযরত কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাক্বী রহমতুল্লাহি


চীশতিয়া খান্দানের বিশিষ্ট বুযুর্গ হযরত খাজা গরীবে নেওয়াজ ম্ঈুনুদ্দীন হাসান চীশতি রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার প্রধান খলীফা হলেন হযরত কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাক্বী রহমতুল্লাহি আলাইহি। তিনি ‘দলীলুল আরেফীন’ নামক বিখ্যাত কিতাবের লিখক। উনার পবিত্র বিছাল শরীফ গ্রহণের ঘটনাটি অনেক মশহুর। ঘটনাটি ‘কুতুবে ছে’র’



হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা একমাত্র মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, اِنَّـمَا يُرِيْدُ اللهُ لِيُذْهِبَ عَنْكُمُ الرِّجْسَ اَهْلَ الْبَيْتِ وَيُـطَـهِّـرَكُمْ تَطْهِيْرًا. অর্থ: “হে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম! নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি চান আপনাদের থেকে সমস্ত প্রকার অপবিত্রতা দূর করে



প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য ফরয হচ্ছে- সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার খেলাফ সর্ব প্রকার নিয়ম-নীতি, তর্জ-তরীক্বা ও মতবাদ অনুসরন ও


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম অর্থাৎ পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের পরিপূর্ণ বিধান আসার পর অন্য কোনো ধর্ম ও মতবাদের নিয়মনীতি গ্রহণ করা কারো জন্যই জায়িয তো নেই বরং সম্পূর্ণ হারাম ও কুফরী। কেউ যদি তা গ্রহণ করে, তবে সে



সংকীর্ণ মানসিকতার জন্য বাতিল ফির্কার লোকেরা নবীজীর শান বুঝতে পারে না


নাস্তিকদের সাথে উলামায়ে ছূদের পার্থক্য তেমন একটা দেখি না। সংকীর্ণ মানসিকতার জন্য ধর্মব্যবসায়ী মৌলবীরা সঠিক আক্বীদা মেনে নিতে পারে না। একটা ঘটনা বললে বুঝতে সহজ হবে। এক নাস্তিক একবার এক বিদয়াতি মৌলবীকে বলছে, এই একটা সুঁচ, এটার ভিতর দিয়ে একটা সূতা



বাংলাদেশের রাজা যখন রাজাকার পুত্র


শুনতে অবাক শোনা গেলেও বাংলাদেশের জন্য এটা চরম সত্য। বর্তমান সরকার যখন ৭১ এর যুদ্ধাপরাধ ইস্যুতে অনেককে ফাঁসি দিয়েছে, এমনকি যুদ্ধাপরাধীর নাম করে তাদের সন্তানদের গ্রেফতার করছে, তাদের চাকুরী-বিসিএস আটকে দিচ্ছে, সেখানে বাংলাদেশ সরকারই আরেক রাজাকার পুত্রকে রাজা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে



প্রসঙ্গ: পবিত্র কুরবানী নিয়ে ষড়যন্ত্র।


সরকারের ভেতর থাকা ইসলামবিদ্বেষী মহলগুলো কি সরকারকে বিপাকে ফেলে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়? সম্প্রতি দেশে কিছু ইসলামবিদ্বেষী মহল ইসলামবিরোধী অপতৎপরতা জোড়ালোভাবেই চালিয়ে যাচ্ছে। যা দেশের ৯৮ ভাগ মুসলমান জনগোষ্ঠীকে উত্তেজিত করে দেয়ার জন্য ও সরকারবিরোধী বিক্ষোভ সৃষ্টির করার জন্য যথেষ্ট। রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের



বড় যদি হতে চাও ছোট হও তবে


মানুষের মধ্যে মুহলিকাত নামক কিছু বদ খাছলত বা কু-স্বভাব রয়েছে। সে সব বদ খাছলত মানুষকে বা মানুষের অন্তরকে হালাক বা ধ্বংস করে দেয়। আর এ বদ খাছলত বা কু-স্বভাবের মধ্যে অন্যতম একটি বদ খাছলত হচ্ছে নিজ মতকে প্রাধান্য দেয়া অর্থাৎ নফসের



পবিত্র রমজান মাসের সম্মানার্থে স্কুল কলেজ গুলো বন্ধ রাখুন!


কথা বলছিলাম প্রবাসী এক ছাত্রের সাথে। জানতে চাইলাম ভিনদেশে পড়া লেখা করার সময় কি সমস্যা হয়? সে ছেলেটি কয়েকটি বিষয় উপস্থাপন করল তার মধ্যে আমি আজকে একটি মাত্র বিষয় উল্লেখ করব। কথা প্রসঙ্গে আমি তার কাছে জানতে চেয়ে ছিলাম, মুসলমান হিসেবে